Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০৫ মাঘ ১৪২৭, ০৫ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

পরিবারের দাবি ধরে নিয়ে হত্যা

দৌলতপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম ওরফে শহিদ (৩৪) নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি ও ৫০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত বুধবার ভোর রাত প্রায় সাড়ে ৩টার দিকে দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের বাগোয়ান গ্রামের মাঠের মধ্যে তোফাজ্জেল হোসেনের পান বরজের পাশে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত শহিদুল ইসলাম ওরফে শহিদ দৌলতপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী জামালপুর গ্রামের মানিক আলীর ছেলে। শহিদের বিরুদ্ধে মাদক ও অস্ত্র ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধের ১৪টি মামলা রয়েছে।
তবে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত শহিদের স্ত্রী তানিয়া খাতুন দাবি করেছেন, তার স্বামী শহিদ, শ^শুর মানিক আলী ও দেবর লালনকে গত মঙ্গলবার বিকেলে জামালপুর গ্রামের একটি দোকান থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ধরে নিয়ে যায়। এসময় ডিবি পুলিশের সাথে একই এলাকার আলতাব হোসেনের ছেলে রোকন ছিল। সে শহিদকে ধরিয়ে দিতে সহায়তা করেছে। পরে রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ দেখিয়ে তার স্বামী শহিদকে হত্যা করা হয়। স্বামীকে হত্যা করা হলেও শ^শুর ও দেবরকে ছাড়া হয়নি।
দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান জানান, দু’দল মাদক ব্যবসায়ীর মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের গোপন সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশ পৃথক বাগোয়ান গ্রামের মাঠে অভিযান চালায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে, জবাবে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। ‘বন্দুকযুদ্ধের’ একপর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় শহিদকে উদ্ধার করে দৌলতপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, ২ রাউন্ডগুলি ও ৫০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। পরে নিহত শহিদুল ইসলাম ওরফে শহিদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। শহিদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধের ১৪টি মামলা রয়েছে বলে দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান জানিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হত্যা

২৯ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন