Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

করোনা : হিন্দু বৃদ্ধের সৎকারে স্বজাতিরা নেই, শ্মশানে নিলো একদল মুসলিম যুবক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ মার্চ, ২০২০, ৫:১৪ পিএম

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ক্রমেই বাড়ছে। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। আতঙ্ক ছড়িয়েছে দেশে দেশে। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে কেউ স্বাভাবিক কারণে বা অন্য কোনো রোগে মারা গেলেও ভাবা হচ্ছে করোনায় মারা গেছে। ফলে তার সৎকারে এগিয়ে আসছে না কেউ। এমন ঘটনাই ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে।
বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান এলাকার বাসিন্দা রবিশংকর। কিন্তু প্রতিবেশীরা ধারণা করেন করোনায় তার মৃত্যু হয়েছে। ফলে তারা কেউই শেষ দেখাটুকুও দেখতে আসেন নি। আসেন নি আত্মীয় স্বজনরাও। এতে সৎকার নিয়ে বিপাকে পড়ে রবিশংকরের পরিবার।
পরে খবর পেয়ে এগিয়ে আসে পাশের গ্রামের একদল মুসলিম যুবক। তারাই রবিশংকরকে কাঁধে বহন করে শ্মশানে নিয়ে যান। এসময় মুসলিম যুবকরা মাথায় ফেজ টুপি পরে ‘রামনাম সত্য হ্যায়’ ধ্বনি দেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুহূর্তের মধ্যেই ছড়িয়ে পড়ে দৃশটি। বাহাবা পাচ্ছেন মুসলিম যুবকরা। অনেক ব্যবহারকারী বলছেন, এটাই প্রকৃত ভারতবর্ষ।
সম্প্রতি দিল্লিতে হিন্দু-মুসলিম সংঘাত বেশ নাড়া দিয়েছিলো অনেককেই। কিন্তু বুলন্দশহরের এই দৃশ্য সেই ক্ষত মুছতে সহায়ক হবে বলেও ধারণা অনেক ভারতবাসীর।



 

Show all comments
  • মোঃমিজানুর রহমান (টিটু ) ৩০ মার্চ, ২০২০, ৬:৪১ পিএম says : 0
    মুসলমাম ধর্মের মানুষের মানবিক মুল্যবোধ এমনই। ধর্মের চেয়ে মানুষ বড়।মানুষের জন্য ধর্ম কিন্তুু ধর্মের জন্য মানুষ নয়। তাই বাউল সম্রাট লালন সা্ঁইজীর সর্বশ্রেষ্ট উত্তি "মানুষ ভজিলে সোনার মানুষ হবি।" মিজান ফকির, কুষ্টিয়া।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ৩০ মার্চ, ২০২০, ১১:১১ পিএম says : 0
    আসলে ওরা হচ্ছে অজ্ঞ ওদের ধরমিও জ্ঞান নাই। ওরা যাহা বলিয়াছে জাহান্নামে যাইবে। সন্দেহ নাই। ইনশাআল্লাহ। আর মানুষকে জ্বালাইতে সহযোগিতা করা কুফুরি। কেন মাটি দিলো না?
    Total Reply(0) Reply
  • Akramul ৩০ মার্চ, ২০২০, ১১:৪২ পিএম says : 0
    ভারতে মুসলমানেরা যা করেছে তা সামাজিকভাবে ভাল হয়েছে, তা না হলে পরিবেশের উপর বিরুপ প্রভাব পরত, লাশটি পচে দুগন্ধ ছড়াত। তবে মুসলমানদের ‘রামনাম সত্য হ্যায়’ ধ্বনি দেওয়াটা যাবে কিনা তা মুসলিম রীতিনীতি অনুযায়ী ভেবে দেখা দরকার ছিল। অন্য দিকে একজন মুসলমান মারাগেলে হিন্দু ধর্মের লোকেরা কি মুসলিম ধর্মের রীতিনীতি অনুযায়ী লাশটি কবরস্ত করবে? আমার মনে হয় তারা এভাবে করবেনা বা কোন একটি নজির নাই, হয়ত তারা লাশটি মাটি চাপা দিয়ে পুতে রাখতে পারে। কারণ তাদের কাছে ধর্মের বিধিবিধানটাই বড়। তাই মুসলমানদের নিকট মুসলিম ধর্মের বিধিবিধানটাই বড় হওয়া উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ৩১ মার্চ, ২০২০, ১:০১ এএম says : 0
    নাউযুবিল্লাহ। আসলে ওরা হচ্ছে অজ্ঞ ওদের ধরমিও জ্ঞান নাই। ওরা যাহা বলিয়াছে জাহান্নামে যাইবে। সন্দেহ নাই। ইনশাআল্লাহ। আর মানুষকে জ্বালাইতে সহযোগিতা করা কুফুরি। কেন মাটি দিলো না?
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ৩১ মার্চ, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 0
    নাউযুবিল্লাহ। আসলে ওরা হচ্ছে অজ্ঞ ওদের ধরমিও জ্ঞান নাই। ওরা যাহা বলিয়াছে জাহান্নামে যাইবে। সন্দেহ নাই। ইনশাআল্লাহ। আর মানুষকে জ্বালাইতে সহযোগিতা করা কুফুরি। কেন মাটি দিলো না? আর ভারতে ভারতীয় কাফেরেরা তো মোসলমানদের সকল কিচু কেরে নিয়াছে এবং নিতেছে। এই শততান্দের উপর আল্লাহ তা'আলার গজব। ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ