Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪১ হিজরী

তোমার কাছে অঙ্গীকার, স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়বই

তুমি ঘুমাও পিতা শান্তিতে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ মার্চ, ২০২০, ১২:০০ এএম

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মুজিববষে উদ্বোধন ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পিতা, তোমার কাছে আমাদের অঙ্গীকার, তোমার স্বপ্নের সোনার বাংলা আমরা গড়বোই। আর সেদিন বেশি দ‚রে নয়। তোমার বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে ভাষণে তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তুমি ঘুমাও পিতা শান্তিতে। তুমি ঘুমিয়ে আছ টুঙ্গিপাড়ার সবুজ ছায়াঘেরা মাটিতে পিতা মাতার কোলের কাছে। আমরা জেগে রইবো তোমার আদর্শ বুকে নিয়ে। জেগে থাকবে এদেশের মানুষ - প্রজন্মের পর প্রজন্ম-তোমার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশে। তোমার দেওয়া পতাকা সমুন্নত থাকবে চিরদিন।

বক্তব্যের শুরুতেই মুজিববর্ষ উপলক্ষে দেশবাসী ও বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশী নাগরিক এবং বিশ্ববাসীকে শুভেচ্ছা জানান বঙ্গবন্ধুর জেষ্ঠ্যকনা শেখ হাসিনা। এরপর ছোটবোন শেখ রেহানার পক্ষ থেকেও দেশের সকল বষয়, শ্রেণী পেশার মানুষের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আজ ১৭ই মার্চ। ১৯২০ সালের আজকের দিনে এই বাংলায় জন্ম নিয়েছিলেন এক মহাপুরুষ। তিনি আমার পিতা, শেখ মুজিবুর রহমান। বাংলাদেশ নামের এই দেশটি তিনি উপহার দিয়েছেন। দিয়েছেন বাঙালিকে একটি জাতি হিসেবে আত্মপরিচয়ের মর্যাদা। তাইতো তিনি আমাদের জাতির পিতা। দুঃখী মানুষকে ক্ষুধা-দারিদ্র্য থেকে মুক্তি দিতে নিজের জীবনের সব সুখ-আরাম বিসর্জন দিয়ে তিনি সংগ্রাম করেছেন আজীবন। বারবার কারারুদ্ধ হয়েছেন। মানুষের দুঃখ-কষ্ট তাঁকে ব্যথিত করতো। অধিকারহারা দুঃখী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যেকোন ত্যাগ স্বীকারে তিনি দ্বিধা করেননি।এই বঙ্গভ‚মির বঙ্গ-সন্তানদের একান্ত আপনজন হয়ে উঠেছিলেন তাই তিনি বঙ্গবন্ধু।টেলিভিশনে ভাষণ ও অনুষ্ঠানমালায় মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয় মুজিবষের বছরব্যাপী আয়োজনের। নিজের এবং বোন শেখ রেহানার পক্ষ থেকে সবাইকে মুজিবর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে শেখ হাসিনার শুরু করা এই ভাষণে জাতির পিতার শৈশব এবং সংগ্রামী রাজনৈতিক জীবনের কথা তুলে ধরা হয়।
তিনি বলেন,দুঃখী মানুষকে ক্ষুধা-দারিদ্র্য থেকে মুক্তি দিতে নিজের জীবনের সব সুখ-আরাম বিসর্জন দিয়ে তিনি সংগ্রাম করেছেন আজীবন। বারবার কারারুদ্ধ হয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আজ থেকে শুরু হয়ে ২০২১ সালের ২৬-এ মার্চ পর্যন্ত মুজিববর্ষ উদযাপন করা হবে। ২০২১ সালে উদযাপিত হবে আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। শুধু বাংলাদেশ নয়, বিভিন্ন বন্ধুপ্রতীম দেশ, ইউনেসকো, ওআইসি-সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা মুজিববর্ষ উদযাপনে অংশীদার হয়েছে। সকলকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাই মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ্ রাব্বুল আলামিনের প্রতি। আমরা মুজিববর্ষ পালনের সুযোগ পেয়েছি। এ যে আমাদের জীবনে কত বড় পাওয়া, তা ভাষায় বোঝাতে পারব না। আমি গভীর কৃতজ্ঞতা জানাই দেশবাসীর প্রতি- যাঁরা আমার দল, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে, পরপর তিনবার সরকার পরিচালনার দায়িত্ব দিয়ে মুজিববর্ষ উদযাপনের সুযোগ করে দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতিতে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে কিছুটা পরিবর্তন আনতে হয়েছে। তবে বছরব্যাপী নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করবো। একই কারণে বিদেশি অতিথিবৃন্দের সফর স্থগিত করা হয়েছে। আজকের এই মাহেন্দ্রক্ষণে আমি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। শ্রদ্ধা জানাচ্ছি ১৫ই আগস্টের শহিদদের প্রতি। স্মরণ করছি জাতীয় ৪- নেতা এবং মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদকে। নির্যাতিত মাবোন এবং যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। মুক্তিযোদ্ধাদের সালাম।

বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বলেন, ছোটবেলা থেকেই মানুষের দুঃখ-কষ্টে ব্যথিত হতেন জাতির পিতা। অকাতরে বিলিয়ে দিতেন তার জামাকাপড়, বই, ছাতা। যার যখন যা প্রয়োজন মনে করতেন, তাকে নিজের জিনিষ দিয়ে দিতেন। নিজের খাবারও তিনি ভাগ করে খেতেন। দুর্ভিক্ষের সময় গোলার ধান বিলিয়ে দিতেন। মানুষের জন্য কিছু করতে পারার মধ্যেই তিনি আনন্দ পেতেন। নিজের জীবনের কোন চাওয়া পাওয়া ছিল না। বাংলাদেশের মানুষকে উন্নত, সুন্দর জীবন নিশ্চিত করতে চেয়েছিলেন তিনি। তার সে ত্যাগ বৃথা যায়নি। তিনি বলেন, আজকে বাংলাদেশ সারা বিশ্বে মর্যাদার আসনে আসীন। আমাদের আরও এগিয়ে যেতে হবে। গড়তে হবে জাতির পিতার ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ।

আজকের শিশু-কিশোর, তরুণ সমাজের কাছে আমার আবেদন- তোমরা দেশকে এবং দেশের মানুষকে ভালবাসবে। অনেক ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের এই স্বাধীনতা। স্বাধীন জাতি হিসেবে বিশ্বসভায় মাথা উঁচু করে চলার উপযুক্ত নাগরিক হিসেবে তোমাদের নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। ঠিক যেভাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের মানুষকে ভালবেসেছিলেন, সেভাবেই ভালবাসতে হবে। তার আদর্শে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, পিতা, ঘাতকের নির্মম বুলেট কেড়ে নিয়েছে তোমাকে। তোমার দেহ রক্তাক্ত করেছে। তোমার নাম বাংলাদেশের ইতিহাস থেকে মুছে ফেলতে চেষ্টা করেছে। কিন্তু ওরা পারেনি। ঘাতকেরা বুঝতে পারেনি তোমার রক্ত ৩২ নম্বর বাড়ির সিঁড়ি বেয়ে- বেয়ে ছড়িয়ে গেছে সারা বাংলাদেশে। জন্ম দিয়েছে কোটি কোটি মুজিবের। তাই আজ জেগে উঠেছে বাংলাদেশের মানুষ সত্যের অন্বেষণে। ইতিহাস মুছে ফেলা যায় না। সত্যকে মিথ্যা দিয়ে ঢেকে রাখা যায় না। আজ শুধু বাংলাদেশ নয় তোমার জন্মশতবার্ষিকী পালিত হচ্ছে বিশ্বব্যাপী। বাংলাদেশকে বিশ্ব চিনে নিয়েছে তোমার ত্যাগের মহিমায়।



 

Show all comments
  • Abdul Motaleb Ripon ১৮ মার্চ, ২০২০, ১:৩৬ এএম says : 1
    বিনম্র শ্রদ্ধা ও অসীম ভালোবাসা রইলো হে জাতির পিতা। মুজিব শতবর্ষের শুভেচ্ছা। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।
    Total Reply(0) Reply
  • Sajidul Islam Sajid ১৮ মার্চ, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 1
    ইনশা আল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ferdous Ahmed ১৮ মার্চ, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 1
    যার বজ্রকণ্ঠে জাগ্রত হয়েছিলো এই বাংলার প্রতিটি মানুষ - যার হাত ধরে পেয়েছি এই বাংলার স্বাধীনতা; সেই জাতির পিতা - বাংলার গৌরব বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম-শতবার্ষিকীতে জানাই লক্ষ কোটি সালাম, বিনম্র শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা ।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nurhossain Munna ১৮ মার্চ, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 1
    হে পিতা তুমি হৃদয়ে থাকবে মোদের অনন্ত কাল
    Total Reply(0) Reply
  • Md Babu ১৮ মার্চ, ২০২০, ১:৩২ এএম says : 1
    আসসালামু আলাইকুম। হে মহান নেতা তোমার জন্ম শতবর্ষে তোমাকে জানাই বিনশ্র শ্রদ্ধা ও শুভ কামনা। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু জয় দেশরত্ন জনদরদী মমতাময়ী মা মানবতার মা আধুনিক বাংলার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা।
    Total Reply(0) Reply
  • Kamal Hossain Shuvo ১৮ মার্চ, ২০২০, ১:৩৪ এএম says : 1
    প্রকৃত বীর কখনও মরে না, হে জাতীর পিতা কে বলে তুমি নেই, তুমি ছিলে আছো এবং থাকবে যতদিন রবে পদ্মা মেঘনা গৌরী বহমান। তুমি শ্বাশত তুমি অনন্ত তোমার মৃত‍্যু নাই, তোমার স্বপ্নের সোনার বাংলা তোমার সুযোগ‍্য উত্তরসূরী, গণতন্ত্রের মানসকন‍্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ ও বলিষ্ঠ নেতেৃত্বে আজ বাস্তব রূপ লাভ করতে চলেছে। আমরা তোমাকে ভূলবো না--100তম জন্ম বার্ষিকীতে তোমার প্রতি রইলো গভীর ভালোবাসা ও বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলী
    Total Reply(0) Reply
  • Noor ১৮ মার্চ, ২০২০, ১১:২২ এএম says : 0
    আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য নবি ছললাহু আলাইহি ওয়াসাললামে সুন্নাত মতে যেটা করা হবে দুলিয়া ও আখেরাতে তার ছওয়াব নিশ্চিত পাওয়া যাবে। অন্যথায় হিসাবের দিন সমস্যা হবে। প্রশ্ন হচ্ছে আমরা আমাদের প্রত্যেকটা কাজ কি এই ভাবে করি? আসুন আমরা ঐদিনের আগেই সতর্ক হই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী

২৬ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ