Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৪ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

এপ্রিলেই শেষ হবে করোনাভাইরাসের বিস্তার: চীনা বিশেষজ্ঞ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ এপ্রিল, ২০২০, ১০:৫৫ এএম

করোনাভাইরাস মহামারি এপ্রিলের শেষ নাগাদা শেষ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন চীনের শীর্ষস্থানীয় শ্বাসতন্ত্রের রোগ বিশেষজ্ঞ ঝং নানশান। এর কারণ হিসেবে তিনি বলছেন যে, বিভিন্ন দেশের আগ্রাসী নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপ এবং উষ্ণ আবহাওয়ার কারণে ভাইরাসে সক্রিয়তা কমে আসবে।

তবে হংকংয়ের শীর্ষ একজন মহামারি বিশেষজ্ঞ বলেছেন, এ ধরনের কঠোর প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা বলবৎ থাকলেও আরও কয়েক মাস দাপিয়ে বেড়াবে করোনাভাইরাস। ঝংয়ের বক্তব্যের খণ্ডন করতে গিয়ে শুক্রবার এই পূর্বাভাস দেন হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গ্যাব্রিয়েল লুয়েং।

এশিয়া সোসাইটি অব হংকং আয়োজিত করোনাভাইরাস আপডেট ফোরামের একটি লাইভ-স্ট্রিমিংয়ের সময় লুয়েং বলেন, গরম আবহাওয়ার কারণে কী আমরা কিছুটা স্বস্তি পাবো? এর উত্তর হচ্ছে, সম্ভবত না।

চীনের শেনজেন টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ঝং এই আশাবাদের কথা জানান। তবে তিনি সতর্ক করে বলেছেন, এপ্রিলের পর কী ঘটবে, তা কেউ বলতে পারে না। হতে পারে আগামী বসন্তে আরেক দফায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়াতে পারে, অথবা পরিবেশের তাপমাত্রা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এটি বিলুপ্তও হয়ে যেতে পারে।

চীন সরকারের তথ্যানুযায়ী মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে পুরো দেশে স্থানীয় সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসতে শুরু করে। কিন্তু বিদেশফেরত ব্যক্তিদের মাধ্যমে এখন সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে চীনা কর্তৃপক্ষ বিদেশি নাগরিকদের দেশটিতে প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে। বিদেশফেরত চীনা নাগরিকদেরও বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • **হতদরিদ্র দিনমজূর কহে** ৪ এপ্রিল, ২০২০, ১১:৪৮ এএম says : 0
    এই মহামারী শেষ হয়ে যাক সেই কামনাই করি।সাথে সাথে বলতে চাই আমরা যেনো পাপাচার থেকে বিরত থাকি।সংবেদনশীল ও মানবতার পরিচয় দিতে বদ্ধপরিকর হই।
    Total Reply(0) Reply
  • Tafazzal gazl ৪ এপ্রিল, ২০২০, ২:৫২ পিএম says : 0
    Ok good
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন