Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬, ১৩ শাবান ১৪৪১ হিজরী

আজানের সময় জবাব দিতে হয় বলে জানি। মাঝে মধ্যে মনে থাকে না, যখন মনে হয় তখন দেওয়া শুরু করি? এটা হবে কি? আজানের সময় কোনো কথা বলা জায়েজ আছে কি?

মো. মাসুদ রাইহান
ই-মেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:০৮ পিএম

উত্তর: আজানের জবাব দেওয়া সুন্নাত। মনে না থাকলে বা খেয়াল না করলে যখন পারেন, তখন থেকে দিবেন। আজান শেষ হয়ে গেলে আর দিতে হবে না। আজানের সময় নিরব হয়ে যাওয়া উত্তম। অনর্থক বা দুনিয়াবি কথা বন্ধ করে দেওয়া উচিত। শরীয়তসম্মত কিছু বিষয় আছে, যা আজানের সময়ও বলা যায়। ফিকহী দারসে কেউ কেউ আজানের জবাব দিলে অন্যরা দারস চালিয়ে যেতে পারে। শুরু থেকে না দিলে তখন আজানের জবাব যতটুকুই দেওয়া হোক, কিংবা দ্রুত সবটুকুই দোহরানো হোক, শেষের দুরুদ ও দোয়া পড়ে নিতে হবে। 

উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
inqilabqna@gmail.com



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আজান

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
২৮ এপ্রিল, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন

প্রশ্ন : সরকার প্রথমে ১০/১২ দিনের জন্য সবকিছু বন্ধ করে দিল। পরে আবার বাড়িয়েছে। শোনা যাচ্ছে, আরও বাড়তে পারে। যে কারণে সবকিছু বন্ধ করে দেওয়া হলো, আমরা কি তা মানছি? কেউ কেউ বলছেন, যদি করোনা বাংলাদেশে মহামারী রূপ ধারণ করতো, তাহলে এতদিনে তা স্পষ্ট হয়ে যেত। এসব বলে বলে তারা কেউ কেউ বলতে চাচ্ছে, হুজুররা শুধু শুধু মসজিদে যাওয়া থেকে মুসল্লীদের বারণ করছে, সরকার অকারণেই সবকিছু বন্ধ করে দিয়েছে। আসলে কি হচ্ছে? কি হতে পারে? আর আমাদের কি করণীয় বলবেন?

উত্তর : বাংলাদেশ এখনো শঙ্কামুক্ত নয়, আল্লাহ না করুন আগামী ২০/২৫ দিন পরেও কোভিড১৯ মহামারী রূপ নিতে পারে। ইতালিতে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হবার ৪৫

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ