Inqilab Logo

বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ফরিদপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ ২ লক্ষ টাকা কাজের ব্যয় ৩০ লক্ষ টাকা দেখানোর চেষ্টা

প্রকাশের সময় : ১১ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা : ফরিদপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ ২ লক্ষ টাকা কাজের ব্যয় ৩০ লক্ষ টাকা দেখানোর চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফরিদপুর সদর কোতোয়ালী থানার ও চরভদ্রাসন থানার সীমান্তবর্তী এলাকা সাইনবোর্ড। সাম্প্রতিক পদ্মানদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের কাজের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কিছু এলাকা প্রকল্প কাজের অংশের নদীর পাড় দেবে যায় বর্ষা শুরুর পূর্বেই। এতে নদীর পাড়টি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কিন্তু পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা ইচ্ছাকৃতভাবে দেবে যাওয়া নদীর পাড়টুকু সংস্কার করেনি। সম্প্রতি বর্ষায় পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আবার নতুনভাবে ৫০-৬০ মিটার নদীর পাড় দেবে যায়। ওই সুযোগে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা একাধিক টিভি চ্যানেলকে দিয়ে ব্রেকিং নিউজ দেয়া হয়। ওই ব্রেকিং নিউজ করার কারণে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জরুরি ভিত্তিতে নদীর পাড় রক্ষার নির্দেশ প্রদান করেন। দুইদিন জিও ব্যাগ ও কিছু বøক নদীর পাড়ে পানিতে নিক্ষেপ করে এবং প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার ব্যয় দেখিয়ে এস্টিমেট তৈরি করে এবং টেন্ডার ছাড়াই লিটন মল্লিক নামে জনৈক এক ঠিকাদারকে দিয়ে নদীর পাড় সংরক্ষণ কাজটি করানো হয়। এলাকাবাসী জানান, আমরা দেখেছি দু’দিনে যে কাজ করানো হয়েছে তাতে এর ব্যয় প্রায় সর্বোচ্চ দুই লক্ষ মত। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাইনুদ্দিনের কাছে নদীর পাড় সংরক্ষণ ব্যয়ের খরচ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান, জিও ব্যাগ, বøক আমরা দিয়েছি। ঠিকাদার শুধু শ্রমিকদের বিল নিবে এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ লক্ষ টাকা। তিনি আরো বলেন, এখনও প্রকল্পের ব্যয় খরচের এস্টিম্টে তৈরি করা হয়নি, তবে কিছু কম-বেশী হতে পারে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক এক কর্মকর্তা জানান, সাইনবোর্ড এলাকার নদীর তীর সংরক্ষণ কাজের ব্যয় সর্বোচ্চ দুই লক্ষ টাকার বেশী হবে না। তার কারণ হচ্ছে, সমস্ত মালামাল পানি উন্নয়ন বোর্ড সরবরাহ করেছে, ঠিকাদার মাত্র লেবার দিয়ে নদীর পাড় মেরামত করেছে। এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত এসও জহিরুল হকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমি এখন ব্যস্ত আছি, আপনার সাথে পরে কথা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফরিদপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ