Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

দেশে চিকিৎসা জরুরি অবস্থা ঘোষণা করুন -বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ মার্চ, ২০২০, ৬:২০ পিএম

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস মোকাবেলায় দেশে চিকিৎসা জরুরি অবস্থা ঘোষণার দাবি জানিয়েছে বিএনপি। দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, সমগ্র বিশ্ব এক অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে চলছে। মহামারি ছড়িয়ে পড়েছে দেশে দেশে। প্রতি মুহূর্তে নতুন আক্রান্ত আর মৃত্যুর মিছিল বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। লক ডাউন, আইসোলেশন, সেল্ফ কোয়ারেন্টাইনে সম্পূর্ণরুপে থমকে পড়েছে স্বাভাবিক জনজীবন। প্রতিটি দেশ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব হতে পরিত্রান পেতে অন্য দেশ থেকে নিজেদের বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে। ভয়ংকর এক কঠিন পরিস্থিতিতে উপনীত হয়েছি আমরাসহ বিশ^বাসী। সরকারি হিসাবে ৪৪ জন আক্রান্ত আর ৫ জন মৃত্যুবরণ করেছে। বাংলাদেশে কেভিড-১৯ সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়ার জন্য ন্যুনতম প্রয়োজনীয় টেস্ট কিট, চিকিৎসকদের পিপিই কিংবা হাসপাতালে পর্যাপ্ত আইসিইউ’র প্রচ- অভাব। সারাদেশের হাসপাতাল থেকে হাজার হাজার স্যাম্পল আসছে অথচ টেস্ট করতে পারছে মাত্র ৭০-৮০ টি। এই অপ্রস্তুত দৃশ্যপটের মধ্যে সামনে আরো কঠিন পরিস্থিতি ধেয়ে আসছে। গোটা দেশবাসী শংকিত-আতংকিত। এই অবস্থার দ্রুত অবসান জরুরী। এজন্য অবিলম্বে দেশে চিকিৎসা জরুরি অবস্থা জারির জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান তিনি। বৃহস্পতিবার দুপুরে সকালে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী এই ভয়াল দুর্যোগময় সময়ে, মহাক্রান্তিকালে দেশবাসী, সরকার, সাধারণ জনগণ ও বিএনপি’র নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্যের প্রতি সকলের মনোযোগ আকর্ষণ করে বলেন, বুধবার ভোর রাতে লন্ডন থেকে ভিডিও বক্তৃতায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় তারেক রহমান অবিলম্বে দেশে ‘চিকিৎসা জরুরী অবস্থা’ ঘোষণার জন্য সরকারের প্রতি যে আহবান জানিয়েছেন। তা কার্যকর করার জন্য আমরা দাবী জানাচ্ছি।

রিজভী বলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ডাক্তারসহ স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ব্যবস্থার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেকের কাজকে অত্যাবশ্যকীয় ঘোষণা এবং বিশেষ বোনাস প্রদান, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত সংখ্যক মেডিক্যাল সরঞ্জাম, পিপিই, করোনা টেস্ট কিট সরবরাহ করে দেশের প্রতিটি উপজেলায় করোনাভাইরাস পরীক্ষার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ, প্রবীণ ও স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে থাকা নাগরিকদের চিকিৎসা সেবায় বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ, করোনা ভাইরাসের কারণে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, কৃষি শ্রমিক, গার্মেন্টস ও শিল্প কারখানার শ্রমিক এবং বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে আর্থিক সহায়তার উদ্দেশে দ্রুততার সঙ্গে পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন এবং দেশে কমপক্ষে আগামী ছয় মাসের জন্য জাতীয় কিংবা স্থানীয় সকল নির্বাচন স্থগিত করারও দাবী জানিয়েছেন। আমরা দেশ এবং জনগণের স্বার্থে প্রতিটি দাবীই অত্যন্ত যৌক্তিক মনে করি এবং দাবিগুলো বাস্তবায়নের আহবান জানাই।

তিনি বলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান তাঁর ভিডিও বার্তায় বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তির ঘোষণায় আল্লাহর দরবারে শোকরিয়া জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘দেশে গণতন্ত্রকামী জনগণের কাছে এটি অবশ্যই আনন্দ ও স্বস্তির খবর। সন্তান হিসেবে এজন্য আমি আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাই’। তারেক রহমান দেশের চলমান সঙ্কটকে সবার জন্যই মহাবিপদ উল্লেখ করে আতংকিত না হয়ে বরং সাহস ও ধৈর্য নিয়ে এবং নিরাপদ থাকার সকল নির্দেশনা অনুসরণ করে পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহবান জানান।

তিনি বলেন, সারাবিশ্বের মানুষ এক মহাবিপদের কাল অতিক্রম করছে। এটি এখন মানুষের বাঁচা মরার প্রশ্ন। এই সংকটময় পরিস্থিতিতে দেশ এবং জনগণের স্বার্থে সবাইকে যেকোনো মূল্যে ঐক্যবদ্ধভাবে ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়ে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে তারেক রহমান বলেছেন, দেশের গণতন্ত্রকামী জনগণের কাছে অবশ্যই বর্তমান সরকারের বৈধতার সঙ্কট রয়েছে। জনগণের রায়ে ক্ষমতায় গিয়ে বিএনপি একাধিকবার রাষ্ট্র পরিচালনা করেছে। অনেক সংকটময় পরিস্থিতিও মোকাবেলা করেছে। সারাবিশ্বের সাথে মাতৃভূমি বাংলাদেশ এখন ভয়াবহ সঙ্কটে। তাই এই সঙ্কট মোকাবিলায় বিএনপি বর্তমান সরকারকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিতে প্রস্তুত। বিএনপি বিশ্বাস করে, দেশ ও মানুষের কল্যাণের জন্যই রাজনীতি।

রিজভী বলেন, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আরো বলেছেন, দোষারোপের রাজনীতি আর কথার ফুলঝুরি নয় এই বিপদ মোকাবিলায় প্রতিটি মানুষকে দায়িত্বশীল নাগরিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। সবার আগে প্রয়োজন রাষ্ট্র ও সরকারের কার্যকরী পদক্ষেপ। কেননা বর্তমান বিপদ মোকাবিলায় ‘লক ডাঊন’ ‘কোয়ারেন্টাইন’ কিংবা ‘সেলফ আইসোলেশন’ অত্যন্ত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। কিন্তু বাংলাদেশের বাস্তবতায় এমন পরিস্থিতির সঙ্গে দেশের জনগণ ততটা পরিচিত নয়। তাই এসব পদক্ষেপ সফল করতে জনগণের স্বতঃস্ফুর্ত সহযোগিতা প্রয়োজন। যাতে দলমত, ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষ সক্রিয়ভাবে ‘লক ডাঊন’ ‘কোয়ারেন্টাইন’ কিংবা ‘সেলফ আইসোলেশন’ প্রক্রিয়ার সফল প্রয়োগ ঘটাতে পারে। তা না হলে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে দেশ ও জনগণকে চড়া মূল্য দিতে হবে। সকল ডাক্তার এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের কঠিন ত্যাগের বিষয়টি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করে বলেন, আপনাদের এই ত্যাগ সারাবিশ্ব শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছে, করবে। আতংকিত হয়ে অধিকমাত্রায় কেনাকাটা করে ঘরে মজুদ না করার আহবান জানান তিনি।

রিজভী জানান, দেশের ৬৮টি কারাগারে লক্ষাধিক বন্দির মাঝেও করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দিয়েছে। যা উদ্বেগজনক। এমতাবস্থায় একটি নির্দিষ্ট মেয়াদের জন্য হলেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কয়েদি বিশেষ করে রাজনৈতিক বিবেচনায় বন্দিদেরকে কারামুক্ত করা কথা বলেছেন তারেক রহমান। কেননা ইতালি, ইরানসহ অনেক দেশই নিজেদের বেঁচে থাকার স্বার্থেই অনেক কয়েদিকে শর্তসাপেক্ষে মুক্ত করে দিয়েছে। সেইসাথে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মাঝে করোনা যাতে হানা দিতে না পারে সেটি নিশ্চিত করা জরুরী। এ সকল প্রস্তাব কার্যকর হলে ইনশাআল্লাহ করোনা মোকাবিলা সহজসাধ্য হবে বলে মন্তব্য করেন রিজভী।



 

Show all comments

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২৬ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ