Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৯ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট চান বাইডেন

উত্তেজনাপূর্ণ বিতর্কে এক অপরের অতীত কর্মকান্ড তুলে ধরেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম

প্রায় নয় মাস আগে প্রাইমারি নির্বাচন মৌসুমের প্রথম বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থীরা। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে প্রার্থী সংখ্যা ছিল প্রায় এক ডজন। নয় মাস পরে সে সংখ্যা নেমে এসেছে দুজনে- ভারমন্ট সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। রোববার বিতর্কে নামেন তারা। দুজনের পরিচিতি বিবেচনায় প্রত্যাশা ছিল, মৃদু আক্রমণের মধ্য দিয়েই সে বিতর্ক শেষ হবে। কিন্তু বাস্তবে দুজনেই নিজেদের পুরোটা ঢেলে দিয়ে অপরকে আক্রমণ করেছেন। তবে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে একজন নারী চান ঘোষণা দিয়ে আলোচনার শীর্ষে চলে এসেছেন বাইডেন। তাদের বিতর্ক থেকে কিছু গুরুত্বপ‚র্ণ পয়েন্ট নিয়ে প্রকাশিত বিবিসির এক প্রতিবেদনে এমনটা বলা হয়েছে। বিবিসি জানায়, উভয় প্রার্থীই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে নিজেদের ব্যক্তিগত পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করেছেন। ভাইরাসটিতে মৃত্যুর ঝুঁকিতে আছেন সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধরা। তারা দুজনেই বয়সে প্রবীণ। তারা জানান, সংক্রমণ এড়াতে মানুষজন এড়িয়ে চলছেন। করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে পরীক্ষার হার বৃদ্ধি, বিশ্বনেতা ও বিশেষজ্ঞদের মধ্যে আলোচনা করে পদক্ষেপ গ্রহণ, নতুন হাসপাতাল নির্মাণের পরামর্শ দিয়েছেন বাইডেন। তার সঙ্গে একমত প্রকাশ করে স্যান্ডার্স বলেছেন, হাসপাতালগুলোয় পর্যাপ্ত সরঞ্জাম ও কর্মী নিশ্চিতের কথা বলেছেন। এছাড়া, এ সংকটে সৃষ্ট অর্থনৈতিক মন্দায় যারা কাজ হারিয়েছেন তাদের ক্ষতিপূরণ দেয়ার কথাও বলেছেন তিনি। এদিকে, বাইডেন বলেন, করোনা ভাইরাস একটি জরুরি সংকট। এর পরীক্ষা ও চিকিৎসার সকল খরচ কেন্দ্রীয় সরকারের বহন করা উচিৎ। অন্যদিকে স্যান্ডার্স বলেন, এই মহামারী যুক্তরাষ্ট্র সরকারের দুর্বলতা ও অকার্যকারিতার প্রমাণ। তিনি চান, কেন্দ্রীয় সরকার শুধু এই ভাইরাস না, সকল রোগের চিকিৎসার খরচ বহন করুক। বলেন, ভাইরাস ছাড়াও প্রতি বছর যথাসময়ে চিকিৎসক না পেয়ে ৬০ হাজারের বেশি মানুষ মারা যায়। এই সংকট কেবল পরিস্থিতি আরো জটিল কর তুলেছে। বিতর্ক আরো উত্তেজনাপূর্ণ হয় যখন দুইজন অপরের অতীত কর্মকান্ড তুলে ধরে আক্রমণ চালান। ভাইস প্রেসিডেন্ট থাকার সময় সরকারি অর্থায়নে পরিচালিত সামাজিক নিরাপত্তা অবসর কর্মসূচির অর্থ কমানোর প্রতি বাইডেনের সমর্থন টেনে আনেন স্যান্ডার্স। একইসঙ্গে সমকামিতার বিরুদ্ধে বাইডেনের ভোটদান, ইরাক যুদ্ধ, মুক্ত বাণিজ্য বিল, সরকারি অর্থায়নে গর্ভপাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা সহ বাইডেনের নানা নেতিবাচক কর্মকান্ড তুলে ধরেন স্যান্ডার্স। তিনি বলেন, আমেরিকার জনগণ আমার রেকর্ড জানে, ঠিক আছে? ৩০ বছর ধরে আমি এদেশের কর্মজীবী শ্রেণির পাশে আছি। পাল্টা জবাবে বাইডেন বলেন, স্যান্ডার্স প‚র্বে অস্ত্র-নিয়ন্ত্রণ আইনের বিরোধিতা করেছেন। গত মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের জন্য রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নারী

১৩ জানুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ