Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

খাদ্য ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ- ৩১ মার্চ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ মার্চ, ২০২০, ৯:৪০ এএম | আপডেট : ৯:৪২ পিএম, ৩১ মার্চ, ২০২০

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে একদিনের বেতনের টাকা দিচ্ছেন রেল কর্মকর্তারা
স্টাফ রিপোর্টার- করোনার কারণে দেশের কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায় মানুষের জন্য একদিনের বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে দিবেন বাংলাদেশ রেলওয়ে ও রেলপথ পরিদর্শন অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

আজ মঙ্গলবার রেল মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মীর আলমগীর হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করােনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাংলাদেশে সরকারের অফিস-দফতর ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি সব মানুষকে নিজ নিজ গৃহে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। ফলে খেটে খাওয়া মানুষ কাজে যেতে পারছে না। এ অবস্থায় স্বল্পআয়ের, খেটে খাওয়া মানুষদের আর্থিক সহায়তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ইতোমধ্যে বিভিন্ন সরকারি সংস্থা, দফতর আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছে।

বিজ্ঞপ্তিততে আরো বলা হয়, এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ রেলওয়ে ও রেলপথ পরিদর্শন অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মার্চের একদিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদান করা হবে।

সরিষাবাড়ীতে করোনা মোকাবেলায় নিজের গাড়ি হাসপাতালকে দিলেন বিজিডি গ্রুপের চেয়ারম্যান
সরিষাবাড়ী (জামালপুর) সংবাদদাতা : জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ব্যক্তিগত প্রাইভেটকারটি ব্যবহার করতে দিয়েছেন বাংলাদেশ গ্রামীণ ডেভেলপমেন্ট (বিজিডি) গ্রুপের চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় রোগীর সেবা নিশ্চিত করতে সার্বক্ষনিক ব্যবহারে অনির্দিষ্টকালের জন্য তিনি নিজের টয়োটা (ঢাকা মেট্রো ঘ ১৩-০৯৫৯) গাড়িটি প্রদান করেন।


মঙ্গলবার দুপুরে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের আবাসিক ইনচার্জ ডা. মো. সাহেদুর রহমানের হাতে এটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রীর প্রতিনিধি যুবলীগ নেতা সাখাওয়াতুল আলম মুকুল, সাংবাদিক এম এ রউফ প্রমুখ।
সরিষাবাড়ীর কৃতি সন্তান সফিকুল ইসলাম বলেন, করোনা মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবে মানুষের জন্য কিছু করতে চেষ্টা করছি। এ উপজেলায় চিকিৎসক-নার্সসহ সংশ্লিষ্টদের যত পিপিই লাগবে তাও দেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

ওসমানীনগরে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন এমপি মোকাব্বির খান
বালাগঞ্জ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদতা : ওসমানীনগরে দিনমজুর ও হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন সিলেট-২ (বিশ^নাথ-ওসমানীনগর) আসনের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান। মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) তাঁর ব্যক্তিগত উদ্যোগে উপজেলা ৮টি ইউনিয়নের ৩শ ৬০ পরিবারের মধ্যে ৫ কেজি চাল, ২ কেজি পেয়াজ, ২ কেজি আলু, ২ কেজি লবন, ১লিটার সোয়াবিন, ১ কেজি মুশুরী ডাল, ও ১টি করে সাবান বিতরণ করেন।


খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে এমপি মোকাব্বির খান বলেন, আমি অসুস্থ্য থাকায় কিছুদিন হাসপাতাল ও ঘরে চিকিৎসাধিন ছিলাম। তাই ঘর থেকে বের হতে পারিনি। আজ এই প্রথম আমি ঘর থেকে বের হয়েছি এবং আপনাদের প্রতি আমার দায়বদ্ধতা ও ভালবাসার টানে আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়েছি। আজ বাংলাদেশ এবং সমগ্র বর্হিবিশে^ কারোনা ভাইরাসে মানুষ আতংকিত যার প্রভাব থেকে বিশ^নাথ ওসমানীনগরও ব্যতিক্রম নয়। তাই আপনাদের এই দুর্দিনে আমি এবং আমার পরিবারের পক্ষ থেকে সামান্য কিছু খাদ্য সামগ্রী আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি। এভাবে আমি বিশ^নাথ উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের গরিব অসহায় মানুষের জন্যও নিয়ে যাব। আমি জানি এগুলো অত্যন্ত অপ্রতুল কিন্তু আপনাদের প্রতি আমার ভালবাসা এবং মমতা অসীম।
বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আফসানা তাসলিম, ওসমানীনগর থানার ওসি রাশেদ মোবারক, তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমরান রব্বানী, গোয়ালাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মানিক, সাদীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রব, পশ্চিম পৈলনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন গেদাই, উসমানপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মঈনুল আজাদ ফারুক, দয়ামীর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসটিএম ফখর উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন নুনু, গেয়ালাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হারুন মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবদাল মিয়া, উমরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চেরাগ আলী, আয়ামীলীগ নেতা খালিছ মিয়া এবং আব্দুল আজিজসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

এবার অসহায়দের পাশে গোলরক্ষক সোহেল
স্পোর্টস রিপোর্টার : প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রামণ রুখতে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির কারণে বর্তমানে ঘরবন্দি বাংলাদেশের সব মানুষ। অলিখিত লকডাউনে স্বচ্ছলরা স্বাভাবিকভাবে ছুটির দিনগুলো কাটালেও বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া দিন-মজুর অসহায় মানুষরা। ‘কাজ নেই তো খাবার নেই’। এমন পরিস্থিতিতে তাদের দিন কাটছে খুব কঠিন। ঘর থেকে বের হতে পারছেন না বলেই তারা কাজ পাচ্ছেন না। এতে জুটছে না তাদের মুখের আহার। শুধু তাই নয়, যাদের ঠিকানা রাস্তায় সেই গৃহহীন মানুষদেরও এখন প্রায় না খেয়েই দিন পাড় করতে হচ্ছে। তবে এই দূর্যোগের সময় অসহায় মানুষদের পাশে এসে দাড়াচ্ছেন সরকার প্রধান সহ দেশের বিত্তবান ও স্বচ্ছল ব্যক্তিরা। এ ধারাবাহিকতায় এবার অসহায়দের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল ও ঢাকা আবাহনী লিমিটেডের গোলরক্ষক মো. শহিদুল আলম সোহেল।

ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর বাংলাদেশে প্রিমিয়ার লিগ বন্ধ। স্থগিত জাতীয় দলের খেলাও। তাই ছুটি পেয়ে সোহেল ফিরে গেছেন নিজ জেলা চট্টগ্রামের পতেঙ্গায়। অখন্ড অবসরে এখন তার সময় কাটছে ঘরের কাজে স্ত্রীকে সহযোগিতা এবং দেড় বছর বয়সী ছেলের সঙ্গে খুনসুটি করেই। তবে সোহেল জানান, পতেঙ্গার ব্যস্ত জীবনের চাকা প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস পুরোপুরি থামাতে না পারলেও থমকে দিয়েছে খেটে খাওয়া দিন-মজুর ও রাস্তায় থাকা গৃহহীন অসহায় মানুষদের জীবন। এই অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন তিনি। স্থানীয় কিছু বড় ও ছোট ভাইদের সংগঠন ‘এক টাকার ফান্ড’ এর সঙ্গে যুক্ত আছেন জাতীয় দলের ২৯ বছর বয়সী এই গোলরক্ষক। এই সংগঠনের মাধ্যমেই অসহায় মানুষদের এক বেলার খাবারের সংস্থান করছেন সোহেল। প্রতিবেদন না লেখার শর্তে তিনি মঙ্গলবার বলেন,‘এই দূর্যোগের সময় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তায় থাকা মানুষগুলো। অনেকে আছেন দিন আনেন দিন খান। ভিক্ষুক এবং পাগলও আছে এই তালিকায়। যারা বর্তমানে খুবই কষ্টে আছে। আমাদের মহল্লায় কিছু বড় ও ছোট ভাইদের একটা সংগঠন আছে ‘এক টাকার ফান্ড’ নামে। ওই সংগঠনের মাধ্যমে আমি চেষ্টা করছি অসহায়দের জন্য কিছু করার।’ সোহেল আরো বলেন,‘পতেঙ্গায় সব গার্মেন্টস বন্ধ হয়নি। এখনো বেশ কিছু গার্মেন্টস খোলা আছে। তাই দেশের অন্য স্থানের মতো নীরব নয় আমাদের এলাকা। তবে এখানকার দোকানপাট সব বন্ধ। রাস্তার পাগলগুলো বা রাস্তায় ঘুমানো মানুষগুলো খাবার পাচ্ছে না। গত পাঁচ-ছয়দিন ধরে ওদেরকে আমরা একবেলা খাবার দিচ্ছি। প্রতিদিন এক থেকে দেড়শ মানুষকে খাবার দিচ্ছি আমরা। এটা হয়তো বেশি কিছু না। আমরা নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী চেষ্টা করে যাচ্ছি অসহায়দের সহযোগিতা করার। এসব কথা আমি আসলে বলতে চাই না। এর আগে কাউকে বলিও নাই। এগুলো নীরবে করতেই ভালো লাগে আমার।’

আবাহনীর গোলরক্ষক যোগ করেন,‘সবকিছুর মধ্যে নিয়ম মেনেই আমি ঘরে থাকছি। ছেলেকে সময় দিচ্ছি। বউ সংসারের কাজে ব্যস্ত থাকে। আর আমি ছেলের কাজ করি। ওকে গোসল করাই, খাওয়াই, কাপড়-চোপড় পরিয়ে দেই। এরই মাঝে সুরক্ষিত অবস্থায় সময় করে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি। বাইরে অনুশীলন করার সুযোগ নেই, তাই ফিটনেস ধরে রাখার জন্য ঘরেই হালকা অনুশীলন করছি। তবে মাঝে মধ্যে দৌড়াতে একটু বাইরে বেরুচ্ছি। অবশ্য তখনও গ্লাভস, মাস্ক পরে।’

অসহায়দের খাবার দিলেন থ্রোবল খেলোয়াড় ঝর্ণা

স্পোর্টস রিপোর্টার : করোনাভাইরাস আতঙ্কে বাংলাদেশে সবকিছু বন্ধ থাকার কারণে বর্তমানে মহা বিপাকে আছেন খেটে খাওয়া দিন-মজুর অসহায় মানুষগুলো। কাজ নেই, তাই নিজের এবং পরিবারের একবেলার আহার যোগাতেই হিমশিম খাচ্ছেন তারা। যদিও সরকারের পাশাপাশি দেশের বিত্তবান ও স্বচ্ছল ব্যক্তিরা অসহায়দের সহযোগিতা করছেন। যে যেভাবে পারছেন দেশের হত দরিদ্র ও অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। তারপরও নানা কারণে অনেকেই থাকছেন এই সহযোগিতার বাইরে।

দেশের অন্যসব জায়গার মতো ক্রীড়াঙ্গনের মানুষরাও চেষ্টা করে যাচ্ছেন অসহায়দের সাহায্য সহযোগিতার জন্য। কেউ করছেন সংগঠনের মাধ্যমে, কেউ বা ব্যক্তিগতভাবে। এই তালিকায় এবার যুক্ত হলেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী থ্রো-বল দলের অধিনায়ক ঝর্ণা আক্তার। তিনি মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুর এলাকায় অসহায় ২০০ পরিবারের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন। মিরপুর-১ সেক্টরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের হরিরামপুর গোলারটেকে ঝর্ণা অসহায় পরিবারগুলোর মাঝে চাল, ডাল, আলু, পেয়াজ ও সাবান বিতরণ করেন।

এ প্রসঙ্গে ঝর্ণা বলেন,‘করোনাভাইরাস আতঙ্কের মধ্যে আমরা যদি যে যার অবস্থানে থেকে গরীব ও অসহায় মানুষদের পাশে এসে দাঁড়াই তাহলে সমস্যা প্রকট হয়ে দেখা দিবে না। আমি সবাইকে অনুরোধ করবো, যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়া দিনমজুর ও খেটে খাওয়া অসহায় মানুষগুলোর পাশে থাকার জন্য।’

মতলবের কর্মহীন ও দরিদ্র ২৫০ পরিবারের মাঝে ৬০ মন আলু বিতরণ
মতলব উত্তর (চাঁদপুর) উপজেলা সংবাদদাতা : করোনা ভাইরাসেরর কারনে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার অসংখ্য পরিবার আজ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। উপজেলার সুজাতপুর এলাকায় সেই কর্মহীনদের মধ্যে ২৫০ পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে ৬০ মণ আলু বিতরণ করলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক আলহাজ্ব কাজী মোজাম্মেল হক।


মঙ্গলবার সুজাতপুর বাজারস্থ নিজ বাড়ি থেকে কর্মহীন ও দরিদ্র ২৫০ পরিবারের প্রত্যেকের হাতে ১০ কেজি করে আলু তুলে দেন কাজি মোজাম্মেল হক। এ সময় বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে দরিদ্র অসংখ্য মানুষ আজ কর্মহীন। এই কর্মহীন মানুষদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়া আমাদের দায়িত্ব। আর সেই দায়িত্ববোধ থেকেই আমি ২৫০ পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে আলু দিয়ে সামান্য সাহায্য করলাম। দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াানো আমার অভ্যাস, আমি সব সময় দরিদ্রদের পাশে সাহায্য নিয়ে দাঁড়াাই।
কর্মহীন ও দরিদ্রদের মাঝে আলু বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন মতলব উত্তর উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শামসুজ্জামান ডলার, ব্যবসায়ী মেহেদী হাসান ইমু, মতলব উত্তর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আখতারুজ্জামান সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

মাগুরায় সংসদ সদস্য শিখরের চিকিৎসা ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
মাগুরা থেকে স্টাফ রিপোর্টার : মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. সাইফুজ্জামান শিখর মঙ্লবার বিকালে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্কীনিং এন্ড আইসোলেশন কর্নার এবং পুরুষ ও মহিলা ওয়ার্ড পরিদর্শন করেন । এ সময় তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রঈস উজ্জামানের হাতে থার্মাল স্কানার (কপালের সামনে ধরলেই জ্বর মাপা যায়) সহ বিভিন্ন চিকিৎসা উপকরণ প্রদান করেন ।

উপজেলা চেয়ারম্যান মিয়া মাহমুদুল গনি শাহিন, অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক ও নাকোল ইউপি চেয়ারম্যান হুমাউনুর রশিদ মুহিত, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান স্বপন, দারিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন কানন এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া তিনি ১ হাজার পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।

এমপি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র অর্থায়নেগৌরনদীতে ত্রাণ বিতরণ
গৌরনদী (বরিশাল) উপজেলা সংবাদদাতা : বরিশাল-১ (গৌরনদী-আগৈলঝাড়া) আসনের এমপি আলহ্জ্বা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্’র অর্থায়নে বরিশালের গৌরনদীতে নিন্ম আয়ের ২ শতাধিক পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাল, ৫ কেজি আলু ও ২ কেজি করে ডাল বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এ ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এমপি আবুল হাসানাতের পক্ষে ত্রাণ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এইচ.এম জয়নাল আবেদীন, সাধারন সম্পাদক পৌর মেয়র মোঃ হারিছুর রহমান, সাবেক সহ-সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত জাহান, খাঞ্জাপুর ইউপির চেয়ারম্যান নুর-আলম সেরনিয়াবাতসহ আ’লীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

সিলেটের পুলিশ সুপারের উদ্যোগে বেদে পল্লীতে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
সিলেট ব্যুরো: সীমান্তবর্তী জৈন্তাপুরে দিনমজুর, অসহায় ও দরিদ্র পরিবার এবং বেঁদে পরিবারের সদস্যদের খাদ্য ত্রান সামগ্রি পৌঁছে দিয়েছেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। মঙ্গলবার দুপুরে থানা প্রাঙ্গণে উপজেলার দুইশ দিনমজুর, অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের সদস্যদের হাতে বিতরণ করেন নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য উপকরণ। বিকেলে উপজেলার সারি ঘাটে অর্ধশত বেদে পরিবারের সদস্যদের হাতে বিতরণ করা হয় খাদ্য উপকরণ। জেলা পুলিশ সূত্র জানায়, সিলেটের পুলিশ সুপারের কল্যাণ তহবিল থেকে এসব খাদ্য উপকরণ বিতরণ করা হয়। দুপুরে জৈন্তাপুর থানা প্রাঙ্গনে উপজেলার গরীব-অসহায়, দিনমজুর দুইশ পরিবাকে খাদ্য উপকরণ দেওয়া হয়। পরবর্তীতে বিকেলে উপজেলার সারি ঘাটে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন নিজে উপস্থিত থেকে অর্ধশত পরিবারকে খাদ্য চাল, ডাল, আলু, পেয়াজ, সাবান ও তেল সামগ্রি বিতরণ করেন। এর আগে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জীবাণুনাশক স্প্রে ও পথচারী এবং যানবাহন চালকদের কাছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুবুল আলম, জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিকসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

অসহায়-দিনমজুরদের ‌বাহাউদ্দিন নাছিম ফাউন্ডেশনের খাদ্য সহায়তা
স্টাফ রিপোর্টার : করোনাভাইরাসের কারণে মাদারীপুর জেলায় কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র,অসহায় ও দিনমজুর ৪০০০ পরিবারের মাঝে বাহাউদ্দিন নাছিম ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে চাল-ডাল-আটা-আলু-তেল ও সাবান ইত্যাদি ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দিনভর মাদারীপুর পৌরসভার মেয়র, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ খালিদ হোসেন ইয়াদের সার্বিক তত্বাবধানে এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। পরে আরও ২ হাজার গরীব ও দুস্থ মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে বলেও জানা যায়।

এসময় মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবু কাজল কৃষ্ণ দে, জেলা যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন খান নাঈম, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত) বায়জিদ আহমেদ হাওলাদার সহ সকল সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।

করোনা মোকাবেলায় ইতিপূর্বে মাদারীপুর সদর ও কালকিনি উপজেলায় ছয় হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে জেলার বিভিন্ন উপজেলাও দেয়া হবে। ফাউন্ডেশনের নির্দিষ্ট একটি কক্ষ ল্যাব হিসেবে ব্যবহার করে প্রায় পঞ্চাশ হাজার স্যানিটাইজার তৈরি করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, করোনাভাইরাসের মহামারিতে বিশ্ব থমকে গেছে। এতে অর্থনীতির ওপর চাপ পড়েছে। যার প্রভাব পড়েছে নিম্ন আয়ের দরিদ্র মানুষের ওপর। তাদের আয় বন্ধ হয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, এর আগে আমি ব্যক্তিগত উদ্যোগে আমার সামর্থ্য অনুযায়ী দরিদ্র মানুষকে সহযোগিতা করেছি। এখন ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে গরীব ও দুস্থ মানুষদের সহায়তা দেয়া হচ্ছে, পর্যায়ক্রমে আরও দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা রাজনীতি করি গণমানুষের জন্য। তাই তারা যখন বিপদে পড়েছেন, সংকটে পড়েছেন রাজনীতিবিদ হিসাবে তাদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের কর্তব্য মনে করি। এই সংকটে বিত্তবানদের দরিদ্র মানুষদের সহযোগিতা করার জন আহ্বান করছি।

শরণখোলায় বিএনপির খাদ্য পেল করোনায় কর্মহীন ২০০মানুষ
শরণখোলা (বাগেরহাট) উপজেলা সংবাদদাতা : বাগেরহাটের শরণখোলায় করোনার প্রভারে কর্মহীন নি¤œ আয়ের মানুষ ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে বিএনপির পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। জেলা বিএনপির সদস্য কাজী খায়রুজ্জামান শিপনের অনুদানের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের দুইশ জনতে এ খাদ্য দেওয়া হয়।


উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে খাদ্য বিতরণকালে জেলা বিএনপির সাবেক বন ও পরিবশে সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পঞ্চায়েত, উপজেলা বিএনপি সহসভাপতি ফজলুল হক তালুকদার, ডা. শফিকুল ইসলাম বাবুল, বিএনপি নেতা নাজমুল আহসান শিমুল গাজী, মিজানুর রহমান মোল্লা, সাগর আক্তার, ছাত্রদল নেতা মো. সাইফুল ইসলাম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
বিএনপি নেতা শিমুল গাজী জানান, উপজেলার চারটি ইউনিয়নের মধ্যে প্রথম পর্যায় শুধুমাত্র রায়েন্দাতে ২০০ মানুষকে পাঁচ কেজি করে চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি আলু, একটি সাবান ও একটি করে মাস্ক বিতরণ করা হয়। পর্যায়ক্রমে বাকি তিনটি ইউনিয়নেও একই পরিমান খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে।

কেরানীগঞ্জে বড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রান পৌছে দিলেন এসিল্যান্ড
কেরানীগঞ্জ(ঢাকা)উপজেলা সংবাদদাতা : ঢাকার কেরানীগঞ্জে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খেটে খাওয়া মানুষের হাতে ত্রান পৌছে দিলেন কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল(দক্ষিন) এর এসিল্যান্ড সানজিদা পারভীন ।

 

তিনি আজ মঙ্গলবার(৩১মার্চ) সকালে কলাতিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের সহায়তায় সৈয়দপুর গ্রামে দুই’শ খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষের মাঝে এই ত্রান বিতরন করেন। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন কলাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তাহের আলী ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল বারেক প্রমুখ। কলাতিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সৈয়দপুর গ্রামের খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষগুলো জানান,এভাবে তারা ত্রান পেয়ে খুবই খুশি। তারা ভাবতেও পারেনি এভাবে কোন কর্মকর্তা তাদের বাড়ি এসে তাদের হাতে ত্রান পৌছে দিবে।কলাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তাহের আলী জানান,সরকারি ও তার ব্যক্তিগত অনুদানে এসব খাদ্য সামগ্রী খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষদের মধ্যে বিতরন করা হয়েছে। বিতরনকৃত এসব খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল জনপ্রতি ৫কেজি চাউল, ১কেজি ডাল,২কেজি আলু ও ১টি সাবান।
এব্যাপারে কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল (দক্ষিন)সহকারী কমিশনার(ভূমি) ওনির্বাহী শ্যাজিস্ট্রেট (এসিল্যান্ড) সানজিদা পারভীন জনান,সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের নিজনিজ উদ্যোগে অসহায় দিনমজুর খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষদের সহযোগিতা করার জন্য এগিয়ে আসতে হবে।

 

নেত্রকোনায় কর্মহীন গরীব মানুষের মাঝে জেলা যুবলীগের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

নেত্রকোনা জেলা সংবাদদাতা : প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের কারণে ঘরে থাকা কর্মহীন, হত-দরিদ্র, নিন্ম আয়ের মানুষদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ নেত্রকোনা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।


মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে নেত্রকোনা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে নেত্রকোনা জেলা যুবলীগের আহবায়ক মাসুদ খান জনি, যুগ্ম আহবায়ক জামিউল ইসলাম খান জামি ও যুগ্ম আহবায়ক দেওয়ান রনি’র নেতৃত্বে যুবলীগের নেতাকর্মীরা প্রায় দুই শতাধিক অসহায় গরীব মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।
জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক দেওয়ান রনি সাংবাদিকদের জানান, বিতরণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে, চাল, ডাল, তেল, আলু, মাস্ক ও সাবান। এ সময় জেলা যুবলীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

করোনাভাইরাস : শতাধিক হতদরিদ্র পরিবারে পাশে চাটখিল থানার ওসি

নোয়াখালী ব্যুরো : করোনা ভাইরাসের কারনে সংকটময় পরিস্থিতিতে নিজ উদ্যোগে শতাধিক হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরন করেছেন চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ারুল ইসলাম।

মঙ্গলবার দিনব্যাপী চাটখিল উপজেলার পরকোট, বদলকোট, পাঁচগাঁও, মোহাম্মদপুর, নোয়াখলা, খিলপাড়া, রামনারায়নপুর, শাহাপুর, হাটপুকুরিয়া ইউনিয়নের ৮১টি ওয়ার্ডে ও পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে এ ত্রাণ বিতরন করেন তিনি।

এ সময় চাটখিল থানার অফিসার, পুলিশ সদস্য ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের ইউপি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মঠবাড়িয়ায় করোনা সতর্কতায় কর্মহীনদের মাঝে সরকারী খাদ্য সহায়তা প্রদান

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় করোনা ভাইরাস সতর্কতায় উপজেলার ১১ইউনিয়নে কর্মহীন প্রান্তিক মানুষের মাঝে সরকার খাদ্য ও অর্থ সহায়তা দিয়েছেন। মঙ্গলবার দিনব্যপী বেতমোর রাজপাড়া ও বড়মাছুয়া ইউনিয়নে দুস্থ্যদের মাঝে দূরত্ব বজায় রেখে চাল ও নগদ টাকা বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন আকন, নাছির উদ্দিন হাওলাদার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিলন তালুকদারসহ ইউপি সদস্যরা।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিলন তালুকদারসহ জানান, উপজেলার বেতমোর ইউনিয়নে ১১৩ জনকে ১০ কেজি চাউল ও ১৬ জনকে নগদ ৩শ’ টাকা ও বড়মাছুয়া ইউনিয়নে ৬৬ জনকে ১০ কেজি চাউল ও ১০ জনকে ৩শ’ টাকা নগদ অর্থ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এ সহযোগিতা প্রদান করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রিপন বিশ^াস জানান, করোনাভাইরাসে দুর্যোগকালীন কর্মহীন দুস্থ্যদের মাঝে সরকারী এ খাদ্য সহায়তা প্রদান অব্যহত থাকবে।

 

পটুয়াখালীতে পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন।

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা : করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় সরকারি ত্রাণ ভান্ডার থেকে পটুয়াখালীতে পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য দ্রব্য চাল, আলু, ডাল, মাস্ক, সাবান বিতরন করেছে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসন।
আজ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে পৌরবাস র্টামিনালে পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরী। এ সময় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, বাসও মিনিবাস মালিকবৃন্দ, সাংবাদিক এবং পরিবহন শ্রমিকরা উপস্থিত ছিলেন।


জেলা প্রশাসক মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ সংক্রমন প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় সরকারি ত্রাণ ভান্ডার থেকে, পটুয়াখালী সদর উপজেলায় ৩১০০ অসহায় দিনমজুর, নিম্ন আয়ের নারী পুরুষের কাছে খাদ্য দ্রব্য চাল, আলু ডাল, তেল, পেয়াজ, সাবান ও মাস্ক পৌছে দেয়া হয়েছে ।

 

আ.লীগ নেতা শাহাবুদ্দিন ফরাজি’র উদ্যোগে খাদ্য পেল ৫’শ পরিবার
স্টাফ রিপোর্টার : মাদারীপুর সদর উপজেলার কালিকাপুরে ৫০০ পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দিলো আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজি।

করোনা ভাইরাসের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হওয়ায় মাদারীপুর সদর উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নসহ পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন ইউনিয়নের এলাকার মানুষ কর্মহীন অবস্থায় গৃহহীন। প্রতিদিনই বিভিন্ন জনের দেওয়া খাদ্য সামগ্রীর জন্যে অপেক্ষা করতে হয় তাদের।

মঙ্গলবার সকালে এই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান শাহাবুদ্দিন ফরাজি৷ বিতরণকৃত খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল ১০ কেজি চাল, ২ কেজি ডাল, ৪ কেজি আলু, ১ লিটার তেল, লবন ও হাত ধোঁয়ার সাবান সহ কিছু ঔষধপত্র।

এসময় শাহাবুদ্দিন ফরাজি বলেন, আওয়ামী সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী আমরা সাধ্যমতো মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। সমাজের বিত্তবান মানুষেরাও বিবেকের তাড়নায় যেন এই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ায়।

 

স্থানীয় এমপি ৩হাজার, জাহাঙ্গীর তারেক ৩২০ ও পিকেপি ২০০ পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দিলেন
সখিপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা : টাঙ্গাইল-৮(সখিপুর-বাসইল) আসনের এমপি এ্যাড.জোয়াহেরুল ইসলাম ভিপি জোয়াহের সখিপুর ও বাসাইল উপজেলায় নিজস্ব তহবিল থেকে ৪লাখ টাকার খাদ্যসামগ্রী ৩হাজার খেটে খাওয়া কর্মহীন মানুষের মধ্যে বিতরন করার উদ্যোগ নিয়েছেন। এর মধ্যে সখিপুর উপজেলায় ১২শত ও বাসাইল উপজেলায় ১৮শত কর্মহীন মানুষের মধ্যে বিতরন করা হবে। এ উপলেক্ষে মঙ্গলবার প্রতিজনকে ০৮ কেজি চাল ০২ কেজি করে আলু ও ডাল দিয়ে সখিপুর-বাসাইল উপজেলায় খাদ্যসামগ্রী বিতরনের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এছাড়া টাঙ্গাইলের সখিপুরে বাংলাদেশ বিমানবাহিনী পাহাড়কাঞ্চনপুর ঘাঁটি(পিকেপি)এর পক্ষ থেকে দুইশত নি¤œ আয়ের মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৩১মার্চ) সকালে উপজেলার নলুয়া বাজারে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। পাহাড়কাঞ্চনপুর ঘাঁটির এয়ার অধিনায়ক এয়ার কমোডোর মো. মনজুর কবীর ভূঁইয়া এ ত্রাণ বিতরণ করেন।

প্রতিজনকে দেওয়া খাদ্য সামাগ্রীর মধ্যে ছিলো ৫ কেজি চাল, ১ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি পেয়াজ, কমলা, লেবু ও সাবান। এসময় স্কোয়াড্রন লিডার দেলোয়ার হোসেন, কর্মচারী পরিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকমান হোসেন ও স্থানীয় চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। এর আগে বিমানবাহিনী পাহাড়কাঞ্চনপুর ঘাঁটির উদ্যোগে জীবাণুনাশক ছিটানো হয়। সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার আবদুল আওয়াল মন্ডল জানান, এর আগেও (২৬মার্চ) আমরা ত্রাণ বিতরণ করেছি এবং এ বিতরণ অব্যাহত থাকবে। এদিকে টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সখিপুর পৌরসভার মেয়র পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর তারেক এর ব্যক্তিগত উদ্যোগে (৩১ মার্চ) মঙ্গলবার দিনব্যাপী সখিপুর পৌর এলাকার নয়টি ওয়ার্ডে বসবাসরত ভ্যান-রিক্সা চালক, দিনমজুর, পরিবহন শ্রমিক, চা-দোকানি সহ ৩২০ পরিবারের জনসাধারণের মাঝে জরুরী খাদ্য সামগ্রী (চাল,ডাল,আলু,লবণ) বিতরণ করা হয়। পৌর এলাকার ৭নং ওয়ার্ড উপজেলা হল রুমে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন টাঙ্গাইল-৮(সখিপুর-বাসাইল) আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম ভিপি জোয়াহের, এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) আসমাউল হুসনা লিজা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুতুবউদ্দিন আহমেদ, সখিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আমির হোসেন, বিআরডিবির চেয়ারম্যান কে বি এম রুহুল আমিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এসময় এমপি ভিপি জোয়াহের কভিড-১৯ নোভেল করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় যারা কর্মহীন মানুষদের খাদ্যসামগ্রী দিয়ে সহযোগিতা করেছেন তাদের সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং এ ত্রান বিতরন অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

 

স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে বিশেষ নিরপত্তা পোশাক বিতরন করেছে এমপি মহিব
কলাপাড়া(পটুয়াখালী) সংবাদদাতা : পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে নিরপত্তা উপকরন (পিপিই) বিতরন করছে পটুয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ অধ্যক্ষ মহিব্বুর রহমান মহিব এমপি।

মঙ্গলবার দুপুরে তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা চিন্ময় হাওলাদারের হাতে এসব সামগ্রী তুলে দেন। এসময় তার সহধর্মীনি অধ্যক্ষ ফাতেমা আক্তার রেখাসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মো.শহিদুল হক, পৌর মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোতালেব তালুকদার উপস্থিত ছিলেন।
এমপি তার নিজ তহবিল থেকে করোন ভাইরাস প্রার্দুভাব মোকাবেলায় স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য এক’শ পিচ বিশেষ নিরপত্তা পোষাক ও একশ পিচ ফেইস মাক্স প্রদান করা হয় বলে জানা গেছে।
এর আগে তিনি খেটে খাওয়া নি¤œ আয়ের শ্রমজীবি শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেন।

সুন্দরগঞ্জে নৌকা ফাউন্ডেশনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা)উপজেলা সংবাদদাতা : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শ্রমজীবী কর্মহীন মানুষের মাঝে নৌকা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।


মঙ্গলবার(৩১ মার্চ) সকাল ১১ টার দিকে উপজেলা ডাকবাংলো মাঠে নৌকা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য এমদাদুল হক নাদিম খাদ্য সামগ্রী হিসেবে ২০০ কর্মহীনের মাঝে চাল, আলু ও বেগুন বিতরণ করেন। এসময় ফাউন্ডেশনের সদস্য উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য সুজাউদৌলা পামেল,সদস্য মাহালম মিঞা, গনেশ চন্দ্র শীল, পিন্টু কুমার সরকার, শাহিদুল ইসলাম ও ছাত্রলীগের উপজেলা সভাপতি সাইফুল ইসলাম ফরহাদসহ স্থানীয় সুধিজন উপস্থিত ছিলেন।

 

টাঙ্গাইলে শ্রমজীবী, দুস্থ, প্রতিবন্ধীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা : টাঙ্গাইল জেলা যুবদলের উদ্যোগে শ্রমজীবী, দুস্থ্য, অসহায়, প্রতিবন্ধী মানুষের মাঝে ত্রাণ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দিনভর বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে তারা এই ত্রাণ তৎপরতা চালান। জেলা যুবদলের আহ্বায়ক আশরাফ পাহেলী, যুগ্ম আহ্বায়ক খ. রাশেদুল আলম, আব্দুল্লাহেল কাফী, মাহমুদুল হাসান টিটনসহ বিভন্ন পর্যায়ের নের্তৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে এই ত্রাণ প্রদান করেন।

শহরের নিরালা মোড়, মেইন রোড, আদি টাঙ্গাইল, আশেকপুর, বেপারী পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকার হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ দেওয়া হয়। এতে প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষের মাঝে ত্রাণ সহায়তা হিসেবে চাল, ডাল, লবন, সাবানসহ বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এসময় যুবদল নের্তৃবৃন্দ জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারিতে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশও একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। কাজ-কর্ম হারিয়ে খেটে খাওয়া মানুষগুলো মানবেতর জীবন-যাপন করছে। প্রাকৃতিক এই দূর্যোগে এসব অসহায় মানুষের পাশে দাড়াতে বিএনপি’র চেয়ার পার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে কেন্দ্রীয় যুবদ



 

Show all comments
  • Khokon ৩১ মার্চ, ২০২০, ৫:৪২ পিএম says : 0
    It's good to hear people are giving their hands when there is some disasters. It's important when people suffering, somebody extend their hands to others. Important also, because the new generations will see and learn how people comes forward when someone need help and in future the will too follow their forefathers way. But in this case, we have to see some people's activity too. Some people comes forward b'cos they need to put their face in camera, TV,news papers and in public society that they want to be leader for their wishness future political....? Good idea their contributions we need ! But at the same time, we need to see and careful where does from comes this money ? Is it stealing money or governments money or his own (labour)money ? If it is stealing money then this contibutions could make him more steal ? Because this contibutions can make him some afecctionate from institutes or persons which could give him chance more to steal. If it is government money then there is no credit for him, only he is distributing state money to the states people. So no need to much appreciate him, so no need put in camera or TV case ? But if it is his own sweating money, he should be approciate by people. And we can put him in TV box,in camera and could do other publicity ? But in this society how many people we can get ?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ