Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

ইলিশ রক্ষায় দুই মাস শিকার নিষিদ্ধ

ভোলা জেলা ও দৌলতখান উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার এলাকায় ১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার।
মেঘনা নদীর ইলিশা থেকে চরপিয়াল পর্যন্ত ৯০ কিলোমিটার এবং তেঁতুলিয়া নদীর ভেদুরিয়া থেকে চর রুস্তুম পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার এলাকায় এ নিষেধাজ্ঞা থাকবে। অভয়াশ্রম চলাকালে ইলিশসহ যেকোনো মাছ আহরণ, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ ও সরবরাহ নিষিদ্ধ থাকবে বলে জানায় মৎস বিভাগ।
জেলা মৎস বিভাগ আরো জানায়, জেলেদেরকে জাটকাসহ সকল ধরনের মাছ আহরণ থেকে বিরত থাকার জন্য ইতোমধ্যে সচেতনতামূলক সভা করা হয়েছে। নদী উপক‚লীয় এলাকায় মাইকিং করা, জেলে পাড়ায় লিফলেট বিতরণ ও আড়ৎগুলোতে ব্যনার সাঁটনো হয়েছে। আইন অমান্য করে কোনো জেলে জাটকা নিধন করলে তাদের বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
জেলার ৭০,৯৪৩টি নিবন্ধিত জেলে পরিবারের রয়েছে। এসব জেলেদের মাছধরা-নিষিদ্ধ সময়ে ৪০ কেজি করে এই ২ মাস ৫৬৭৫, ৪৪০ মে.টন চাল দেবে সরকার।
ভোলা সদর উপজেলার জেলে সিরাজ, ফারুক ও আব্দুর রহিম বলেন, মেঘনায় নিষিদ্ধ সময়ে যেই পরিমাণ চাল দেয়া হয়, তা দিয়ে সংসার চালানো কঠিন। তাই নিষিদ্ধ সময়ে চালের পাশাপাশি বিকল্প কর্মসংস্থান কিংবা আর্থিক সহায়তা দেয়া উচিত।
ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম আজহারুল ইসলাম বলেন, জেলেরা যাতে ইলিশ শিকার না করে সে জন্য প্রচার-প্রচারণা ও সচেতনা সভা করা হয়েছে। ২৯ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টার পর থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ বলে তিনি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইলিশ

১২ আগস্ট, ২০২০
৭ মার্চ, ২০২০
২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ