Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৪ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

‘নদীতে ময়লা-আবর্জনা ফেলা যাবে না’

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, নদীতে কোনভাবেই ময়লা আবর্জনা ফেলা যাবেনা। নদীর তীর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। নদীতে যেন পানির প্রবাহ থাকে সে বিষয়ে সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে। নদী তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদকৃত জায়গা বিআইডব্লিউটিএ’র দখলে আছে। এখন নদীতে ময়লা-আবর্জনা ফেলা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। ময়লা-আবর্জনার কারণে নদীগুলোর প্রবাহ বন্ধ বা ভাগাড় হলে বসবাসের অনুপযোগি হয়ে পড়বে।

গতকাল রোববার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে টঙ্গি এলাকায় তুরাগ নদীর রেলওয়ে ও সড়ক সেতুর নীচে এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় নদীর তীর হতে অবৈধ স্থাপনাদি উচ্ছেদ, নদীতে আবর্জনা ফেলা বন্ধ, নদীর পানি দূষণরোধ ও পানি প্রবাহে সৃষ্ট প্রতিবন্ধকতা দূর করা সংক্রান্ত বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, টঙ্গী এলাকায় তুরাগ নদীতে ময়লা-আবর্জনা ফেলা বন্ধে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃক ড্রেনের মুখে (নদীর তীর অংশে) নির্মিত নেটের ভিতরের পলিথিন বর্জ্য পরিস্কার এবং ড্রেনগুলো কাভার্ড (ঢেকে রাখা)-এর ব্যবস্থা করতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, নদী তীরের অবৈধ স্থাপনা অপসারণে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা ছিল, সেটি অব্যাহত রাখতে হবে। নদী তীরের সীমানা পিলার এখন দৃশ্যমান। নদী তীর রক্ষা, দখল ও দ‚ষণরোধে প্রকল্পের কাজ চলছে। নদীর পানি দূষণরোধে বিআইডব্লিউটিএ ঢাকায় বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে ময়লা পানি পরিস্কারের জন্য দূষিত পানি ফিল্টারিং করা পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করেছে। পর্যায়ক্রমে এর কার্যক্রম আরো বাড়ানো হবে। নদীর পানি দূষণরোধে ও দখলমুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ি একসাথে এবং এক ছাতার নীচে কাজ করব।

বৈঠকে জানানো হয়, টঙ্গি এলাকায় নতুন রেলওয়ে সেতু এবং সড়ক সেতু নির্মাণের জন্য পিলার স্থাপনের লক্ষ্যে মাটি উত্তোলন পূর্বক মাটির স্তুপ দ্রুত সরানোর গুরুত্বারোপ করা হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয় যে, বাজারে পলিথিনের ব্যবহার ও বাজারজাতরোধ এবং শিল্প প্রতিষ্ঠানের দূষিত পানি পরিস্কারের জন্য যন্ত্রপাতি চালু রাখার বিষয়ে পরিবেশ অধিদফতর এবং জেলা ও পুলিশ প্রশাসন যৌথভাবে কাজ করবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো,জাহাঙ্গীর আলম, নৌপরিবহন সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্উদ্দিন চৌধুরী, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, পরিবেশ অধিদফতরের ড. এ কে এম রফিক আহাম্মদসহ সংশ্লিষ্টরা কর্মকর্তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নদী


আরও
আরও পড়ুন