Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১১ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

রবীন্দ্রভারতীর ভিসিকে কাজ চালিয়ে যেতে বললেন শিক্ষামন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ মার্চ, ২০২০, ৭:১৩ পিএম

পিঠে ‘অশ্লীল’ শব্দ লিখে রবীন্দ্রভারতীতে বসন্ত উৎসবে তরুণ-তরুণীদের যোগ দেওয়াকে ঘিরে তোলপাড় গোটা পশ্চিমবঙ্গ। ইস্তফা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী। এই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই দাঁড়ালেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শনিবার সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ভিসিকে বলেছি, কাজ চালিয়ে যেতে। তিনিও তাতে সম্মত হয়েছেন বলে দাবি শিক্ষামন্ত্রীর। তবে এই ঘটনার নিন্দাও করেছেন শিক্ষামন্ত্রী। -আনন্দবাজারইস্তফার কারণ হিসেবে ভিসিকে বলেছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে যে ঘটনা ঘটেছে, তাতে তিনি অপমানিত বোধ করেছেন। সেই নৈতিকতার দায় নিয়েই তিনি ইস্তফা দিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষামন্ত্রী এ দিন বলেন, এটা সমাজের একটা ব্যাধি। আমি বলেছি, তার দায় আপনি কেন নিতে যাবেন? আমি তাঁকে কাজ চালিয়ে যেতে বলেছি। উনিও বলেছেন, কাজ চালিয়ে যাবেন।অভিযুক্তরা ইতিমধ্যেই চিহ্নিত হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও পুলিশকে ঘটনার কথা জানিয়েছেন। প্রশ্ন উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকা নিয়েও। কেন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ও নজরদারি ছিল না, অথবা নজরে আসার পরেও গুরুত্ব দেওয়া হয়নি, এমন প্রশ্নও উঠেছে। শিক্ষামন্ত্রীর মতে বিশ্ববিদ্যালয় ঠিক কাজই করেছে। কর্তৃপক্ষের যা করণীয় সেটাই করেছে।যাঁরা এই ঘটনা ঘটিয়েছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে সমাজের নানা মহল থেকে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কিন্তু পার্থ চট্টোপাধ্যায় এ দিন বলেন, আমি খুব পরিষ্কার ভাষায় বলি, এটা একটা রোগ। আমরা দলমত নির্বিশেষে সমাজকে সচেতন করব। আমাদের নতুন প্রজন্মের মধ্যে প্রচার করা হবে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ধরনের প্রচার করে সমাজের যে কতটা ক্ষতি হচ্ছে, সেটা তাঁদের বোঝা উচিত।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শিক্ষামন্ত্রী

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ