Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ শাবান ১৪৪১ হিজরী

দিল্লিতে প্রাণহানির জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যর্থতাকে দায়ী করলো শিবসেনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:৫৮ পিএম

শিবসেনার দলীয় মুখপত্র সামানা’তে শুক্রবার বিজেপির মন্ত্রীসভা, কেন্দ্রীয় সরকার এবং বিশেষভাবে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে। উল্লেখ করা হয়েছে, সহিংসতার সময় দিল্লিতে না থেকে মন্ত্রীসভার অর্ধেক সদস্যই ছিলেন আহমেদাবাদে। -এনডিটিভি, ইন্ডিয়া টুডে।
অমিত শাহকে কটাক্ষ করে ওই মুখপত্রে বলা হয়, সহিংসতার পরে হলেও দিল্লির রাস্তায় অজিত দোভালকে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তখন কোথায় ছিলেন? নির্বাচনের আগে প্রচারপত্র বিলি করার সময় তো তার সরব উপস্থিতি ছিল। অথচ সহিংসতার সময় তাকে কেনো দেখা যায়নি বলে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

অশান্তি ও দাঙ্গার আগুনে দিল্লি যখন জ্বলছিল, ঠিক সেসময় মোদী সরকারের মন্ত্রীরা আহমেদাবাদে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হাসিমুখে করমর্দন করছিলেন বলেও কটাক্ষ করেছে উদ্ধব ঠাকরের দলটি।

শিবসেনার দাবি, মোদী সরকারের উগ্র জাতীয়তাবাদ এবং সাম্প্রদায়িকতা ভারতকে ১০০ বছর পেছনে নিয়ে গেছে। মধ্যরাতে দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি এস মুরলীধরকে বদলির ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে মুখপত্রে বলা হয়েছে, পরিস্থিতি এতোটাই খারাপ পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, সত্য বলার কারণে আজকাল বিচারপতিদেরও শাস্তি দেয়া হচ্ছে।

কংগ্রেসকে ‘দূর্বল বিরোধী দল’ আখ্যা দিয়ে শিবসেনার অভিযোগ, বিজেপির সামনে শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তুলতে কংগ্রেস পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে।
দলীয় মুখপত্র সামানা’তে এ বিষয়ে আরও বলা হয়, এমন পরিস্থিতিতে যদি বিজেপি বিরোধী দলের ভূমিকায় থাকতো, তাহলে ঠিকই তারা দিল্লিকে অবরুদ্ধ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করতো। কিন্তু বিজেপি ক্ষমতায় থাকায় এবং বিরোধী দল দূর্বল হওয়াতে এক্ষেত্রে সেরকম কিছুই ঘটবে না।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২৭ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন