Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

পুলিশের নিষ্ক্রিয়তায় জাতিসংঘের উদ্বেগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম

নয়াদিল্লিতে টানা চারদিন ধরে চলা প্রাণহানির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেট। ২৩ ফেব্রুয়ারি, মানবাধিকার বিষয়ক ৪৩তম অধিবেশনে তিনি বলেন, মুসলমানদের ওপর যখন হামলা চলে, তখন পুলিশের নিষ্ক্রীয়তা ও শান্তিপ‚র্ণ বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশের অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের ঘটনায় আমি উদ্বিগ্ন। গত বছর ৪২তম অধিবেশনেও জাতিসংঘ কমিশনার অধিকৃত কাশ্মিরে ভারতের দমন অভিযান নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে অঞ্চলটিকে নিজের সঙ্গে সংযুক্ত করার পর সেখানে সব রকম যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে দিলে এর কঠোর নিন্দা করেন জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা। তারা একে পুরো কাশ্মিরি জাতিকে সম্মিলিতভাবে শাস্তি প্রদান হিসেবে অভিহিত করেন। ব্যাচেলেট তার বক্তব্য শুরু করেন ভারতের ঘটনাবলী উল্লেখ করে। তিনি অধিকৃত কাশ্মিরের রাজনৈতিক নেতাদের দীর্ঘদিন ধরে আটক রাখার বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন নিয়েও কথা বলেন, যা ভারতীয় সমাজকে মেরুকরণের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। যার জের ধরে দিল্লিতে দাঙ্গা বাধে। মানবাধিকার কমিশনার বলেন, ভারত গত ডিসেম্বরে যে নাগরিকত্ব আইন করে তা সার্বিকভাবে ব্যাপক উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে। বিপুল সংখ্যক ভারতীয়, সব সম্প্রদায়, এই আইনের বিরুদ্ধে মূলত শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিলো। তারা দেশের দীর্ঘদিনের ঐহিত্য সেকুলারিজমের পক্ষে কথা বলেন। এদিকে দিল্লিতে মুসলমানদের বিরুদ্ধে দাঙ্গা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। গান্ধীর অহিংসার চেতনার কথা স্মরণ করে বৃহস্পতিবার দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় সাম্প্রতিক সম্প্রীতি ফিরিয়ে আনার আহবান জানান সংস্থাটির মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেস। তিনি বলেন, সারাজীবন গান্ধীর চেতনায় আমি গভীরভাবে অনুপ্রাণিত হয়েছি। কাজেই যে কোনো সময়ের চেয়ে আজ গান্ধীর অনুপ্রেরণা বেশি দরকার। আজ সত্যিকারের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ফিরিয়ে আনা দরকার বলেও মনে করেন জাতিসংঘ মহাসচিব। তিনি বলেন, গত কয়েক দিন ধরে আমি যে মৃত্যুর খবর শুনছি, তাতে ব্যথাহত। সংস্থাটির মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক বলেন, নয়াদিল্লির পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন গুতেরেস। শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অনুমতি দেয়া উচিত বলেই তিনি মনে করেন। এ ছাড়া নিরাপত্তা বাহিনীকে সংযমের পরিচয় দেয়ার আহবান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতিসংঘ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ