Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭, ১১ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

নিষেধাজ্ঞা মানছে না জেলেরা

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) উপজেলায় সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম

লক্ষ্মীপুরের রামগতি-কমলনগরের মেঘনায় প্রতিদিনই জেলেরা দলবদ্ধ হয়ে নদীতে যাচ্ছেন। নিষেধাজ্ঞা না মেনে তারা আগের মতোই মাছ ধরে বাজারে বিক্রি করতে দেখা গেছে। জেলেরা ফেরী ও ভেনগাড়ী যুগে উপজেলার রামগতি বাজার, আলেকজান্ডার বাজার, জমিদারহাট, কমলনগর উপজেলার হাজিরহাট, করুনানগর, চরলরেন্স, তোরাবগঞ্জ ও ফজুমিয়ারহাটে অবাধে চলছে মা-ইলিশ বিক্রি। তবে তুলনামূলক দাম কম হওয়ায় ক্রেতারাও ক্রয় করছেন। অন্যদিকে উপজেলা প্রশাসনের দায়সাড়া অভিযান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এলাকাবাসী। গত কয়েকদিনে কয়েকজন জেলেকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিলেও নিস্ক্রিয় তদারকি ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। জেলেদের দাবি বিকল্প কর্মসংস্থান না থাকায় তারা বাধ্য হয়ে নদীতে যাচ্ছেন। মৎস্য সম্পদ বৃদ্ধির জন্য সরকার জেলেদের সহায়তা দিলেও টাকার বিনিময়ে সরকারি কর্মকর্তা ও ইউপি চেয়ারম্যানরা নামে-বেনামে ভূয়া জেলে তৈরি করে প্রকৃত জেলেদের বঞ্চিত করছেন বলে অভিযোগ জেলেদের।
উপজেলা মৎস্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ইলিশের পোনা, জাটকা রক্ষায় চাঁদপুরের ষাটনল থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার চর আলেকজান্ডার পর্যন্ত মেঘনা নদীর নিম্ন অববাহিকার ১০০ কিলোমিটার নৌ-সীমাকে সরকার ইলিশের অভয়াশ্রম হিসেবে ঘোষণা করেছে। এই অভয়াশ্রম এলাকায় মার্চ-এপ্রিল এই ২ মাস সব ধরণের মাছ ধরা, ক্রয়-বিক্রয়, মজুত ও পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন জানান, আমরা মা-ইলিশ রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। তবুও অনেক জেলে গোপনে নদীতে গেলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি। লক্ষ্মীপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. বিল্লাল হোসেন জানান, অভিযান সফল করতে সকল মাছঘাট ও বরফকল বন্ধ রাখা হয়েছে। জেলেরা পর্যাপ্ত মাছ পাওয়ায় কেউ কেউ হয়তো গোপনে নদীতে যাচ্ছে। খবর পেলে আমরা অভিযান পরিচালনা করি। ইতোমধ্যে ৫৭ জন জেলেকে আমরা বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল মবিন জানান, জাটকা নিধন ঠেকাতে আমাদের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আইন অমান্য করলে আমরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাসহ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিষেধাজ্ঞা


আরও
আরও পড়ুন