Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১০ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

তিতাস নদীর পাড় কাটা হচ্ছে দেদারসে

ইটভাটার ভেতরেই বিদ্যুতের জাতীয় গ্রিডের টাওয়ার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:০০ পিএম

ইটভাটার ভেতরেই বিদ্যুতের জাতীয় গ্রিডের টাওয়ার, গ্যাসের জাতীয় সঞ্চালন লাইন। শুধু তাই নয়, সরাইলের শাহবাজপুরে ইটভাটা মালিকদের যথেচ্ছার আরো আছে। ভেকু দিয়ে নদীর পাড় কেটে মাটি তুলছে ইট তৈরির জন্য। আবার কোন কোন অংশে দেদারসে নদী ভরাট করে চলছে ভাটা সম্প্রসারণ কাজ। পরিবেশের ছাড়পত্র ছাড়া দিব্যি চলছে এসব ইটভাটা। প্রশাসনের বিধিনিষেধেরও তোয়াক্কা নেই। প্রশাসন সীলগালা করে দিয়েছে সচল এমন ইটভাটাও। শাহবাজপুর মৌলভীবাজারের পশ্চিম পাশে তিতাস নদীরপাড়ে গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি ইটভাটা। এসব ইটভাটার মধ্যে মেসার্স আমিন এন্ড কোম্পানী, মেসার্স বলাকা এন্ড কোম্পানী এবং মেসার্স রানা এন্ড কোম্পানীর মালিক মোঃ মিজানুর রহমান। পরিবেশ অধিদপ্তর এবং সরাইল উপজেলা প্রশাসন সুত্র জানায়, ভাটাগুলোর মধ্যে আমিন এবং বলাকার পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন ছাড়পত্র নেই। আর কোন রকম কাগজপত্র বা অনুমতি ছাড়াই মিজানুর রহমান রানা নামে আরেকটি ভাটা চালাচ্ছেন। জানা গেছে, এরআগে মিজানুর রহমানের মেসার্স মিজান ব্রিকস এন্ড কোম্পানী নামের একটি ভাটা ছিলো। ২০১৭ সালে ছাড়পত্র না থাকায় এই ভাটাটিকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমান করা হয়। জরিমানা পরিশোধ না করে এখন রানা নামে নতুন ওই ভাটা চালু করা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের ট্রেড লাইসেন্স শুধু পুঁজি। সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ.এস.এম. মোসা জানিয়েছেন, অবৈধভাবে পরিচারিত দুটি ইটভাটার বিরুদ্ধেই তারা ব্যবস্থা নিয়েছেন। ২০১৯ সালের ৩০ ডিসেম্বর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ওই ভাটা মালিককে ১লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরবর্তীতে ১২ ফেব্রæয়ারী ভাটাটি সীলগালা করে দেয়া হয়। ২৪ ফেব্রæয়ারী সরজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, মিজানের মালিকানাধীন তিনটি ভাটা চালু অবস্থায় রয়েছে। এসব ভাটার মাঝখানে রয়েছে কয়েকটি জাতীয় গ্রীডের বিদ্যুতের টাওয়ার। গ্যাসের সঞ্চালন লাইন গেছে ভাটার ভেতর দিয়ে। নদী পাড়েরও সর্বনাশ করছেন এই ভাটা মালিকসহ আরো কয়েকটি ভাটার মালিক। মিজানুর রহমান বলেন, কোন ভাটারই সঠিক কাগজপত্র নেই। নদী দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে ভাটা মালিক বলেন, বিদ্যুতের টাওয়ার ও গ্যাসের লাইন তার জমির ভেতর দিয়েই গেছে। পাশের আমানত ব্রিকস ফিল্ডের মালিক নদীর পাড় ভেকু দিয়ে কেটে মাটি উঠাচ্ছেন। আবার নদী ভরাট করছেন তারা। সরাইল উপজেলার ৪৪টি ইটভাটার মধ্যে কয়েকটি চলছে বৈধভাবে। পরিবেশ অধিদপ্তরের তথ্যানুসারে ৮টি ছাড়া ৩৫টি ভাটাই অবৈধ ভাবে চলছে। কাগজপত্র ছাড়াই চলছে কালীকচ্ছের মেসার্স রিফান ব্রিকস, মেসার্স নিউ সফল ব্রিকস, মেসার্স আজম ব্রিকস, মেসার্স আজম ব্রীকস-২, মেসার্স ২২২ ব্রিকস, মেসার্স আর এস পি ব্রিকস, মেসার্স পিবিসি ব্রিকস, মেসার্স নিউ আশা ব্রিকস, মেসার্স রূপালী ব্রিকস এন্ড কোম্পানী, মেসার্স এইচ এম এস ব্রিকস, মেসার্স সানু মিয়া ব্রিকস, মেসার্স মঈন ব্রিকস, মেসার্স এশিয়া ব্রিকস, শাহবাজপুরের মেসার্স ইউনিয়ন ব্রিকস লিমিটেড, মেসার্স আমানত ব্রিকস(আহাদ), মেসার্স আমানত ব্রিকস-২, শাহবাজপুর বড়ধীতপুরের মেসার্স আমানত ব্রীকস, মেসার্স আমিন এন্ড কোম্পানী, মেসার্স মদিনা এন্ড কোম্পানী, রাজাবাড়িয়াকান্দির মেসার্স নিহাদ ব্রিকস, মেসার্স রয়েল ব্রিকস, মেসার্স সুবর্ন ব্রিকস, মেসার্স নিউ মায়ের দোয়া ব্রিকস, মেসার্স দেশ ব্রিক ফিল্ড, কুন্ডা লোপাড়ার মেসার্স মা বাবা ব্রিকস, শাখাইতি দেওবাড়িয়ার মেসার্স মেঘনা ব্রিকস, মেসার্স ভৈরব ব্রিকস, মেসার্স পিভিসি ব্রিকস, মলাইশের মেসার্স নিউ কল্যান ব্রিকস কোম্পানী লিমিটেড, নোয়াগাওয়ের মেসার্স এস আর ব্রিকস, মেসার্স এইচ এম এস ব্রিকস, মেসার্স সানু মিয়া ব্রিকস, দেওড়া নিয়ামতপুরের মেসার্স নিউ ফাইভ ষ্টার ব্রিকস, দেওড়ার মেসার্স জনপ্রিয় ব্রিকস, শাহজাদাপুরের মেসার্স নিউ সমতা ব্রিকস এন্ড কোম্পানী। ব্রাহ্মণবাড়িয়া পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো: নুরুল আমিন বলেন, শাহবাজপুরের ওই ইটাভাটাগুলো পরিদর্শন করেছি। নদীর পাড় দখলমুক্ত করতে বলা হয়েছে। তাছাড়া যেসব ইটভাটার কোন কাগজপত্র নেই সেগুলো অবৈধভাবে চলছে। তাদের বিরুদ্ধেও আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তিতাস নদী

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ