Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

সউদী অর্থনীতিতে তেল ও করোনার চাপ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম

শূন্য হোটেল থেকে শুরু করে বন্ধ বিউটি সেলুন পর্যন্ত সবক্ষেত্রেই তেল-নির্ভর সউদী আরব জ্বালানী তেলের দাম কমানো ও করোনাভাইরাস সংক্রমিত অর্থনৈতিক মন্দার চাপে সম্ভাব্য ব্যয় সংকোচনের দিকে ঝুঁকতে শুরু করেছে। খবর এএফপি।
আরব বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তি সম্পন্ন সউদী আরব সিনেমা, শপিংমল ও রেস্তোঁরা গুলি বন্ধ করে দিয়েছে, বিমান চলাচল ও বছরব্যাপী ওমরাহ স্থগিত করেছে এবং করোনা মহামারীর সংক্রমণ ঘটায় প্রায় ৫ লাখ অধীবাসীর আবাস দেশের প‚র্ব কাতিফ অঞ্চল অবরুদ্ধ করে দিয়েছে। ফলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

শীর্ষস্থানীয় জ্বালানী তেল রফতানিকারক দেশটি তেলের চহিদা কমে যাওয়া ও রাশিয়ার সাথে দর যুদ্ধের জেরে তেলের দর পতনের মুখোমুখি, যা এবছর বিগত ৪ বছরে প্রথমবারের মতো প্রতি ব্যারেলে ৩০ ডলারের নিচে নেমে আসে।
এই তরল্যের চাপ বিভিন্ন প্রকল্পের ব্যয় সংকোচন অত্যবশ্যক করে তুলেছে যা সউদী আরবের আড়ম্বরপূর্ণ বৈচিত্রকরণ প্রকল্পগুলিকে বাধাগ্রস্ত করতে পারে।
সেইসাথে যোগ হয়েছে বাদশাহ সালমানের ভাই এবং ভাগ্নের সাম্প্রতিক গ্রেপ্তার, যে বিষয়ে রাজপরিবারের নীরবতা জনগনের মনে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার আশঙ্কা তৈরি করেছে।
সউদী সরকারের একজন কর্মচারী তার বেতনের কিছু অংশ মার্কিন ডলার এবং স্বর্ণ মুদ্রায় রূপান্তর করার কারণ ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘এটি সঙ্কটের সময়।’ ‘সবকিছুই অনিশ্চিত এবং আমাদের সবচেয়ে খারাপের জন্য প্রস্তুত হওয়া উচিত।’

সউদী আরবের কেন্দ্রীয় ব্যাংক আশঙ্কা জানিয়ে বলেছে যে, তেলের দর পতন দেশের মুদ্রার ওপর চাপ সৃষ্টি করছে যা বিগত কয়েক দশক ধরে মার্কিন ডলারের বিপরীতে টিকে ছিল।
অনেক সরকারী কর্মচারী জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যাওয়া সত্তে¡ও রাষ্ট্রীয় ভাতা হ্রাস পাওয়ার আশঙ্কা করছেন।
কিছু সউদী আশঙ্কা করছেন যে, পূর্বের উচ্চ মাত্রার বেকারত্বের পাশাপাশি সরকারী ও বেসরকারী খাতে নিয়োগ বন্ধ হয়ে যাবে।

এদিকে, সউদী শিক্ষার্থীরা আশঙ্কা করছে যে বিদেশী শিক্ষার জন্য সরকারি বৃত্তিও হ্রাস পাবে।
সউদী আরবের অর্থনৈতিক পরামর্শদাতা নাসের সাইদী ও সহযোগী সংস্থা একটি গবেষণা নথিতে জানিয়েছে, অর্থ মন্ত্রণালয় চলতি বছরের ব্যয় ২০ থেকে ৩০ শতাংশ কমাতে প্রস্তাব জমা দেওয়ার জন্য সরকারি সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে। নথিতে উল্লেখ করা হয় যে, অন্যান্য অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি এটি সম্ভবত প্রকল্পগুলিকে স্থগিত করবে এবং চুক্তি প্রদান বিলম্বিত করবে।
এনার্জি ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ জানায় যে, দেশটি এখন জ্বালানী তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ১২ থেকে ২০ ডলার পর্যন্ত কমার আশঙ্কা করে সেই হিসেবে বাজেট তৈরি করছে।
এক সময় দুহাতে টাকা ওড়ানো ওপেকের অবিসংবাদিত রাজা সউদী আরব মন্ত্রীদের ব্যয়কৃত প্রতিটি মুদ্রার জন্য জবাবদিহি করার নির্দেশ দিয়েছে।

এ পেক্ষিতে সউদী বিশেষজ্ঞ এবং লেখক আলী শিহাবী বলেন, ‘সউদী আরবের বৈশ্বিক অর্থনীতি এবং অন্যান্য উৎপাদকদের প্রতিনিধি হয়ে তেল বাজারের ধাক্কা হজম করার দিন সম্ভবত শেষ হয়ে গেছে।’
তিনি বলেন, ‘জ্বালানী শক্তির খেলা এখন টিকে থাকার লড়াইয়ে পরিণত হয়েছে।’
রিয়াদের বেশ কয়েকটি পর্যটকশূন্য হোটেল তাদের কর্মীদের বিনা বেতনে ছুটিতে পাঠাতে বাধ্য হয়েছে।
কিন্তু করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে হোটেলগুলিকে কিছুটা সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মানুষকে সঙ্গনিরোধে রাখার জন্য রিয়াদের একাধিক হোটেল বুক করেছে বলে জানিয়েছেন অনতিবিলম্বে সম্পত্তিগুলি খালি করতে বাধ্য হওয়া বেশ কয়েকজন কর্মী ও অতিথি।

প্রায় ৫শ’ বিলিয়ন ডলারের রাজস্ব মজুদ বিশিষ্ট গভীর জ্বালানী সম্পদের আধার রাষ্ট্রটি বরাবর বলে আসছে যে, তারা অতি স্বল্প দামের অপরিশোধিত তেলের উৎপাদক এবং বছরের পর বছর কম দাম ধরে রাখতে সক্ষম।
তবে ২০১৪ সালে সর্বশেষ তেলের দর পতনের পর থেকে রিয়াদ প্রতিবছর একটি করে ঘাটতি বাজেট পেশ করে আসছে। তারা ঘাটতি পূরণের জন্য ১শ’ বিলিয়ন ডলার ঋণ নিয়েছে এবং মজুদ অর্থ নিয়ে ঘাটতি হ্রাস করছে। সূত্র : এএফপি।



 

Show all comments
  • MH Reyad ১৯ মার্চ, ২০২০, ১:২৬ এএম says : 0
    জরুরী অবস্থা জারি করা দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • Kamran Uddin Rayhan ১৯ মার্চ, ২০২০, ১:২৭ এএম says : 0
    চায়না, ইরান, ইতালি, ইংল্যান্ড, অ্যামেরিকার মতো উন্নত দেশ করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া জনসাধারণের বাহিরে যাওয়াকেও নিষিদ্ধ করেছে। অার এদেশে মিছিল,সমাবেশ হয়! প্রবাসীরা হোম কোয়ারেন্টিনে না থেকে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায় না ছিলো শুরুতে তদারকি, না অাছে করোনা শনাক্তকরণের পর্যাপ্ত যন্ত্র! তার উপরে কান্ডজ্ঞানহীন বিভিন্ন কার্যক্রম অার ফাঁপা বুলি। এই হচ্ছে তাদের কাজ! সম্ভাবত ভয়াবহ দুর্যোগের সম্মুখীন হতে যাচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Ziared Rahman ১৯ মার্চ, ২০২০, ১:২৭ এএম says : 0
    বাংলাদেশের মানুষ যদি নরমাল ভাবে নেয় সেই সাথে সরকার ও নরমাল ভাবে নেয় তাহলে দেশের অবস্থা খারাপ হবে, সবার উছিত সতর্কতা অবলম্বন করা, বিশেষ করে সাধারণ মানুষকে সতর্কতা থাকতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Ziared Rahman ১৯ মার্চ, ২০২০, ১:২৭ এএম says : 0
    বাংলাদেশের মানুষ যদি নরমাল ভাবে নেয় সেই সাথে সরকার ও নরমাল ভাবে নেয় তাহলে দেশের অবস্থা খারাপ হবে, সবার উছিত সতর্কতা অবলম্বন করা, বিশেষ করে সাধারণ মানুষকে সতর্কতা থাকতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Imran Khan ১৯ মার্চ, ২০২০, ১:২৮ এএম says : 0
    হোম কোয়ারেন্টাইন না বলে সরকারি কোয়ারেন্টাইন দিলে কি হইতো? এইভাবে কি করোনা ছড়াতো? যেখানে করোনা প্রতিরোধে যুক্তরাষ্ট্রের বাজেট ১ বিলিয়ন ডলার সেখানে বাংলাদেশের বাজেট মাত্র ৫০ লক্ষ টাকা, যার ৪৫ লক্ষ টাকাই নির্দিধায় দুর্নীতিবাজদের পকেটে যাবে। আবার মুজিববর্ষের বাজেট নাকি ২০০ কোটি টাকা!
    Total Reply(0) Reply
  • সাকা চৌধুরী ১৯ মার্চ, ২০২০, ১:২৮ এএম says : 0
    ওমরাহ বন্ধ করে দেওয়ায় সৌদি বিশাল ক্ষতির মুখে পড়বে। আল্লাহর অসীম দয়ায় হজ ও ওমরাহ দিয়ে তারা চলে।
    Total Reply(0) Reply
  • Monjur Rashed ১৯ মার্চ, ২০২০, ১২:১৪ পিএম says : 0
    MBS thinks that Saudi Arabia is no longer dependent on crude oil. His high-ambitious Master Plans will save the Saudis. So, nothing to be worried. Better, start dreaming.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ