Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৬, ০৮ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

সামরিক ব্যবস্থা চান পাকিস্তান শাসিত কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

প্রতিবেশী ভারতের সাথে কাশ্মীর বিবাদ নিয়ে সামরিক পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য পাকিস্তান সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তান-শাসিত কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী। পাকিস্তানের মাটিতে ভারতের বিমান হামলার বার্ষিকীতে তিনি এ আহ্বান জানালেন। ওই হামলার ফলে পারমাণবিক শক্তিধর দুই দেশের মধ্যে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছিল। আধা-স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য পাকিস্তান-শাসিত কাশ্মীরের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী রাজা ফারুক হায়দার বুধবার এক বিশেষ সাক্ষাতকারে আল-জাজিরার সাথে কথা বলেন। রাজধানী মুজাফফরাবাদে দেয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, “পাকিস্তান সরকারকে কিছু সাহসী পদক্ষেপ নিতে হবে। কাশ্মীরে ভারতের প্রতি তাদের শক্ত আঘাত হানতে হবে। এটা আমার মতামত”। কি ধরণের পদক্ষেপের কথা বলছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে হায়দার বলেন, এটা হতে হবে ক‚টনৈতিক ও সামরিক উভয় দিক থেকেই। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান সরকারের কাছে এই মত জানিয়েছেন বলেও জানানতিনি। “সামরিক শক্তি না থাকলে ক‚টনৈতিক পদক্ষেপ কাজ করবে না”। পাকিস্তান ও ভারত ১৯৪৭ সালে স্বাধীন হওয়ার পর কাশ্মীর নিয়ে তিনটি যুদ্ধ করেছে। দুই দেশই পুরো কাশ্মীরকে নিজেদের বলে দাবি করে থাকে কিন্তু উভয়েই এর অংশবিশেষ নিয়ন্ত্রণ করছে। দুই অঞ্চলকে বিভক্তকারী সীমানাটি নিয়ন্ত্রণ রেখা হিসেবে পরিচিত। হায়দার অভিযোগ করেন যে, ভারত কাশ্মীরকে কেন্দ্রের সাথে সংযুক্ত করার যে পদক্ষেপ নিয়েছে, সেটা করা হয়েছে ‘এই অঞ্চলের জনসংখ্যার চেহারা বদলে ফেলার জন্য’ যাতে অন্যান্য এলাকার অভিবাসীরা এখানে বসতি স্থাপন করতে পারে। হায়দার বলেন, তিনি চলতি মাসের শুরুর দিকে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরে একটা প্রস্তাব পাঠিয়েছেন যাতে কাশ্মীর ইস্যুতে কূটনৈতিক তৎপরতা জোরদার করা হয়। তিনি বলেন, “আমি পরামর্শ দিয়েছি যে, যাতে পাকিস্তান শাসিত কাশ্মীর সরকার পি৫ দেশগুলোতে – সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমীরাত, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ইরান ও তুরস্কে অফিস খুলতে পারে, এবং জেনেভা এবং ব্রাসেলসে ইইউ সদর দপ্তরে এবং নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদরদপ্তরে দ‚তাবাস চালু করতে পারে”। “ভারতের ফ্যাসিবাদী পরিকল্পনা থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য আমাদের এই দেশগুলোতে কাজ করা উচিত। মোদি একবিংশ শতকের নতুন হিটলার”। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বুধবার ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লীর সহিংসতা নিয়ে ভারতের পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সমালোচনা করেন। এই সহিংসতায় অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে। খান বলেন, “আজ আমরা দেখছি ভারতে নাৎসিদের দ্বারা অনুপ্রাণিত আরএসএসের আদর্শধারীরা এক বিলিয়ন মানুষের পারমানবিক শক্তিধর দেশটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে”। তিনি বলেন, “যখনই ঘৃণার ভিত্তিতে কোন বর্ণবাদী আদর্শ ক্ষমতায় যায়, তখন সেখানে রক্তপাত ঘটে”। আল-জাজিরা, এসএএম।



 

Show all comments
  • Anupam Banerjee ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৫৪ এএম says : 7
    এই জন্যই পইপই করে বলি, মেয়াদ পেরোনো গাঁজা টানিস না !
    Total Reply(0) Reply
  • বিচিত্র বাহারী ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৫৪ এএম says : 1
    বাংলাদেশ-পাকিস্তানের উচিত একসাথে মালয়েশিয়ার উপর হামলা করা। কিন্তু দেশে ক্ষমতায় যে ওদের এজেন্ট! !!
    Total Reply(0) Reply
  • ওছমান গনি ফরহাদ ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৫৪ এএম says : 2
    অবশ্যই তা দ্রুত করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন