Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মংলায় করোনাভাইরাসে ৩ বিদেশীর মৃত্যুর ‘গুজব’

শহর জুড়ে আতঙ্ক

মংলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ মার্চ, ২০২০, ৪:২৪ পিএম

মংলা বন্দরে আসা একটি বিদেশী জাহাজের ৩ ফিলিপাইন নাবিকের করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে এমন গুজব বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দাবা নলেরমত ছড়িয়ে পড়েছে মংলা শহর জুড়ে। আসল ঘটনা ৩ ফিলিপাইন নাবিক করোনা ভাইরাসে আক্রন্ত হয়ে থাকতে পারেন বলে করোনা সনাক্ত মেডিকেল টিমের এমন সন্দেহের পর এ গুজব ছড়িয়ে পড়ে।
খবর নিয়ে জানা যায় ‘ বুধবার রাতে চট্টগ্রাম হয়ে ২৪ হাজার মেট্টিক টন কয়লা নিয়ে মার্সাল আইল্যান্ড পতাকাবাহী জাহাজ ‘এমভি সেরেনি টাস-এন’ মংলা বন্দরের হারবারিয়া এলাকার আলফা-৩ এ নোঙ্গর করে। এরপর নিয়ম অনুযায়ী জাহাজটিতে করোনা সনাক্ত মেডিকেল টিম জাহাজটিতে প্রবেশ করে। এসময় মেডিকেল টিম ৩ ফিলিপাইন নাবিকের শরীরে তাপমাত্র ১শ ডিগ্রীর উপরে সনাক্ত করে। এটিকে মেডিকেল টিম করোনার প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে সনাক্ত করলে পুরো জাহাজ জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এরপর এ আতঙ্ক রুপ নেয় মৃত্যুর ‘গুজবে’। জাহাজটির মংলার স্টিভিডরস্ গ্রীন এন্টার প্রাইজ ও স্থানীয় শিপিং এজেন্ট ইউনিক মেরিটাইম লিমিটেড।
গ্রীন এন্টার প্রাইজের সুপারভাইজার মো. মাহফুজুর রহমান বলেন‘ বৃহস্পতিবার সকালে পুনরায় মেডিকেল টিম ওই জাহাজে প্রবেশ করেছে ।ইতোমধ্যে ৩ ফিলিপাইনের মধ্যে দুজনের শরীরের তাপমাত্রা কমে স্বাভাবিক অবস্থায় এসেছে।
তিনি মেডিকেল টিমের বরাত দিয়ে আরো বলেন, করোনায় আক্রান্ত সন্দেহ ভাজন বিদেশী ৩ নাবিকের গায়ের তাপমাত্রা বৃদ্ধি ছাড়া করোনায় আক্রান্ত হওয়ার অন্য কোন উপসর্গ পাওয়া যায়নি। অথচ পুরো মংলা জুড়ে মৃত্যুর গুজব ছড়িয়েছে।

মংলা বন্দরের হারবার মাস্টার কমান্ডার ফকর উদ্দিন জানান, করোনা ভাইরাস আতঙ্কে মংলা বন্দরের অবস্থানরত ওই বিদেশি জাহাজের কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মার্শাল আইল্যান্ড পতাকাবাহী ‘এম ভি সেরেনি টাস-এন’ জাহাজের কাজ বন্ধ রাখা হয়। তিনি আরও জানান, বুধবার ইন্দোনেশিয়া থেকে ২৪ হাজার মে. টন কয়লা নিয়ে মংলা বন্দরে আসে ‘এম ভি সেরেনি টাস-এন’ জাহাজ। ওই জাহাজের ৩ জন নাবিক হঠাৎ জ্বরে আক্রান্ত হলে তাদের পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হলে তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়নি বলে জানান বন্দরের ওই পদস্থ কর্মকর্তা। জাহাজের ওই তিন ক্রু ফিলিপাইনের নাগরিক বলে জানা গেছে। যেহেতেু করোনা ভাইরাস আতঙ্ক দেখা দিয়েছে সে ক্ষেত্রে ওই জাহাজ থেকে সব শ্রমিক নামিয়ে এনে আমরা জাহাজের সব প্রকার কার্যক্রম বন্ধ রেখেছি। পরিবেশ স্বাভাবিক হলে জাহাজের কাজ আবার শুর হবে।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পোর্ট হেলথ কর্মকর্তা ডা. সুফিয়া খাতুন বলেন, মার্শাল আইল্যান্ড পতাকাবাহী ‘এম ভি সেরেনি টাস-এন’ জাহাজের ৩ জন ফিলিপাইনের নাগরিক জ্বরে আক্রান্ত হলে আমরা তাদের পরীক্ষা করি। এসময় তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়নি বলে জানান তিনি। এদের মধ্যে আবার দু’জনের জ্বর ভাল হয়ে গেছে এবং একজনের শরীরে ৯৯ দশমিক ৭৭ ডিগ্রি জ্বর রয়েছে। যা খুবই স্বাভাবিক। আতঙ্কের কিছু নাই বলেও জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের এই পোর্ট হেলথ কর্মকর্তা। ডা. সুফিয়া আরও বলেন, এই একজনকে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। ওই জাহাজে ২০ জন বিদেশি নাবিক রয়েছেন বলে জানা গেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২৮ জানুয়ারি, ২০২১
২৮ জানুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ