Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ শাবান ১৪৪১ হিজরী

নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি বরিশালে ২২ ব্যবসায়ীকে জেল-জরিমানা

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০২০, ৭:৪৫ পিএম

করোনাভাইরাস আতংকে ভোক্তাদের মধ্যে নিত্য পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধিকে পুঁজি করে দক্ষিণাঞ্চলে চাল,পেয়াজসহ বিভিন্ন পণ্যমূল্য বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা লকডাউন ঘোষণার পর দক্ষিণাঞ্চলে নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগপণ্য কেনার প্রবণতা আরো বেড়েছে। মুদি মনোহারী দোকানগুলোতে বৃহস্পতিবার গভীর রাত পর্যন্ত এবং শুক্রবার সারাদিনই ছিল উপচে পড়া ভীড়।

এরই মধ্যে সব ধরনের চালের দাম কেজি প্রতি ৩ থেকে ৬টা টাকা বেড়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে পেঁয়াজের সংকট থাকলেও শুক্রবার আবার বাজারে পেঁয়াজ আসলেও দাম বেড়েছে প্রকার ভেদে ২৫-৩০ টাকা। অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগপণ্যও স্বাভাবিক দরের চেয়ে বেশী দামে বিক্রি করছেন দোকানীরা। বরিশাল মহানগরী সহ উপজেলাগুলোতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ব্যবসায়ীদের জরিমানা করা হলেও তা নিত্যভোগপণ্যের দামের উর্ধগতি ঠেকাতে পারেনি। জেলা প্রশাসক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে নগরীর ও কয়েকটি উপজেলায় মোট ২২ ব্যবসায়ীকে কারদান্ড এবং অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে।
বরিশাল নগরীতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে চালের দাম বেশী রাখায় সম্মিলিত বানিজ্য ভান্ডার নামের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ২৫ হাজার টাকা, পণ্যের মূল্য তালিকা না থাকায় মহাদেব ভান্ডারকে ৩০ হাজার টাকা এবং ভাই ভাই ষ্টোর্সকে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করে।
মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় বেশী দামে পেঁয়াজ বিক্রি করায় চার বিক্রেতাকে ১০দিন করে কারাদন্ড দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিযুষ চন্দ্র দে। নিত্য ভোগপণ্য বেশী দামে বিক্রি করায় বাকেরগঞ্জ উপজেলায় ৪ জন মুদি মনোহারী ব্যবসায়ী প্রত্যেককে ৫ দিন করে কারদান্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী রওশন ইসলাম গৈলা বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বেশী দামে পেঁয়াজ বিক্রী করায় ৩ ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। জরিমানার পর সালাউদ্দিন বেপারী পেঁয়াজ বিক্রি করতে অপরাগতা জানালে তার দোকানে থাকা ২৩ কেজি পেঁয়াজ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলাম ডেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি করে দেন।

গৌরনদী উপজেলায় দুই ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত জাহান। উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রনতি বিশ্বাস উপজেলার ইচলাদী বাজারে ৫ ব্যবসায়ীকে ৫হাজার টাকা করে জরিমানা করেছেন। মুলাদী উপজেলায় মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় এক ব্যবসায়ীকে ৫০০ টাকা জরিমানা করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভ্রা দাস।

অপরদিকে একইদিন দুপুরে বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের দক্ষিণ রামকাঠী এলাকার জামাল হাওলাদারের বাড়িতে সুন্নতে খাৎনার অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া চরআইচা গ্রামের একটি বিয়ের অনুষ্ঠানও বন্ধ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ভ্রাম্যমানঅঅদালত।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভ্রাম্যমান আদালত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ