Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪১ হিজরী

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর অলিম্পিক গেমস পেছানোর শঙ্কা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০৪ এএম

অলিম্পিক গেমসকে বলা হয় ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’। চার বছর পর পর বৈশ্বিক এ আসর অনুষ্ঠিত হয়। এবারের আসর জাপানে আগামী জুলাই মাস থেকে শুরু হওয়ার কথা। আগামী ২৪ জুলাই টোকিওতে এর উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে। তবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর প্রথমবারের মতো পিছিয়ে যেতে পারে অলিম্পিকের আসর। তার কারণ করোনাভাইরাস। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস। সারা বিশ্বের ক্রীড়াঙ্গনে পড়েছে এর প্রভাব। অ্যাথলেটিকস, ফুটবল, ফর্ম‚লা-১ থেকে শুরু করে সব খেলাতে পড়েছে এর প্রভাব। ইতিমধ্যে ইতালি, স্পেনে বড় বড় লিগে ফুটবল খেলা স্থগিতের মতো ঘটনাও ঘটেছে।

তবে সবচেয়ে বড় দুশ্চিন্তা এখন আসন্ন অলিম্পিক গেমস নিয়ে। কারণ জাপানে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। ইতিমধ্যে দেশটিতে সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে চারজনের। যদিও এখন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ব্যাপক হারে বাড়ছে না। তবে খেলোয়াড়ের সুরক্ষার স্বার্থে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম নির্ধারিত সময়ে অলিম্পিক নাও হতে পারে।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির (আইওসি) সিনিয়র সদস্য ডিক পাউন্ড জাপানে গিয়ে বিষয়টি সম্পর্কে জানার চেষ্টা করেছেন। বাতিল হবে কি হবে না বা কি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তা নির্ধারিত সময়ের দুই মাস আহে জানা যাবে বলে জানিয়েছেন ডিক। তিনি বলেন, ‘যদি বাতিল করতে হয়, সেটা অবশ্যই দুই মাস আগে। কারণ অনেক কিছুর ব্যবস্থা করতে হয়। নিরাপত্তা, খাবার, অলিম্পিক ভিলেজ, হোটেল ও মিডিয়া কর্মীদের জন্য ব্যবস্থা নিতে হবে।’

তবে এখনই বাতিল বা অন্য সিদ্ধান্তে আসতে চাইছেন না ডিক। এখন পর্যন্ত জাপানে অলিম্পিক হবে ধরে নিয়ে অ্যাথলেটদের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন এ সিনিয়র কর্মকর্তা, ‘এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত, টোকিওতে অলিম্পিক হচ্ছে। তাই অ্যাথলেটদের প্রস্তুতি ঠিকমতো নিতে হবে। তবে একটা বিষয় নিশ্চিত, আইওসি আপনাদের কোনও আতঙ্কিত পরিস্থিতির মধ্যে ফেলবে না।’

তবে এ নিয়ে উদ্বিগ্ন প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়ার সাতারু ইয়ান থর্প। তিনি মনে করেন, অলিম্পিক স্বপ্ন ব্যাহত হবে যদি শরীর কোনো খারাপ অবস্থার মুখোমুখি হয়। পাঁচ বারের অলিম্পিক সোনাজয়ী থর্প বলেন, ‘আমি সত্যিই খুব উদ্বিগ্ন। আমাদের আরো সতর্কতার সঙ্গে এগুতে হবে।’
উল্লেখ্য, গত বছর চীনের উহান প্রদেশ থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় তিন হাজার, আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজার জন। এ ভাইরাসে চীন গত জানুয়ারিতে এশিয়ান ইনডোর অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপ বাতিল করে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন