Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬, ১০ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

দুর্গম পাহাড়ের ৫ শিশু রোগীকে চট্টগ্রাম আনলো সেনাবাহিনী

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৫ মার্চ, ২০২০, ৯:৩৮ পিএম

রাঙামাটির দুর্গম পাহাড়ের সাজেক ইউনিয়নের শেয়ালদহের হামে আক্রান্ত ৫ শিশুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম আনলো সেনাবাহিনী। আজ বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারযোগে তাদের চট্টগ্রাম আনা হয়। এ পাঁচ শিশুর মধ্যে রয়েছে- প্রতিল ত্রিপুরা (৫), রোকেন্দ্র ত্রিপুরা (৬), রোকেদ্র ত্রিপুরা (৮), নহেন্দ্র ত্রিপুরা (১০) ও দিপায়ন ত্রিপুরা (১৩)।
সেনাবাহিনী সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি শেয়ালদহ এলাকায় শিশুদের মধ্যে হাম রোগ ছড়িয়ে পড়ে। অরুন পাড়া, লুথিয়ান পাড়া ও কমলাপুরপাড়া গ্রামে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। এ অবস্থায় আক্রান্ত শতাধিক মানুষকে উন্নত চিকিৎসা সহায়তা দেয়ার লক্ষ্যে গত ২৪ মার্চ বেসামরিক ও সামরিক চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত একটি চিকিৎসক দল সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টারযোগে শেয়ালদহ এলাকায় পাঠানো হয়।
হামে আক্রান্ত শিশুদের বাঁচাতে চট্টগ্রাম নিয়ে আসে সেনাবাহিনী। সাজেকের শেয়ালদহ লোকালয় থেকে অত্যন্ত দূরবর্তী এবং দুর্গমতার কারণে সামাজিক সুযোগ-সুবিধার অনেক কিছুই অনুপস্থিত। সেখানে এ অসুস্থ উপজাতিদের উন্নত চিকিৎসা সহায়তা দেয়ার নিমিত্তে দুর্গম পাহাড়ি পথ পাড়ি দিয়ে দেবদূতের মতো সেনাবাহিনীর এমন ছুটে আসা ছিল সবার কাছে অকল্পনীয়।
এ সময় সমন্বিত চিকিৎসক দল সেই এলাকায় একটি পরিবারের ৫ জন অপুষ্টিজনিত রোগসহ নিউমনিয়ায় আক্রান্ত শিশুর সন্ধান পান এবং চিকিৎসকরা শিশুদের জীবন বাঁচাতে জরুরি ভিত্তিতে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামে পাঠানোর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। বিষয়টি জানার পর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল এসএম মতিউর রহমান অতি দ্রুত এ শিশুদের হেলিকপ্টারযোগে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামে নিয়ে আসার নির্দেশ দেন।
উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের চট্টগ্রামের একটি সরকারি হাসপাতালে আনা হয়েছে। হেলিকপ্টারযোগে দুস্থ রোগীদের স্থানান্তরের পাশাপাশি অন্যান্য আক্রান্ত রোগীর সেবা শুশ্রূষায় যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে সেনা ও বেসামরিক চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত চিকিৎসক দল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

৫ এপ্রিল, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন