Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬, ০৫ শাবান ১৪৪১ হিজরী

বগুড়ায় ওরসে পুলিশি অভিযানে গ্রেফতার ২৪

২ পুলিশ কর্মকর্তা আহত

বগুড়া ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২৭ মার্চ, ২০২০, ১২:০৭ এএম

বগুড়ায় মরহুম পীর সিরাজুল হক চিশতী ওরফে মস্তে হুজুর (রহ.) এর দরবারে বার্ষিক ওরস চলাকালে পুলিশী অভিযানে মুরিদদের সাথে সংঘর্ষে ২ পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।
২৫ মার্চ রাতে সংঘটিত এ ঘটনার জেরে পুলিশ সাবেক পৌর কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম নয়ন ও নুরুল আামিন নুরুসহ ২২ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতাররা সবাই মরহুম পীরের মুরিদ ভক্ত ও অনুসারী।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে মরহুম পীরের নাতি ভাষা সৈনিক মরহুম গাজীউল হকের ছেলে রাহুল গাজী জানান, বগুড়া শহরের সুলতাগনজ পাড়ায় তার পৈত্রিক নিবাস ও হুজুরের মাজার চত্বরে পুর্ব ঘোষণা মোতাবেক পুলিশকে জানিয়ে সীমিত পরিসরে ওরসের আয়োজন করা হয়। বুধবার এশা নামাজের পর তরিকা কেন্দ্রিক সংক্ষিপ্ত বয়ান শুরু হলে নিকটস্থ উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক নান্নু মিয়া এসে ওরস বন্ধ করতে বলেন। এ সময় সেখানে ২৫ জনের মত মুরিদ ও আশেকান ছিলেন।

এ সময় মুরিদরা দ্রুত সবকিছু শেষ করার কথা বললেও নান্নু মিয়া তখনই উরস বন্ধ করার কথা বলেন। এ নিয়ে বাদ প্রতিবাদ শুরু হলে বিপুল সংখ্যক মানুষ মাজার চত্বরে ঢুকে পড়ে। এ সময় সৃষ্ট হাতাহাতির ঘটনায় ২ পুলিশ সদস্য আহত হন। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত পুলিশ সদস্যদের শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত পুলিশ কর্মকর্তাদ্বয়ের মধ্যে পুলিশ পরিদর্শক নান্নু মিয়ার আঘাত গুরুতর। তার একটি হাত ভেঙে গেছে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় পুলিশের এস আই আব্দুল গফুর বাদি হয়ে মরহুম পীর সিরাজুল হক চিশতী (রহ.) এর মুরিদ বগুড়া পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম নয়ন ও নুরুল আমিন নুরুসহ ২২ জনকে গ্রেফতার করে বৃহষ্পতিবার দুপুরে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। এছাড়া ১৫০ জন অজ্ঞাতনামাসহ ২২ জনের নামে মামলা করেছে পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওরস

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ