Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

অবসরে আপিল বিভাগের বিচারপতি জিনাত আরা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম

চার দশকের বিচারিক জীবনের অবসান ঘটিয়ে অবসরে গেলেন আপিল বিভাগের বিচারপতি জিনাত আরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ছিলো তার শেষ কর্মদিবস। তিনি ছিলেন আপিল বিভাগের একমাত্র নারী বিচারপতি। শেষ কর্মদিবস হিসেবে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এবং এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম তাকে বিদায় সম্ভাষণ জানান। এসময় প্রধান বিচারপতিসহ আপিল বিভাগের সকল বিচারপতি ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সিনিয়র আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিদায় সম্ভাষণে নিজ অনুভুতি ব্যক্ত করে বিচারপতি জিনাত আরা বলেন, আমার চার দশকের বিচারিক জীবনে সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে থেকে বিচারপ্রার্থীদের ন্যায়বিচার দিতে সচেষ্ট থেকেছি। দীর্ঘ এই পথচলায় আইনজীবী আদালত সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা পেয়েছি। আজ তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আমার বাবা একজন বিচারক ছিলেন। একসময় তিনি সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্টার হন। আমার বাবার স্বপ্ন ছিল যে, আমি একদিন যেন হাইকোর্টের বিচারপতি হই। তবে ব্যক্তি জীবনে একটা দু:খের বিষয় হচ্ছে যে, আমার বাবা আমার বিচারপতি হওয়াটা দেখে যেতে পারেননি। আমি হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে শপথ নেয়ার তিন মাস আগে বাবা মারা যান। বিচারপতি জিনাত আরা আরও বলেন, কয়েক মাস আগে থেকেই মনে হচ্ছিল যে, অবসরে গেলে হয়ত একটা মুক্তি মিলবে। তবে এটা সত্য যে, আজ বিচারিক জীবনের শেষ কর্মদিবসে এসে নিজের মাঝে একটা বিষন্নতা কাজ করছে। আপনারা ভালো থাকবেন। আমার জন্য দোয়া করবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৫৩ সালের ১৫ মার্চ বিচারপতির জিনাত আরার জন্ম। তার বাবা এইচ এম আর সিদ্দিকী । মায়ের নাম বেগম আয়শা সিদ্দিকী। জিনাত আরা বিএসসি ও এলএলবি পাসের পর ১৯৭৮ সালের ৩ নভেম্বর বিচার বিভাগে মুনসেফ হিসেবে যোগদান করেন। ১৯৯৫ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর তিনি জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে পদোন্নতি পান। এরপর ২০০৩ সালের ২৭ এপ্রিল তিনি অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে হাইকোর্টে নিয়োগ পান। আর ২০০৫ সালের ২৭ এপ্রিল তিনি হাইকোর্টের স্থায়ী বিচারপতি হন। ২০১৮ সালের ৯ অক্টোবর জিনাত আরা সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। বিচারপতি জিনাত আরা আপিল বিভাগের দ্বিতীয় নারী বিচারপতি। এর আগে প্রথম আপিল বিভাগের বিচারপতি থেকে অবসরে যান বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিচারপতি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ