Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

করোনাবিরোধী লড়াইয়ে ফলদায়ক লকডাউন

ব্রিটেনের প্রধান বিজ্ঞানীর দাবি

ইভিনিং স্ট্যান্ডার্ড | প্রকাশের সময় : ১ এপ্রিল, ২০২০, ১২:০০ এএম

ইংল্যান্ডের প্রধান বৈজ্ঞানিক পরামর্শদাতা বলেছেন, বরিস জনসন এক সপ্তাহ আগে ব্রিটিশ জনসাধারণকে ‘বাড়িতে থাকতে’ নির্দেশ দিয়েছেন এবং ইতোমধ্যে লকডাউন ব্যবস্থা ফল দিতে শুরু করেছে।

স্যার প্যাট্রিক ভ্যালেন্স সোমবারের করোনভাইরাস নিউজ ব্রিফিংয়ে বলেন যে, শারীরিক দূরত্বের ব্যবস্থাগুলি ইতোমধ্যে ‘একটি পার্থক্য তৈরি করছে’ এবং কোভিড-১৯ মহামারির বিস্তার হ্রাস পাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থা প্রতিদিন প্রায় এক হাজার অতিরিক্ত রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করছে। প্রতিদিনের বৃদ্ধির বিষয়টি স্যার প্যাট্রিক ‘স্থিতিশীল’ হিসাবে বর্ণনা করেছেন। প্রায় ৯ হাজার কোভিড-১৯ রোগী বর্তমানে ইংল্যান্ডের হাসপাতালে চিকিৎসা করছেন, যা গত শুক্রবার ছিল ৬ হাজার ২০০ জন। জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান স্যার সাইমন স্টিভেনস জানিয়েছেন, হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৯ হাজার জন রোগী রয়েছেন।

ডাউনিং স্ট্রিটে সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি ভর্তির হার সম্পর্কে বলেছিলেন, ‘এটি দেখায় যে, এটি ক্রমবর্ধমান পরিমাণে নয় বরং একটি ধ্রুবক পরিমাণে বৃদ্ধি পাচ্ছে যা বোঝাতে পারে যে, আমরা ইতোমধ্যে কিছু প্রভাব দেখতে শুরু করেছি’।

‘আমি আশা করি যে এই সংখ্যাটি চালু থাকবে। আমি আশা করি লোকেরা প্রতিদিন আসবে, এটি কিছুটা উপরে যেতে পারে এবং দুই বা তিন সপ্তাহের মধ্যে আপনি প্রত্যাশা করতে পারেন যে, এটি স্থিতিশীল হবে এবং কিছুটা নিচে যেতে শুরু করবে’।

রোববারের ১২২৮ থেকে বেড়ে সোমবার যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের মৃত্যুর সংখ্যা ১৮০ বেড়ে ১,৪০৮-এ আসার পর তিনি এ মন্তব্য করেন।

দিনের শুরুতে রয়্যাল কলেজ অফ ফিজিশিয়ানসের (আরসিপি) প্রধান বলেছিলেন যে, ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের একচতুর্থাংশ ডাক্তার অসুস্থ বা আইসেলেশনে থেকে কাজ করছেন। জনস্বাস্থ্য ইংল্যান্ড (পিএইচই) আরও ঘোষণা করেছে যে, এখন দিনে প্রায় ১১ হাজার করোনভাইরাসের পরীক্ষা করা যেতে পারে।

অফিস অফ ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিক্স (ওএনএস) এই সপ্তাহে বৃহত্তর স¤প্রদায়ের, যেমন কেয়ার হোমস-এ কোভিড-১৯ এর সাথে যুক্ত মৃত্যুর পরিসংখ্যান প্রকাশ করবে। ওএনএস মৃত্যুর দিকে নজর দেবে যেখানে মৃত্যুর সার্টিফিকেটে কোভিড-১৯ উল্লেখ করা হয়েছিল যেখানে অন্যান্য স্বাস্থ্যগত অবস্থার মিল ছিল। এই পরিসংখ্যানগুলো কেবলমাত্র হাসপাতালে মৃত্যুর দিকে তাকানোর পরিবর্তে কতগুলি কমিউনিটি ডেথ করোনভাইরাসের সাথে জড়িত সে সম্পর্কে বিশদ তথ্য দিতে পারে। স্যার প্যাট্রিক বলেন যে, এই পরিসংখ্যানগুলো মৃত্যুর ‘অতিরিক্ত সংখ্যা’ যোগ করবে, তবে তা ‘ব্যাপক’ হবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ