Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৭ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

তিন শিক্ষককে শোকজ

ইবি সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৯ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

শিক্ষকের স্বাক্ষর নকল ও তথ্য গোপন করে নিয়োগ বোর্ডে অংশ নেওয়ার অভিযোগে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) বিভিন্ন বিভাগের তিন শিক্ষককে শোকজ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা যায়, ২০১৮ সালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ বোর্ডে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের টুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজম্যান্ট বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মাহবুবুল আরফিন সদস্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এতে তার নিজ ভাইকে নিয়োগ দিতে তথ্য গোপনের অভিযোগ ওঠে এ শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এরপর ওই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিষয়টি গর্হিত অন্যায় ও নৈতিকতা বিরোধী কাজ উল্লেখ করে তাকে নিয়োগ বোর্ড থেকে অব্যহতি ও সকল কার্যক্রমে অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে কালো তালিকার্ভূক্ত শিক্ষক হিসেবে উল্লেখ করে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে উল্লেখ করে আগামী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে এ ধরণের আচরণে যথাযথ ব্যাখ্যা প্রদান করতে বলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এদিকে বঙ্গবন্ধু পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন শিক্ষক। এতে ইবির বর্তমান ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীকে আপাদমস্তক অনিয়ম, দূর্নীতি, স্বজনপ্রীতি ও সেচ্ছাচারিতায় নিমজ্জিত এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের নির্বাচিত কমিটির সদস্যদেরকে কর্মসূচি বাস্তবায়নকারী উল্লেখ করেন তারা। গত ৬ মার্চ অভিযোগ পত্রে আইসিটি বিভাগের প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমানের স্থলে ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. মিজানুর রহমান ও টুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মাহবুবুল আরফিনের স্থলে বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক স্বাক্ষর করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শিক্ষক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ