Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

হাসপাতালে কমছে রোগী মোবাইলে দিচ্ছেন সেবা

নেছারাবাদ (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাত | প্রকাশের সময় : ২৮ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম

নেছারাবাদ উপজেলায় করোনাভাইরাস আতঙ্কের কারণে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলার হাসপাতালের জরুরি বিভাগ, বহির্বিভাগ ও অভ্যন্তরীণ বিভাগে রোগীর সংখ্যা বহুগুণ কমেছে। আতঙ্কে হাসপাতালে না এসে অনেকেই মোবাইলে ফোন দিয়ে নিচ্ছেন সাধারণ চিকিৎসা। সর্দি, কাশি, জ্বরসহ সাধারণ রোগ নিয়ে হাসপাতালে আসছে না কোনো রোগী। করোনাভাইরাসের আতঙ্কের কারণে রোগীর সংখ্যা কমেছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের সংশ্লিষ্টরা। গত বৃহস্পতিবার থেকে এ উপজেলায় করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মুদি, ওষুধ, কাচামাল, মাছবাজার বাদে সব দোকানপাট বন্ধ ঘোষণার পর অভ্যন্তরীণ যানবাহন বন্ধের উপর নিষেধাজ্ঞা আসে। সে থেকেই এ হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা আরো কমেছে বলে জানা গেছে।

উপজেলা প্রধান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, গড়ে প্রতি মাসে উপজেলার এ হাসপাতালে জরুরি বিভাগে দেড় থেকে দুই হাজার রোগী চিকিৎসা নিতেন। ৫ হাজার থেকে ৬ হাজার পর্যন্ত রোগী বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিয়ে থাকেন। এছাড়া ইনডোরে ৫শ’ থেকে ৬শ’ রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিতেন।
হাসপাতালের আবাসিক ডাক্তার আসাদুজ্জামান জানান, হাসপাতালে এখন রোগী আসে না বললেই চলে। আগে প্রতিদিন এখানে আউটডোরে আনুমানিক তিনশ রোগী আসত। আর ইনডোরে প্রতিদিন ৪০ থেকে ৫০ জন রোগী ভর্তি নিয়ে চিকিৎসা নিতেন। অতচ আজকে হাসপাতালে তিনজন মারামারির রোগী নিয়ে মোট পাচজন ভর্তি আছেন।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত এখান থেকে মোট ২৮ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। যার ভেতরে মাত্র ৫ থেকে ৭ জন রোগী ভর্তি নিয়েছেন। অথচ এ সময়ে সাধারণ সর্দি, জ্বর,কাশিসহ সাধারণ রোগ নিয়ে এখানে রোগীদের থাকতো উপচে পড়া ভিড়।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রধান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফিরোজ কিবরিয়া বলেন, আগের তুলনায় হাসপাতালের ইনডোর, আউটডোর ও জরুরি বিভাগে তিনভাগের আড়াই রোগী কমেছে। সরকারি প্রচারণা ও করোনার প্রতি আতঙ্কের কারণে মানুষ নিজ থেকেই হাসপাতালে আসা কমিয়েছেন। তবে মোবাইলে জরুরি বিভাগের নাম্বারে অনেক রোগী ফোন দিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এছাড়া, যারা আসছেন তাদেরকে প্রয়োজন অনুযায়ী চিকিৎসা ও ওষুধ দেয়া হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হাসপাতাল


আরও
আরও পড়ুন