Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৫ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

সারাদেশে ত্রাণ বিতরণ

নিম্নবৃত্ত শ্রমজীবীদের সহায়তা

ইনকিলাব রিপোর্ট | প্রকাশের সময় : ৪ এপ্রিল, ২০২০, ১২:০১ এএম

লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণ নিতে বিব্রতবোধকারীদের বাসায় ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হবে : সিনিয়র সচিব শাহ কামাল
করোনাভাইরাসের কারণে চলমান সাধারণ ছুটিতে কর্মহীন হয়ে পড়া সারাদেশের শ্রমিক, দিনমজুর ও নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ শুরু হয়েছে। এর আগে সরকার ছুটিতে ঘরে বসে থেকে করোনাভাইরাস যুদ্ধে সহযোগিতা করতে সবার প্রতি আহবান জানায়। তারও আগে ঘরেবসে থাকা শ্রমজীবীদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণের জন্য জেলা প্রশাসকদের তালিকা পাঠানোর নির্দেশনা দেয়া হয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন জেলা, উপজেলা এবং পৌরসভায় কর্মহীন নি¤œআয়ের মানুষের মধ্যে নগদ টাকা, চাল, ডাল, তৈল, আলু ও সাবান ত্রানসামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে। সমাজের অনগ্রসর, পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন সামাজিক কারণ যারা লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণ নিতে বিব্রতবোধ করেন অগ্রাধিকার ভিক্তিতে তাদের তালিকা তৈরি করতে।

সুত্র জানায় করোনা পরিস্থিতিতে ছুটিতে থাকা নি¤œবৃত্তদের সহায়তার লক্ষ্যে সারাদেশে ৪৮ হাজার ১১৭ মেট্রিকটন চাল ও নগদ এক কোটি ৯৪ হাজার ২৬৩ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় গত ২৪ মার্চ থেকে গতকাল ২ এপ্রিল পর্যন্ত ৬৪ জেলায় বিতরণের জন্য এসব সামগ্রী পাঠায়। মন্ত্রণালয় জানায় আরো এক হাজার মেট্রিকটন চাল প্রস্তুত রয়েছে।

ইনকিলাবের আঞ্চলিক অফিস, বুরো অফিস, জেলা, উপজেলা সংবাদদাতারা জানান, বিভিন্ন জেলায় কোথাও মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, কোথাও এমপি, কোথাও ডিসি-ইউএনও, কোথাও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, কোথাও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, কোথাও আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নি¤œআয়ের মানুষের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন।

চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, চট্টগ্রামে সরকারি বিভিন্ন সংস্থা এবং বিভাগও ত্রাণ তৎপরতা শুরু করেছে। তবে আছে সমন্বয়ের অভাব। অনেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এ নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনাও ঘটেছে।
শুরু থেকেই বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থা এদের সাহায্যে এগিয়ে আসে। আলহাজ্ব মোস্তফা হাকিম ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় সাবেক সিটি মেয়র এম মনজুর আলম ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বাংলাদেশ নৌবাহিনীর উদ্যোগেও প্রতিদিন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। ভূমি মন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এম এ লতিফ এমপি, দিদারুল আলম এমপি, কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম নিজ নিজ এলাকায় ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে এখনও অনেক এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান মাঠে নেই। বিরোধী দল বিএনপির নেতারাও সীমিত আকারে কোন কোন এলাকায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

যশোর ব্যুরো জানায়, সরকারি ত্রাণ ছাড়াও যশোরে ব্যাপকভাবে প্রতিটি এলাকায় ব্যক্তি, সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান গরীবদের মাঝে পর্যাপ্ত ত্রাণ বিতরণ করছে। জেলা প্রশাসক মুহাম্মাদ শফিউল আরিফ জানান, প্রতিটি এলাকায় এখনো জরিপ চলছে। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. সানোয়ার হোসেন জানান, প্রথমে ১শ’ ও পরে ১২২ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন পিপিএম, পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিন চাকলাদার, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুলসহ বিভিন্ন এলাকার রাজনৈতিক, সামাজিক নেতা, বিত্তশালী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানও মহাসংকটের দিনে ত্রাণ নিয়ে এগিয়ে আসছেন।

রাজশাহী ব্যুরো জানায়, রাজশাহী মহানগরীর কুড়ি হাজার শ্রমজীবী মানুষের জন্য সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের উদ্যোগে ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের মাধ্যমে চাল, ডাল, তেল, আলু বিতরণ করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসনও ৬০ হাজার মানুষের জন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণের কর্মসূচি নিয়ে মাঠে। এর বাইরে রয়েছে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বিভিন্ন দানশীল ব্যক্তি ও সংগঠনের মাধ্যমে খাদ্য বিতরণ। এদিকে সিটি কর্পোরেশনও গ্রাম পর্যায়ে অভিযোগ উঠেছে ত্রান নিয়ে বৈষম্যের। প্রকৃত হকদারদের কাছে না পৌছার। স্বজনপ্রীতি আর দলবাজীর অভিযোগের তীরও কম নয়। রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার বলেন, প্রচুর খাদ্যশস্য মজুদ রয়েছে। ছয়মাসেও শেষ হবেনা। এনিয়ে আতঙ্কিত হবার কোন কারন নেই।

বরিশাল ব্যুরো জানায়, বরিশালে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ছাড়াও সিটি করপোরেশনসহ পৌরসভাগুলোর পক্ষ থেকে সীমিত ত্রাণ বিতরই শুরু হয়েছে। বরিশাল সদর আসনের এমপি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী বরিশালে নিজ নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান করে সার্বিক কার্যক্রম তদরক করছেন। বরিশালের জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে সকলকে অসহায় মানুষের মাঝে সহায়তার আহবান জানিয়েছে। বরিশাল সিটি করপোরেশন কিছুটা বিলম্বে হলেও মহানগরীতে ত্রাণ বিতরন শুরু করেছে। বরিশাল মহানগর পুলিশ নগরীর ও অমৃত লাল দে শিল্প পরিবারসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও ত্রাণ বিতরণ করছে। তবে ত্রাণ বিতরণের এসব কার্যক্রম ‘বিলম্বিত পদক্ষেপ’ বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকে। পাশাপাশি এ কার্যক্রমকে আরো বেগবান করাসহ পরিধি বৃদ্ধিরও তাগিদ দেয়া হয়েছে।

নোয়াখালী ব্যুরো জানায়, নোয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে ১৩টি ইউনিয়নের ৫হাজার পরিবারকে চাল,ডাল, আলুসহ খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হয়েছে। খাদ্য সহায়তা বেশ কয়েক সপ্তাহ চলবে বলে উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন জেহান ইনকিলাবকে জানান। নোয়াখালী পৌরসভার ও পৌর মেয়র সহিদ উল্লা খান সোহেল, ও হাতিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ৫০শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তারদের জন্য পিপিইসহ মেডিকেল সরঞ্জাম ক্রয়ের জন্য সাবেক এমপি ও হাতিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৫লাখ টাকা প্রদান করেন।

ময়মনসিংহ ব্যুরো জানায়, ময়মনসিংহে গত ৪৮ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের ৩৩ টি ওয়ার্ডে এক মেট্রিন চাল ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের মাধ্যমে বিতরণ করা হয়েছে। বরাদ্দকৃত বাকি চাল ১৩ টি উপজেলায় প্রদান করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান। এছাড়াও পুলিশের ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি ব্যারিস্টার হারুণ অর রশিদ ও পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন।

খুলনা ব্যুরো জানায়, খুলনা সার্কিট হাউস চত্বরে সমাজের অনগ্রসর, পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। অন্যদিকে খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা, ডুমুরিয়া, রূপসা, দিঘলিয়াসহ বিভিন্ন উপজেলায় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনার লবণচরায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রশিক্ষণ ঘাঁটি স্কুল অফ লজিস্টিক অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট প্রাঙ্গণে নৌঅঞ্চলের আঞ্চলিক কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা ও বাস্তহারা এলাকায় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মোছা: হেনা এাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

বগুড়া ব্যুরো জানায়, বগুড়ার জেলায় ত্রাণ বিতরণ শুরু হয়েছে বলে জানান ত্রাণ কর্মকর্তা আজহার আলী মন্ডল। সরকারি এই বরাদ্দের বাইরে বগুড়ার চালকল মালিকরা জেলা প্রশাসনের ত্রাণ ভান্ডারে দান করেছিল ৫০ হাজার মেট্রিক টন চাল ও নগদ ৫ লাখ টাকা। এছাড়া বিভিন্ন সংসদ সদস্য এবং ব্যক্তি পর্যায়ে অনেকেই গরীব দুঃস্থ অসহায়দের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেছেন।

কক্সবাজার ব্যুরো জানায়, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের নেতৃতে দানশীল ব্যক্তিরা ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। একইভাবে কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল ও সামাজিক অনেক সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে কর্মক্ষম মানুষগুলোর কাছে ত্রাণ তৎপরতা চালাতে দেখা গেছে।

দিনাজপুর অফিস জানায়, দেশের এই সংকটময় মুহুর্তে ঘরবন্দি মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির সহযোগিতায় দিনাজপুরে তৃতীয় লিঙ্গ (হিজড়া) ও রবিদাস সম্প্রদায়সহ বিভিন্ন অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

বান্দরবান : বান্দরবানে উসিংহাই রবিন বাহাদুরের নেতৃত্বে দূর্গম পাহাড়ের বসবাসরত বিভিন্ন পল্লীর প্রতিটি পরিবারের ঘরে ঘরে খাদ্যশস্য পোঁছে দেয়ার কাজ করছেন।

বাগেরহাট : বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার ২‘শ ৪৭ ভিক্ষুকের বাড়িতে খাদ্য সহায়তা পৌচ্ছে দিয়েছে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. কামরুল ইসলাম। এদিকে, কাড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বশিরুল ইসলাম ও কাড়াপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের যুবলীগের সভাপতি শেখ মো. মুকিতের পক্ষ থেকে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।

ভোলা : ভোলাল লালমোহনের ত্রাণ বিতরণ করেন ইউএনও হাবিবুল হাসির রুমির

চাঁদপুর : চাঁদপুরের জেলায় ৪১ জনের মোটরসাইকেল চালনা গ্রæপ তৈরি করে তাদের মাধ্যমে থেকে বাড়ি বাড়ি ত্রাণ পৌঁছে দেয়া শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, স্কাউট ও রোভাররা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে প্যাকেট করা এবং খাদ্যপণ্য বাড়ি বাড়ি নিয়ে যাওয়ার কাজটি করছেন।

ঝালকাঠি : কর্মহীন মানুষকে খাদ্যসামগ্রী দিচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক তরুন কর্মকার, সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিল ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহŸায়ক রেজাউল কমির জাকির।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল, পুলিশ সুপার ড. এএইচ এম কামরুজ্জামান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যন মো. শাহাজান, ইউএনওশফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল, পৌর মেয়র আবু তাহের, উপজেলা চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন টিপুসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ পৃথক পৃথক ভাবে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যহত রেখেছেন।

মাদারীপুর : মাদারীপুর সদর উপজেলায় জেলা পরিষদের সদস্য ফারুক খানের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খান এমপি।

সাভার : সাভারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পারভেজুর রহমান বাড়ি গিয়ে চাল, ডাল পৌছে দিচ্ছেন।অধরচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কর্মহীন হয়ে পড়া ৫০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন ঢাকা জেলা পুলিশ।
ফেনী : জেলা প্রশাসন, র‌্যাব, ফেনী পৌরসভা,স্থানীয় এমপিসহ বিভিন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে। গতকাল সকালে ফেনী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সদর আসনের এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারী ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। পাশে স্কুলের গেইটের সামনে এক প্যাকেট ত্রাণের আশায় অপেক্ষমান বসা ছিলেন ৫০ জন গরীব অসহায় মানুষ। পরে তারা একজনও ত্রাণ সামগ্রী পাননি

মাগুরা : মাগুরা পৌর এলাকার ৯ নং ওয়ার্ডে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর।

টাঙ্গাইল : বাংলাদেশ সোশ্যাল ইমপাওয়ারম্যান্ট অর্গানাইজেশন (বিএসইও) এর উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়া গোবিন্দগঞ্জ(গাইবান্ধা) বিএনপির পক্ষথেকে, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে সাবেক উপজেলা পরিযদের চেয়ারম্যান ও শিল্পপতি মো. জহিরুল ইসলাম মবিন, বেনাপোল পৌর সভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন, কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে এমপি এ্যাড. সরওয়ার জাহান বাদশা, ঢাকার ধামরাই পৌর শহরের বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন, পিএফডিএ-ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টার ট্্রাস্ট এবং অ্যাঞ্জেল শেফ, পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর থানার ওসি মো.মনিরুজ্জামান, কাপ্তাই উপজেলায় রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ সদস্য প্রকৌশলী থোয়াইচিং মং মারমা, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে স্থানীয় জাতীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারীর ও আ’লীগ নেতা খয়বর হোসেন মওলার উদ্যেগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • Tareq Sabur ৩ এপ্রিল, ২০২০, ২:৩০ এএম says : 0
    All the reliefs are distributed to Awamileage, Chatro-Juboleague between them, very peacefully most of the times except for few occasions when Chatro-Juboleague did fighting between them. Bravo!!!
    Total Reply(0) Reply
  • আবীর চৌধুরী ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:০৯ এএম says : 0
    সরকারের উচিত একটি ঘোষণা দেওয়া ১ গ্যাস বিদ্যুৎ ও পানির বিল এই সময় ফ্রি থাকবে ২ বাড়ি ও দোকান মালিকরা ভাড়া ফ্রি করে দিবেন ৩ এই সময় কিস্তির টাকা নেওয়া যাবে না ৪ বড় বড় ব্যবসায়ীরা তাদের পণ্যের মূল্য কমিয়ে দিতে হবে এমন কিছু যদি বাস্তবায়ন করা যায় তাহলে কিছুটা হলেও সাধারণ মানুষ একটু বাচার সুযোগ পাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Kawsar Ahmed ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
    শুনলাম গত কয়েক দিনে সরকার ৩০ হাজার ৭০০ মেট্রিক টন চাল এবং ৮ কোটি ৮৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে! যদি গরীব দুঃখী অসহায় মানুষ গুলো না পেয়ে থাকে! তাহলে এগুলো কোথায় গিয়েছে!?
    Total Reply(0) Reply
  • Alim Hasan ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
    সব ধরনের সহায়তা সামরিক বাহিনীর মাধ্যমে জনগণকে সরাসরি প্রদানের জন্য সরকারকে অনুরোধ করছি....!!! নইলে সব দূর্নীতিবাজদের হাতে যাবে...!!!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Khairul Bashar ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
    এই ধরণের দুর্যোগ আমরা না চাইলেও আসতে থাকবে। ত্রাণ ব্যবস্থাপনায় সরকার আরো দক্ষতা আনতে না পারলে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী বড় রকমের দুর্ভোগে পড়ে যেতে পারে। জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে মনে হয় অনেক সুষ্ঠুভাবে ত্রাণ বিতরণ করা যেতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • Shoheli Hossain ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
    Government has to help them for three months. Only humanity help this times
    Total Reply(0) Reply
  • MD Akash Le ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
    ধনী গরীব বুজিনা,, লকডাউনে প্রতিটি ঘরে ঘরে খাদ্য দিয়ে আসেন। দেখবেন সবাই ঘরে থাকবে। বাহিরে বের হবেনা কোন সময়ও।
    Total Reply(0) Reply
  • Roy Subir ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
    সরকারের উচিৎ ছিল নিম্ন আয়ের মানুষদের কিছুদিনের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা, তাদের বাড়ীভাড়া মওকুফ করা, তাদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেয়া।
    Total Reply(0) Reply
  • Abir Jhalock ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
    নিম্নআয়ের মানুষের চেয়েও অনেক বেশি কষ্টে দিন পার করছে মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজন
    Total Reply(0) Reply
  • Ziared Rahman ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
    আসলে দেশের গরীব মানুষ গুলা এই লকডাউনের কারণে আরও বেশি গরীব হয়ে যাবে, আমাদের দেশের গরীব মানুষ গুলা কে সরকারি ভাবে ঋণ দেওয়া উচিৎ। তবে এই লকডাউনে প্রভাবশালীদের তেমন ক্ষতি হবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • আফিয়া তাসলিম ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
    শুধু নিম্ন আয়ের মানুষ না আর কয়েকটা দিন গেলে মধ্যবিত্তরাও সংকটে পরবে। মধ্যবিত্তরা লোকলজ্জার ভয়ে কারোর কাছে কিছুই চাইতেও পারবে না। এরকম একটি বিপর্যয় নেমে আসবে মানুষ ভাবতেও পারেনি। মানুষের পেঠে যদি ভাতই না থাকে স্বাস্থ্য সচেতনতা আর সামাজিক দূরত্ব দিয়ে কি করবে?
    Total Reply(0) Reply
  • HM Ali ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
    সরকারের প্রশাসন খুবই সচেতন হওয়া বিশেষ প্রয়োজন কেন না সরকার নিম্ম আয়ের মানুষের জন্য যে খাদ্যদ্রব্য ও নগদ টাকা দিচ্ছে তাহা সঠিক ভাবে বন্টন করা হচ্ছে কিনা তদারকির বিশেষ প্রয়োজন অন্যথায় রাখব বোয়ালেরা নিজের পেট ভর্তি করবে।
    Total Reply(0) Reply
  • নূরুল্লাহ ৩ এপ্রিল, ২০২০, ৯:২৫ এএম says : 0
    আমি ময়মনসিংহ ৮- ঈশ্বরগঞ্জের পশ্চিম অংশে আছি। চারপাশে গরীব নিম্ন আয়ের মানুষ গিজগিজ করছে। কিন্তু পরিতাপের বিষয় কোন ত্রাণ তৎপরতার লেশ দেখা যাচ্ছে না। দূরবর্তী উপজেলা পরিষদে লোকজনের যাওয়া সহজ মনে হয় না। অথচ সাহায্য পাওয়া তাদের মানবিক অধিকার। ধনী হওয়ার ইচ্ছা আমার মনে না জাগলেও আজকের দিনে ধনী হতে ইচ্ছে করছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ