Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

নিরপেক্ষ ভেন্যুতে সিরিজ আয়োজনের কথা ভাবছে না বিসিবি

প্রকাশের সময় : ১১ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : গুলশানের হলি আর্টিজানে সশস্ত্র জঙ্গি হামলায় ২০ বিদেশীর প্রাণহানির ঘটনায় উদ্বিগ্ন ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলশ ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) বাংলাদেশ সফর নিয়ে ভাবছে, ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিসের সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে তারা। এ খবর ক’দিন আগের। আগামী অক্টোবরে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর নিয়ে আরো উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন দলটির ওয়ানডে অধিনায়ক মরগান। বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ঘটনাবলীতে উদ্বিগ্ন মরগান নিরপেক্ষ ভেন্যুতে সিরিজটি স্থানান্তরের বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছেন সম্প্রতি। তবে ইসিবি’র গ্রিন সিগন্যাল পেয়ে সম্প্রতি পূর্ণাঙ্গ সফরসূচী চূড়ান্ত হবার পর মরগানের এমন প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে বিসিবি। বাংলাদেশের মাটিতে পূর্বনির্ধারিত সফর বাতিল হওয়ার ঘটনা আছে। তবে কোন দেশের অধিনায়কের মুখ থেকে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলার বিকল্প প্রস্তাব এবারই প্রথম শুনতে হয়েছে বিসিবিকে। মরগানের এমন প্রস্তাবে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন তাই বিসিবি সিইও। ক্রিকইনফোকে দেয়া সাক্ষাতকারে বিসিবি সিইও নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন এই সিরিজটি বাংলাদেশে আয়োজনে সকল চেষ্টা বিসিবি চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেনÑ‘এটা কখনো সমাধান হতে পারে বলে বিশ্বাস করি না। এ দেশের ক্রিকেট কখনো থেমে যেতে পারে না। আমরা প্রতিশ্রæত এফটিপির জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করব। বিসিবি এবং ইসিবি’র ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগ আগামী অক্টোবরে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছে। সিরিজ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো, বিশেষ করে লজিস্টিকস ব্যাপার নিয়ে আলাপ-আলোচনা হচ্ছে।’
বাংলাদেশ সফর নিয়ে উদ্বিগ্ন মরগান নিরাপত্তা প্রতিনিধি দলের রিপোর্টের দিকে আছেন তাকিয়ে। তাদের রিপোর্টের পর ক্রিকেটারদের মতামত ও গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করবে ইসিবি, সে কথাও করেছেন উল্লেখ মরগান। আগামী অক্টোবরে বাংলাদেশ সফর শেষে নভেম্বর-ডিসেম্বরে ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে ভারত সফর করার কথা ইংল্যান্ডের। পর পর ২ প্রতিবেশি দেশে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল সফর করবে বলে ওই সফরকে সামনে রেখে ইসিবি’র নিরাপত্তা প্রতিনিধি দলের বাংলাদেশের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণে আসবে বলে জানিয়েছেন বিসিবি সিইওÑ‘ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার মতো দলগুলো যখন কোন দেশ সফর করে, সেই সফরকে সামনে রেখে নিরাপত্তা প্রতিনিধি পাঠাবে তারা, এটাই স্বাভাবিক। গত মাসেই ইংল্যান্ড থেকে নিরাপত্তা প্রতিনিধি দলের বাংলাদেশ সফর করার কথা ছিল। তবে যেহেতু বাংলাদেশ সফরের পর ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল ভারত সফর করবে, তাই তারা এক সঙ্গে দু’টি দেশে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক করবে বলে ধারণা করছি।’
অস্ট্রেলিয়া নাগরিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার শঙ্কায় গত বছরের অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার ডিপার্টমেন্ট অব ফরেন অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড ট্যুরিজমের এক সতর্কবার্তায় এফটিপিতে থাকা পূর্বনির্ধারিত সফর বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আশ্বাসেও অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে আনা যায়নি বাংলাদেশে। নিরাপত্তা শঙ্কার অজুহাতে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেও দল পাঠায়নি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার দেখাদেখি দ. আফ্রিকা নারী দলের পূর্বনির্ধারিত বাংলাদেশ সফরও হয়েছে বাতিল। দ্বি-পাক্ষিক আলোচনায় সফরসূচী পরিবর্তন করেও লাভ হয়নি। গুলশানে সশস্ত্র জঙ্গি হামলার পর শোলাকিয়ায় ঈদুল ফিতরের দিনে আর একটি জঙ্গি হামলায় হতাহতের ঘটনা ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরকে করেছে উদ্বিগ্ন।
তবে ক্রিকেটের সবচেয়ে নিরাপদ ভেন্যু বাংলাদেশÑআইসিসি’র পর পর ২টি মেগা ইভেন্ট সফলভাবে আয়োজনে প্রকারান্তরে সেটাই জানিয়ে দিয়েছে বিসিবি। ২০১৪ সালে নির্বাচন উত্তর সহিংসতার পরও টি-২০ বিশ্বকাপ সফলভাবে বিসিবি আয়োজন করায় এবং পূর্ণ নিরাপত্তায় এ বছরের জানুয়ারী-ফেব্রæয়ারীতে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে সেরা আয়োজনের স্বীকৃতি বিসিবি পাওয়ায় নির্ধারিত সময়েই ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে আশাবাদী বিসিবি সিইওÑ‘নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে বিভিন্ন পর্যায়ে আলোচনা হয়েছে আইসিসিতে। নিরাপত্তা প্রটোকল নিয়ে সেখানে আলোচনা হয়েছে। আইসিসি থেকে খুব শীঘ্রই এ ব্যাপারে একটা নির্দেশনা অসবে। সরকারের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় সফলভাবে আন্তর্জাতিক ইভেন্ট আয়োজনের অতীত রেকর্ড আছে আমাদের। ভবিষ্যতেও এ দেশে ক্রিকেট আয়োজনে একই ধরনের সহযোগিতা পাব বলে বিশ্বাস করছি।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিরপেক্ষ ভেন্যুতে সিরিজ আয়োজনের কথা ভাবছে না বিসিবি
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ