Inqilab Logo

শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

কোয়ারেন্টাইনে দেড় হাজার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ মার্চ, ২০২০, ১২:০০ এএম

বিশ্বে করোনাভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করায় প্রবাসীদের দেশে ফিরে আসার সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। বিদেশ ফেরত ও তাদের পরিবারের সদস্যদের সতর্কতাম‚লক ব্যবস্থা হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হচ্ছে। গত কয়েকদিনে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে দেড় হাজার প্রবাসী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা। তবে এখনো তাদের কারো শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সবাইকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বরিশাল ব্যুরো জানায়, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দক্ষিণাঞ্চলের ৪টি জেলায় বিদেশ ফেরত ২১ জনকে তাদের নিজ নিজ ঘরে নিবিড় পর্যবেক্ষণসহ সম্পূর্ণ আলাদা করে রাখা হয়েছে। এসব প্রবাসী বাংলাদেশী দীর্ঘদিন ধরে ইতালী ও সিংগাপুরসহ কয়েকটি দেশে কর্মরত ছিলেন।

বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, বরিশালে ১০জন ছাড়াও পটুয়াখালী ও ঝালকাঠিতে ৫ জন করে এবং ভোলাতে ১জন সদ্য বিদেশ ফেরত প্রবাসীকে তাদের নিজেদের ঘরে সম্পূর্ণ আলাদাভাবে নিবিড় পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের উúজেলা পর্যায়ের চিকিৎসক ছাড়াও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সহকারীরা এসব সদ্য বিদেশ ফেরত প্রবাসির বিষয়টি সার্বক্ষনিক মিনটরিং করছেন বলে বিভাগীয় পরিচালক ডা. বাসুদেব সাহা জানিয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা জানান, ইতালি থেকে আসা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের তিন যুবককে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে তাঁদেরকে হোম কোয়াইরেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়ে নিয়মিত খোঁজ রাখা হচ্ছে। তবে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ৩০-৪০ বছর বয়সি ওই ব্যক্তিদের নাম প্রকাশ হয় নি।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিদেশফেরত ব্যক্তিসহ ২২ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে মহেশপুরে পাঁচজন, কালীগঞ্জে একই পরিবারের ১২ জন এবং সদর উপজেলায় পাঁচজন রয়েছেন। এদের মধ্যে ইতালি, ভারত এবং আমেরিকা ফেরত কয়েকজন রয়েছেন। বিদেশফেরত ও তাদের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হলেও ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নেয়া হয়নি কোনো সতর্কতাম‚লক ব্যবস্থা। হাঁচি-কাশি কিংবা জ্বর-ঠান্ডার রোগীদের জন্য নেই আলাদা ব্যবস্থা। এসব রোগীরা কোথায় চিকিৎসা নিবে তার জন্যও নেই হেল্প ডেস্ক।

রাঙামাটি : করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে রাঙামাটি জেলা শহরে বিদেশ থেকে আসা প্রবাসী এক নারীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। গতকাল বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করে রাঙামাটি স্বাস্থ্য বিভাগ।

নেত্রকোনা : করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সর্তকর্তায় নেত্রকোনার চারজন প্রবাসী গত বুধবার থেকে নিজ নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন চীন থেকে এবং বাকি তিনজন ইতালী থেকে এসেছেন। ওই চারজনের মধ্যে দু’জনের বাড়ি নেত্রকোনা সদর উপজেলায়। অপর দু’জনের বাড়ি কলমাকান্দা ও দুর্গাপুরে। সিভিল সার্জন ডা. তাজুল ইসলাম খান গতকাল জানান, চারজনই বর্তমানে সুস্থ্য। তাদের কারো করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেয়নি।

কুমিল্লা : কুমিল্লায় বিদেশ ফেরত ৭৮ জনকে গতকাল নতুন করে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এর আগে ১৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল। বর্তমানে কুমিল্লায় হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন মোট ৯২ জন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান।

তিনি বলেন, করোনা পজিটিভ রোগীর সংস্পর্শে আসার কারণে তাদের মধ্যে যদি সর্দি, কাশি, বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, পাতলা পায়খানাসহ শরীরে কোনও সমস্যা দেখা দেয় তবে টেলিফোনে সংশ্লিষ্ট ডাক্তার বা সিভিল সার্জনকে জানাবেন।

ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহে বিভিন্ন উপজেলায় করোনাভাইরাস সন্দেহে বিদেশফেরত আট প্রবাসীকে হোম কোয়ারেনটাইনে রাখা হয়েছে। গতকাল বিষয়টি জানান ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন ডা. এবিএম মশিউর আলম। তিনি বলেন, ওই আটজনই পুরোপুরি সুস্থ আছেন। তারপরেও বাড়তি সতর্কতার জন্য তাদের স্বাস্থ্য বিভাগের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় বিদেশফেরত ৯১ জনকে করোনাভাইরাস সতর্কতার অংশ হিসেবে ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজন স¤প্রতি ইতালি থেকে ফিরলেও অধিকাংশই ভারত থেকে ফিরেছেন।
গত তিন দিনে ৯১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে, যাদের মধ্যে ১৬ জন ভারতীয় বলে জানা গেছে। বাকি ৭৫ জন বাংলাদেশি যাদের বেশিরভাগ ভারত থেকে ফিরেছেন। তবে তাদের মধ্যে কয়েকজন ইতালি থেকে ফিরেছেন।

শরীয়তপুর : ইতালিতে করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করায় নানা শঙ্কা আর দুশ্চিন্তায় দিন কাটাচ্ছেন শরীয়তপুরের ইতালি প্রবাসীদের পরিবারের সদস্যরা। ইতালি থেকে স¤প্রতি দেশে ফেরা স্বজনদের নিয়েও বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ছেন অনেকেই। স¤প্রতি ইতালি থেকে শরীয়তপুরে ফিরে আসা ১শ ৯২ জন প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার কথা জানিয়েছেন শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মনির হোসেন।

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জে বিদেশফেরত আরও ৫২ জনকে ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে; রাখা হয়েছে। এ নিয়ে গত পাঁচ দিনে মানিকগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় বিদেশফেরত ২২১ জনকে ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ রাখা হয়েছে। গতকাল নতুন করে ৫২ জনকে পর্যবেক্ষণের জন্য চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ না থাকলেও বিদেশ থেকে আসায় তাদের নিজ নিজ বাড়িতে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। জেলা সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আখন্দ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২৮ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ