Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

চট্টগ্রাম খোঁয়াড়ে ২০ বিদেশিও!

বাড়ি বাড়ি লাল নিশান লকডাউন : কঠোর হচ্ছে প্রশাসন

বিশেষ সংবাদদাতা, চট্টগ্রাম ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২৬ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

অবশেষে খোঁয়াড়েই ঢোকানো শুরু হলো। চট্টগ্রাম মহানগরীতে খোঁয়াড়ে নিয়ে যাওয়া হলো গতকাল (বুধবার) পর্যন্ত ২০ জন বিদেশি নাগরিকসহ শতাধিক সদ্য বিদেশ ফেরত লোকজনকে। করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে সদ্য বিদেশফেরতরা সরকারের হোম কোয়ারেন্টাইন আদেশ লঙ্ঘন বা ফাঁকি দিয়েই ঘুরছিলেন। অনেকেই বেপরোয়া। হাতেনাতে ধরার পর তাদের বাড়ি বাড়ি লাল পতাকা উড়িয়ে চিহ্নিত করেছে কর্তৃপক্ষ। টানানো হয়েছে লাল নোটিশ ও স্টিকার।

এদের খুঁজে বের করে করোনার ঝুঁকি রোধে কোয়ারেন্টাইন পালনসহ সামাজিক বিচ্ছিন্নকরণে প্রশাসনের সাথে মাঠে সহযোগিতা করছেন সেনাবাহিনী। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কঠোর অভিযান চালানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে নগরী ও গ্রামে-গঞ্জে। কেননা ওরাই এখন বিপত্তি বা ঝুঁকির একটি বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। নগরীর অভিজাত খুলশি আবাসিক এলাকায় একটি রেস্তোঁরা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে সদ্য বিদেশফেরতরা হোম কোয়ারেন্টাইন অমান্যকারি বিদেশিদের আড্ডা ও জটলা তৈরির প্রমাণের ভিত্তিতে। তাছাড়া নগরীতে দুটি এলাকায় হোম কোয়ারেন্টাইন ফাঁকির ঘটনায় সদ্য আসা প্রবাসীর আত্মীয়ের দুটি বাসভবন লকডাউন করা হয়েছে। সেখানে সাধারণ লোকজনের যাতায়াত বন্ধ রাখা হয়েছে।

এ মুহূর্তে মাঠ প্রশাসন, চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও কাউন্সিলরগণ, ইউএনও, ওসিগণ হন্যে হয়ে খুঁজছেন তাদের কে কোথায় কী করছে। সিএমপি কমিশনার মো. মাহবুবুর রহমান এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেন, হোম কোয়ারেন্টাইন যারা ঠিকমতো পালন করছেন তাদের জন্য ফল উপহার হিসেবে যেমন পাঠিয়েছি, তেমনি যারা এর উল্টো কাজে আছেন তাদের জন্য কঠোর ইঙ্গিত এতেই (ফল) নিহিত রয়েছে। এদের বিরুদ্ধে চলবে অভিযান। প্রয়োজনে মাঠে দায়িত্বে থাকা সেনাবাহিনীর সহযোগিতা নেয়া হবে।
চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, হোম কোয়ারেন্টাইন আদেশ লঙ্ঘনকারীদের সামাজিক সহযোগিতা নিয়ে চিহ্নিত করা এবং প্রশাসনের অভিযান দুইই অব্যাহত থাকবে। তারা যেন ঘরের বাইরে যেতে না পারেন সবার আরও সজাগ থাকা জরুরি।

এদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে বন্দরনগরীর অভিজাত খুলশী আবাসিক এলাকায় থাকা ২০ জন বিদেশি নাগরিককে হোম কোয়ারেন্টাইন লঙ্ঘনের দায়ে ভ্রাম্যমান আদালত হাতেনাতে ধরে পাঠিয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে। তাদের বাসস্থানে লাল পতাকা উড়িয়ে চিহ্নিত রাখা হয়।
গত মঙ্গলবার রাতে অপর অভিযানে নগরীর নিউ চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা এবং বাকলিয়া সৈয়দ শাহ রোডে দুইটি ভবন লকডাউন করে লাল পতাকা উড়িয়ে দেয় পুলিশ। জানা গেছে, কক্সবাজারের একজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত বৃদ্ধা মহিলার দুই ছেলের বাসাবাড়িতে পুলিশ গিয়ে তালা লাগায়।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, কক্সবাজারে এক মহিলার শরীরের করোনা শনাক্ত হয়। ওমরাহ শেষে তিনি গত ১৩ মার্চ দেশে ফেরেন, চান্দগাঁও ও বাকলিয়ায় দুই ছেলের বাসায় ছিলেন কিছুদিন। এতে করে করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় বাড়ি দুটি লকডাউন করানো হয়। গত ১৮ মার্চ শ্বাসকষ্ট ও জ্বর নিয়ে উক্ত মহিলা কক্সবাজার সদর হাসপাতাল ভর্তি হন। পরে তার শরীরের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় আইইডিসিআরে পাঠানো হলে গত মঙ্গলবার তিনি করোনা আক্রান্ত বলে চিহ্নিত হন। সেই সূত্রে চট্টগ্রামে তার অবস্থানকালীন বাড়ির লোকজনও ঝুঁকি বহন করে থাকতে পারে।

কী করছে বিদেশিরা-
চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী অভিজাত এলাকার বিভিন্ন বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অন্তত ২০ জন বিদেশি নাগরিকের হোম কোয়ারেন্টিন না মানার প্রমাণ পেয়েছেন জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম। অভিযানে খুলশী এলাকায় বিদেশি নাগরিকদের অবাধে আনাগোনা হচ্ছিল, এমন একটি কোরিয়ান রেস্তোাঁরা বন্ধ করে দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। খুলশীতে সদ্যফেরা বিদেশি নাগরিকরা হোম কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশনা মানছেন না এমন খবর পেয়েই এ অভিযান চলে। খুলশীতে বিভিন্ন দেশের নাগরিকগণ বসবাস করেন। তারা চট্টগ্রামে ও কক্সবাজারে বিভিন্ন বেসরকারি ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত।

অভিযান পরিচালনাকারী কর্মকর্তারা জানান, খুলশীতে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেলো কমপক্ষে ৩০ জন বিদেশি নাগরিক মার্চ মাসেই বাংলাদেশে এসেছেন। তারা দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, যুক্তরাস্ট্র, চীন থেকে আসেন।

তাছাড়া বিদেশফেরত একজন জাপানি নাগরিকের হোম কোয়ারেন্টাইন ফাঁকি দিয়ে বিচরণ এবং অফিস করার তথ্য মিলেছে। তাকে নজরদারি করতে পুলিশকে বলা হয়। দক্ষিণ কোরীয় এক নাগরিক গত ১৫ মার্চ বাংলাদেশে ফিরে হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে প্রতিদিন খুলশী ২ নম্বর রোডে এক রেস্তোাঁরায় যাতায়াত ও আড্ডায় মেতেছিলেন এম প্রমাণ পান ভ্রাম্যমাণ আদালত। খুলশীর সেই রোস্তোাঁরাটি গতকাল পুলিশ বন্ধ করে দিয়েছে। খুলশী থানা জানায়, ওই এলাকায় বিদেশিদের হোম কোয়ারেন্টাইন পালন এবং সার্বিক আনাগোনা নজরদরি করা হচ্ছে।
প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার দৈনিক ইনকিলাব অনলাইনে ‘জনমনে উদ্বেগ- দায় কার? হোম কোয়ারেন্টাইন অমান্যকারী বিদেশফেরতদের বেপরোয়া ঘোরাঘুরি : করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছেই’ এবং গতকাল বুধবার ইনকিলাব ‘খোঁয়াড়ে ফেরানোর উপায়!’ শীর্ষক সরেজমিন সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২২ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ