Inqilab Logo

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা লোহাগড়া পৌর সড়কের বেহাল দশা

প্রকাশের সময় : ১৩ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নড়াইল জেলা সংবাদদাতা

সামান্য বৃষ্টিতে নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসভার প্রাণকেন্দ্র লোহাগড়া বাজারে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। সড়কে জমে পানি। কাদা ও ময়লা পানির কারণে পথচারীদের চলাচলে মারাত্মক সমস্যায় পড়তে হয়। ব্যস্ততম সড়কের বেহাল দশায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে মানুষ ও যানবাহন। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ব্যবসায়ীরা। সঠিক ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় এবং বাজারের ময়লা-অবর্জনা অপসারণে পৌরকর্তৃপক্ষের অনীহায় বাজারের এ বেহালদশা বলে ব্যবসায়ীরা জানান। সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তায় দীর্ঘ সময় ধরে জমে থাকে বর্ষার পানি। পৌর কর্তৃপক্ষের অবহেলায় জেলার অন্যতম ব্যস্ত লোহাগড়া বাজারের নোংরা পরিবেশের কারণে ব্যবসায়ীদের মাঝে বিরাজ করছে ক্ষোভ ও অসন্তোষ। সড়কের এই বেহাল দশার কারণে এই ঈদে বেচা-কেনা আশানরূপ হয়নি বলে ব্যবসায়ীদের অভিযোগ। গত বছর আগস্ট মাসে রাস্তা সংস্কারের দাবিতে বাজারের ব্যস্ত বেহাল সড়কে ব্যবসায়ীরা ধান রোপণ করে প্রতিবাদ জানালেও পৌরকর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে কার্যকরী কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। বাজারের ব্যবসায়ী এম শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রতি বছর পৌর ট্যাক্স ঠিকমত পরিশোধ করলেও রাস্তাঘাটের কোন উন্নয়ন নেই। বাজারের ময়লা নিষ্কাশনের জন্য নিয়মিত কোন ঝাড়–দার নেই। ফলে নোংরা পরিবেশে ব্যবসা করতে বাধ্য হচ্ছি। এ ব্যাপারে লোহাগড়া বাজারের বণিক সমিতির সভাপতি অহিদুজ্জামানের নিকট ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা পৌর মেয়রকে রাস্তা ও বাজারের দুরবস্থার কথা কয়েক দফায় জানিয়েছি। কিন্তু মেয়রের উদাসিনতায় আজ বাজারের এই অবস্থা। এ ব্যাপারে পৌর মেয়র নেওয়াজ আহম্মেদ ঠাকুরের নিকট একাধিকবার ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। উল্লেখ্য ২০০৩ সালে লোহাগড়া পৌরসভা স্থাপিত হয়। গ- শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত এই পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ড রয়েছে। আগামী ৭ আগস্ট এ পৌরসভায় ৩য় দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা লোহাগড়া পৌর সড়কের বেহাল দশা
আরও পড়ুন