Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৭ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক, লাইফ সাপোর্টের প্রয়োজন হতে পারে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫০ পিএম

ক্রমেই অবনতি ঘটছে করোনায় আক্রান্ত ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের শারীরিক অবস্থা। হাসপাতাল সূত্রের খবর, শ্বাসকষ্ট ক্রমেই বাড়ছে ৫৫ বছরের এই রাষ্ট্রনেতার। এবার ভেন্টিলেটর সাপোর্ট দেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।
উপসর্গ তীব্র হওয়ায় সোমবারই তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিকিৎসকদের উদ্বেগ বেড়েছে। তাই তাঁকে আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। কিন্তু পরিস্থিতির ক্রমে খারাপ হওয়া চিন্তা আরও বাড়াচ্ছে।
দিন সাতেক আগে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নিজেই এক ভিডিও বার্তায় জানিয়েছিলেন যে তাঁর শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। যদিও তখনও পর্যন্ত উপসর্গ ছিল মৃদু। তারপর থেকে বাড়িতেই আইসোলেশনে ছিলেন তিনি। কিন্তু রবিবার হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয় তাঁকে।
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, “রবিবার থেকে লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কারণ, শরীরে ভালরকম উপসর্গ ছিল। কিন্তু আজ দুপুরের পর থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। সেই কারণে তাঁকে হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে রাখা হয়েছে।”
আক্রান্ত অবস্থাতেও গত বৃহস্পতিবার তাঁকে তাঁর ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের বাসভবন থেকে এনএইচএস-এর এর স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশংসা করতে দেখা যায় এক ভিডিওতে। তার পর শুক্রবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে করোনা নিয়ে এক সরকারি বৈঠকেও দেখা যায় তাঁকে। শুক্রবারই এক টুইটার ভিডিওতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনার যে সব লক্ষণ সাধারণত দেখা যায়, সেগুলি তাঁর অল্প পরিমাণে আছে। কিন্তু রবিবারেও তাঁর জ্বর না কমায় জনসনকে লন্ডনের এক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
প্রধানমন্ত্রী জনসনের প্রেমিকা ক্যারি সেমন্ডস এখন সন্তানসম্ভবা। তিনিও করোনার অল্পস্বল্প লক্ষণ নিয়ে গত কয়েক দিন বাড়িতেই শয্যাশায়ী ছিলেন বলে টুইট করে জানিয়েছেন। কিন্তু তাঁর কোনও করোনা পরীক্ষা করা হয়নি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

৩১ মে, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন