Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

হঠাৎ পথভ্রষ্ট লিভারপুল

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

দোর্দন্ড প্রতাপে মৌসুম শুরু করে মাঝপথ পেরোনো লিভারপুল হঠাৎ করেই যেন খেই হারিয়ে ফেলেছে। মৌসুমের গুরুত্বপ‚র্ণ সময়ে এসে মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখতে শুরু করেছে ইংলিশ ক্লাবটি। শেষ চার ম্যাচের মধ্যে হেরেছে তিনটিতেই। এবং প্রত্যেকটি হারের সঙ্গে হারিয়েছে কিছু অর্জনও।
চ্যাম্পিয়নস লিগে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে ‘অ্যাওয়ে’ ম্যাচে ১-০ গোলে হেরে পরের রাউন্ডে ওঠার সম্ভাবনাটা একটু হলেও কমিয়েছে তারা। কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হলে নিজেদের মাঠে অন্তত দুই গোলের ব্যবধান বজায় রেখে জিততে হবে তাদের। পরের হারটা আরেকটু বেদনার। লিগে দুর্বল ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে হেরেছে ৪৪ ম্যাচ পর। ফলে গোটা লিগ মৌসুমে অপরাজিত থাকার স্বপ্ন শেষ। গতপরশু রাতে চেলসির কাছে ২-০ গোলে হেরে এফএ কাপ থেকে বিদায় নিয়েছে লিভারপুল, জলাঞ্জলি দিতে হয়েছে ‘ট্রেবল’ জয়ের স্বপ্ন। গত ডিসেম্বরে লিগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয়া দলটির সামনে এখনও বড় দুটি শিরোপার হাতছানি।
মূল দলের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে বেঞ্চে রেখে এদিন দল সাজিয়েছিলেন লিভারপুলের কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ। আক্রমণভাগে বিখ্যাত ‘ত্রয়ী’র মধ্যে মাঠে ছিলেন শুধুই সাদিও মানে। মোহাম্মদ সালাহ ও রবার্তো ফিরমিনোকে মূল একাদশে রাখা হয়নি। চোটের কারণে ছিলেন না দলের অধিনায়ক জর্ডান হেন্ডারসন। বিশ্রামে রাখা হয়েছিল মিডফিল্ডার জর্জিনিও ভাইনালদাম, গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার ও রাইটব্যাক ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ডকে। স্কোয়াডের যেসব খেলোয়াড় ম‚ল একাদশে বলতে গেলে সুযোগ পান না সেই কার্টিস জোন্স, অ্যাডাম লালানা, ডিভক অরিগি, তাকুমি মিনামিনো, আদ্রিয়ান, নিকো উইলিয়ামসদের নিয়ে দল সাজিয়েছিলেন ক্লপ। নিজের বহুল চর্চিত ৪-৩-৩ ছক থেকে সরেও এসেছিলেন, দলকে খেলিয়েছেন ৪-৩-১-২ ছকে।
তবে চেলসি দলে এত পরিবর্তন ছিল না। এ মৌসুমে এফএ কাপ জেতারই বাস্তব সম্ভাবনা আছে তাদের সামনে, এই ভেবেই কী না বেশ শক্তিশালী দল সাজিয়েছিলেন কোচ ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড। দলে আনকোরা মুখ বলতে ছিলেন শুধু মিডফিল্ডার ব্যারি গিলমোর। কিন্তু এই আনকোরা মুখই ম্যাচ শেষে পাদপ্রদীপের আলোয়। হয়েছেন ম্যাচ সেরা। আর তাতেই এফএ কাপের শেষ আটে পৌঁছে গেছে চেলসি।
ম্যাচের ১৩ মিনিটেই উইলিয়ানের গোলে এগিয়ে যায় ‘ব্লুজ’রা। উইলিয়ানের গোলার মতো শট আটকাতে পারেননি লিভারপুলের স্প্যানিশ গোলরক্ষক আদ্রিয়ান। তার হাতে লেগে জালে ঢুকে যায় বল। লিভারপুল যে আক্রমণ করেনি, তা নয়। তবে চীনের প্রাচীর হয়ে ছিলেন চেলসির গোলরক্ষক কেপা। ৬৪ মিনিটে ইংলিশ মিডফিল্ডার রস বার্কলির দ‚রপাল্লার শটে আরেকবার পরাস্ত হন আদ্রিয়ান। মেসন মাউন্ট ও স্ট্রাইকার অলিভিয়ের জিরুর দুটো শটও বারে লেগে ফিরে আসে, না হয় পরাজয়ের ব্যবধানটা আরও বেশি হতে পারত।
গত ডিসেম্বরে লিগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয়া লিভারপুলের সামনে এখন বড় দুটি শিরোপার হাতছানি। ২২ পয়েন্টে এগিয়ে লিগ শিরোপার পথে অন্যদের ধরাছোঁয়ার প্রায় বাইরে রয়েছে তারা। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টিকে থাকতে দ্বিতীয় লেগে অন্তত দুই গোলের ব্যবধান রেখে জিততে হবে।
সে না হয় হলো। তবে এই চারটি ম্যাচে তারা হজম করেছে মোগ আট গোলে। হেরেছে প্রতিপক্ষের মাঠে সবশেষ তিন ম্যাচে। তবে এসব নিয়েও উদ্বিগ্ন হতে রাজি নন ক্লপ, ‘দেখুন, লম্বা সময় ধরে আমরা সঠিক পথে ছিলাম কারণ আমরা রক্ষণে খুব ভালো করছিলাম। প্রতিপক্ষ দলগুলো সাধারণত আমাদের বিপক্ষে খুব বেশি সুযোগ পায় না। আমাদের স্বীকার করতে হবে যে, সবশেষ তিন ম্যাচে আমরা অনেকগুলো গোল খেয়েছি, এটি সত্যি। ওয়াটফোর্ড ম্যাচের চেয়ে এদিনেরটা পুরোপুরি আলাদা।... আমি দলের বর্তমান অবস্থা নিয়ে চিন্তিত নই।’
শুধু চিন্তার কথাই নয়, ম্যাচ শেষে খেলোয়াড়দের দুষতেও রাজি হননি অভিজ্ঞ এই জার্মান, ‘এই তিন সপ্তাহ যে খুব ভালো কেটেছে তা বলব না। তবে আমাদের আরও উন্নতি করতে হবে। আর সে উন্নতির শুরুটা আমরা আগামী শনিবার থেকেই করতে চাই।’ যেদিন লিগের ম্যাচে বোর্নমাউথের মুখোমুখি হবে ২২ পয়েন্ট এগিয়ে লিগের শীর্ষস্থানে থাকা লিভারপুল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লিভারপুল


আরও
আরও পড়ুন