Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৬ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

সাংবাদিকবান্ধব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঁচ প্রস্তাব

রিয়াজউদ্দীন আহমেদ | প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০২০, ১১:৫১ পিএম

নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রচলিত দুনিয়াকে অপরিচিত করে দিয়েছে। বিশ্বে হাজার হাজার লোকের মৃত্যু হচ্ছে। পাল্টে যাচ্ছে বৈশ্বিক অর্থনীতি। লাখ লাখ মানুষ কর্ম হারিয়ে বেকার হচ্ছে। বন্ধ হচ্ছে বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান। উৎপাদন ব্যবস্থায় ধস নেমেছে। মানুষ আজ ঘরবন্দি। নিম্ন আয়ের লোকদের খাবারের ব্যবস্থা করা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়তে হচ্ছে। সব শিল্পোন্নত দেশও চিন্তিত। অর্থনীতি বাঁচাতে এবং জীবন বাঁচাতে তৎপর বিভিন্ন দেশ। হাজার হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করা হয়েছে। জীবন বাঁচাতে ওষুধ উদ্ভাবনের চেষ্টা চলছে।

বিভিন্ন দেশ প্রণোদনা দিয়েছে। বাংলাদেশ সরকারও অর্থনীতি চাঙ্গা রাখতে ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করেছে। তাতে আশ্বস্ত হয়েছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও নিম্নবিত্তরা। তবে তার মধ্যে সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের জন্য প্রণোদনা নেই। করোনার বিরুদ্ধে সম্মুখযুদ্ধে লিপ্ত কর্মীদের অন্যতম সাংবাদিকরা। দুঃসহ অর্থনৈতিক চাপের মধ্যে আছে সংবাদপত্র। এ শিল্প উদ্ধার করতে বিশেষভাবে কিছু রাখা হয়নি। সংবাদমাধ্যমে মানুষের জন্য কাজ করেন সাংবাদিকরা। সবাই প্রশংসাও করেন। কিন্তু তাঁদের দুর্দিনে তাঁদের বাঁচিয়ে রাখতে এখনো কেউ এগিয়ে আসেনি। সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হয়েছে, কিছু করা হয়নি। প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকবান্ধব, এটা সবাই জানেন। সাংবাদিকদের সঙ্গে তাঁর চমৎকার সম্পর্ক আছে। তাঁদের সুখ-দুঃখের সাথী তিনি। এবার প্রধানমন্ত্রীর করোনার প্রণোদনায় সাংবাদিকরা নেই। সাংবাদিকদের বেতন-ভাতা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সংবাদপত্র ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ভবিষ্যৎ খুবই সংকটাপন্ন। এ অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটাতে আমি মনে করি ১. অবিলম্বে সাংবাদিকদের জন্য নগদ প্রণোদনা দিতে হবে, যাতে সাংবাদিকরা বেতন-ভাতা পান, ২. সাংবাদিকদের জন্য বীমার ব্যবস্থা করতে হবে, ৩. বিজ্ঞাপনের পরিধি ও হার বাড়াতে হবে, ৪. মিডিয়ার সব কর দুই বছরের জন্য স্থগিত করতে হবে, ৫. সাংবাদিকদের স্বাধীনভাবে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সুযোগ করে দিতে হবে। এ পদক্ষেপগুলো না নিলে সাংবাদিকসহ গোটা গণমাধ্যমের ভবিষ্যৎ অন্ধকার হয়ে যাবে।

করোনা-উত্তর বিশ্বে সবাই ঘুরে দাঁড়াবে। সবাই সবাইকে সহযোগিতা করবে। বাংলাদেশের সাংবাদিকরা এর বাইরে থাকবে তা চিন্তা করা উচিত নয়।
লেখক: প্রবীণ সাংবাদিক, সাবেক সভাপতি, জাতীয় প্রেস ক্লাব।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সাংবাদিকবান্ধব
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ