Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৪ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

খালেদা জিয়া আজ মুক্তি পাচ্ছেন

৬ মাস সাজা স্থগিত : বিদেশে যেতে পারবেন না : চিকিৎসা নিতে হবে বাসায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ মার্চ, ২০২০, ১২:০৯ এএম

কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ছয় মাস স্থগিত করেছে সরকার। পরিবারের সদস্যদের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাহী আদেশে বেগম জিয়াকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার বয়স বিবেচনায় মানবিক কারণে সরকার সদয় হয়ে সাজা স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শর্ত হল- এই সময়ে খালেদা জিয়াকে ঢাকায় নিজের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না। গতকাল মঙ্গলবার গুলশানে নিজ বাস ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এতথ্য জানান। আইনি প্রক্রিয়াগুলো শেষ হলেই খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহীদুজ্জামান। তিনি জানান, আগামীকাল (আজ) দুপুরের মধ্যে তা শেষ হতে পারে। আশা করি বুধবারের মধ্যেই সেই প্রক্রিয়া শেষ করা যাবে।

আইনমন্ত্রী বলেন, কিছুদিন আগে খালেদা জিয়ার ভাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে একটি দরখাস্ত এবং আমার কাছে একটি দরখাস্ত করেছিলেন যে, বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাহী আদেশে মুক্তি দেওয়ার জন্য। সেখানে তিনি লন্ডনে উন্নত চিকিৎসা করানোর কথা বলেছিলেন। এর পর বেগম খালেদা জিয়ার ভাই শামীম ইস্কান্দার, তাঁর বোন সেলিমা ইসলাম, বোনের স্বামী রফিকুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একই বিষয়ে সাক্ষাৎ করেছিলেন। সেখানেও এই আবেদনটির ব্যাপারে তাঁরা কথা বলেছিলেন। তাঁরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলেছিলেন, নির্বাহী আদেশে তাঁকে মুক্তি দেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে এবং প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

মুক্তি পেলেও খালেদা জিয়াকে বেশ কিছু শর্ত পালন করতে হবে উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আইনি প্রক্রিয়ায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারার উপধারা ১-এ বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত রেখে তাঁকে ঢাকাস্থ নিজ বাসায় থেকে তাঁর চিকিৎসা গ্রহণ করার শর্তে, এই সময় দেশের বাইরে গমন না করার শর্তে মুক্তি দেওয়া জন্য আমি মতামত দিয়েছি। সেই মতামত এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ হচ্ছে, আইনি প্রক্রিয়ায় তাঁকে এই দুই শর্ত সাপেক্ষে তাঁর দন্ডাদেশ স্থগিত রেখে তাঁকে মুক্তি দেওয়ার জন্য।

খালেদা জিয়ার বয়স বিবেচনায় মানবিক কারণে সাজা স্থগিত করা হয়েছে বলে জানান আইনমন্ত্রী। তিনি বলেন, এইখানে কিন্তু বলা হচ্ছে না যে, তিনি হাসপাতালে গিয়ে তাঁর চিকিৎসা নিতে পারবেন না। হাসপাতালে ভর্তির ব্যাপারে তাঁর কন্ডিশনের ওপরে দেখা যাবে। সেই জন্যই উল্লেখ করা হয়েছে যে, বাসায় থেকে তাঁর চিকিৎসা করানোর। এই কারণে বেগম খালেদা জিয়ার বয়স বিবেচনায় মানবিক কারণে সরকার সদয় হয়ে তাঁর সাজা স্থগিতের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। হাসপাতালে নিশ্চয়ই যেতে পারবেন। হাসপাতালে যদি ভর্তি হতে হয়, তাহলে বাংলাদেশের সবচেয়ে মানসম্পন্ন হাসপাতালে তিনি আছেনই। সেখানে তো তাঁর চিকিৎসা চলছেই। হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি হতে হবে, সেটা অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে বোঝা যাবে। কিন্তু শর্ত হচ্ছে তিনি ঢাকায় তাঁর নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন এবং ওই সময় তিনি দেশের বাইরে গমন করতে পারবেন না। যখন থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাঁকে মুক্তি দেবে, তখন থেকে সাজা স্থগিত কার্যকর হবে।

খালেদা জিয়া কখন মুক্তি পাচ্ছেন জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু বলেন, আইন মন্ত্রণালয় থেকে মুক্তি সংক্রান্ত নির্দেশনা তারা পেয়েছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখন আইন দেখে একটি সামারি তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠাবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সে সামারি অনুমোদন হয়ে আবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ফিরে আসবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সে নির্দেশনা অনুযায়ী কারাগারে কাগজপত্র পাঠালে কারা কর্তৃপক্ষ খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা নেবে বলে জানান তিনি।

খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপগুলো কী জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহীদুজ্জামান বলেন, এরই মধ্যে আমরা খালেদা জিয়ার মুক্তির ফাইল হাতে পেয়েছি। এখন আমরা এ বিষয়ে একটি সারসংক্ষেপ তৈরি করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করবো। মন্ত্রীর অনুমোদনের পর সেই ফাইল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমোদনের পর তাকে মুক্তি দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তা কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। এরপরই তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন।
এদিকে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার সরকারের সিদ্ধান্তকে ধন্যবাদ জানিয়েছে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, সরকারের শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে। বিএনপির নেতাকর্মীদের শান্ত থাকার অনুরোধও জানিয়ে রিজভী দেশবাসীর কাছে খালেদা জিয়ার জন্য দোয়া চেয়েছেন। তিনি বলেন, এই মহামারীর সময় আমাদের সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে।

এ বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সারাদেশের মানুষ কোরোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্বিগ্ন। এরমধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিকে দেশের মানুষের জন্য কিছুটা হলেও স্বস্তির। তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ৪০১ ধারায় এবং বয়সের কথা বিবেচনা করেই তাকে ৬ মাসের জন্য সাময়িক মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর সেটা শর্তসাপেক্ষে। শর্ত হচ্ছে তাকে বাসায় থাকতে হবে এবং দেশে থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। এটুকুই আমরা এখন পর্যন্ত জানি।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে যেটা আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে সেজন্য আমি আমাদের দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান থাকবে আপনারা সবাই শান্ত থাকবেন এবং যাতে কেউ আক্রান্ত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য সারা দেশের মানুষের উদ্বিগ্ন হয়েছিল। এর জন্য হলেও তারা কিছুটা স্বস্তি পাবেন যে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি পেয়েছেন এবং চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ পাবেন। কিন্তু তিনি যেহেতু বাহিরে চিকিৎসা করতে পারবেন না, তাই এ বিষয়টা নিয়ে আমরা অনেকটা চিন্তিত।

খালেদা জিয়ার মুক্তি জাতীয় ঐক্যের কোন কাজে আসবে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে এটার কোন কারন দেখছি না। জাতীয় মুক্তির জন্য আমরা বরাবর বলে আসছি কিন্তু সরকার কোন সাড়া দেয়নি। শর্তসাপেক্ষে মুক্তির বিষয়টা কতটুকু ফলপ্রসূ হবে সেটা আমরা আলোচনা সাপেক্ষে জানতে পারবো।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে বন্দি আছেন খালেদা জিয়া। প্রথমে পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হলেও গত বছর ১ এপ্রিল থেকে তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।#



 

Show all comments
  • Almahin Hossain Shimul ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২০ এএম says : 0
    বাংলাদেশীদের জন্য একটি অাপডেট নিউজঃ দীর্ঘ দুই বছরের বেশি সময় কারাবন্দি থাকার পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তবেঃ খালেদা জিয়া বাসায় থেকে চিকিৎসা নেবেন এবং বিদেশ যেতে পারবেন না, এমন শর্তে তাকে মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে৷ সরকারের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাবেন কি? এইটা কতটুকু মানবতার পর্যায়ে পরে সরকারের!! একজন বন্দিকে মুক্তি দিল কিন্তু ভাল চিকিৎসা করার অার সুযোগ দিলো না!!! বহুদিন পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে জেল থেকে ছেড়ে দিয়ে সরকার যেই উদারতা পজিটিভ দৃষ্টিভঙ্গি হওয়ার চেষ্টা করেছিল, উল্টো নাগরিক অধিকার চিকিৎসার নেওয়ার অধিকার হরন করে অাবারো সমালোচনার মুখে পরতে হলো !!
    Total Reply(0) Reply
  • Saud Ahmed ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২০ এএম says : 0
    এটা প্রমাণিত হলো এই দেশে কার নির্দেশে আদালত ও আইনকানুন চলে এবং কে বিচার পাবে আর কে পাবে না সেটা নির্ধারণ করে একজন।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Abul Mamun ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২১ এএম says : 0
    সরকার নাকি মুক্তি দেওয়ার ক্ষমতা রাখে না। তাহলে এখন তিনি কিভাবে মুক্তি পাচ্ছেন? নাকি খালেদা জিয়া অনেক বেশি অসুস্থ বলেই দায়ভার নিজেদের কাদেঁ না নিয়ে পরিবারের কাদেঁই তুলিয়ে দিয়ে নিজেরা বাচাঁর চেস্টা করছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Zohor Ali ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২১ এএম says : 0
    সরকারের প্রতি কোটি কোটি তৈহীদি জনতার বিশেষ আবেদন, এবার সকলের প্রাণপ্রিয় ব্যক্তিত্ব আল্লামা দেলওয়ার হোসাইন সাঈদী সাহেব হাফিজাহুল্লাহ কে মুক্তি দিন! ৮১ বছর বয়সী এই প্রিয় ব্যাক্তিত্ব হৃদরোগ,দীর্ঘদিনের ডায়াবেটিস ও হাঁটুর ব্যাথায় আক্রান্ত রয়েছেন এবং তার হাঁটুতে ৫ রিং বসানো আছে!
    Total Reply(0) Reply
  • Muhid Rana ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২২ এএম says : 0
    সরকার বুঝে গেছে কোয়ারেন্টাইন থেকে জেলের বাহিরে থাকলে খালেদা জিয়া বেশি রিস্কে থাকবে! এখন না ইতালি পাঠায় দেয় উন্নত চিকিৎসা করার জন্য
    Total Reply(0) Reply
  • Maksud Amin ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২২ এএম says : 0
    খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে, আলহামদুলিল্লাহ, সরকার কে সাধুবাদ জানাই, দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে আর রাজনীতি নয়, আসুন আমরা হাতে হাত মিলিয়ে করোনা ভাইরাস মোকাবেলা করি, আল্লাহর কাছে দোয়া করি, আল্লাহ যেনো আমাদের ক্ষমা করে
    Total Reply(0) Reply
  • Husain Shaikh ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২২ এএম says : 0
    শেষ বয়সে জেলখানায় মেরে নিজেদের ঘাড়ে দোষ নিতে চায়না ৷ শেষ চেষ্টা হিসেবে করোনা দিয়ে যদি কিছু করা যায় তারই পরিকল্পনা হয়তো ৷৷
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ashif Ur Rahman ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২৩ এএম says : 0
    এর চেয়ে খালেদা জেলেই ভাল ছিল। সরকার হয়ত দেখছে যে, উনি জেলে তো আরামেই আছেন, ছেড়ে দিলে তো মহামারিতেই আক্রান্ত হতেও পারেন ফলে মারা গেলে সরকারের কোন দায় থাকবে না। সাপ মরল, লাঠিও ভাঙল না।
    Total Reply(0) Reply
  • Sumon Parvez ২৫ মার্চ, ২০২০, ১:২৩ এএম says : 0
    এটা শুধুমাত্র করোনা ভাইরাস কে কেন্দ্র করে ছেরে দিল, না হলে মনে হয় সারাজীবন অখানেই রাখত?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খালেদা জিয়া

২৬ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন