Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

শ্যামপুর বহুমুখী হাইস্কুল এন্ড কলেজ ১০ মাস বেতন পাচ্ছেন না ৬০ শিক্ষক-কর্মচারী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ এপ্রিল, ২০২০, ৯:২৯ পিএম

রাজধানীর কদমতলী থানাধীন শ্যামপুর হাইস্কুল এন্ড কলেজের ৬০জন শিক্ষক-কর্মচারী প্রায় দশ মাস যাবত বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এই বিষয়ে শিক্ষক-কর্মচারীরা শিক্ষা মন্ত্রাণালয়সহ বোর্ড অফিসে একাধিকবার স্মারকলিপি দিয়ে ও কোন ফল পাননি।
স্কুলের শিক্ষিকা ফারহানা আফরোজ বলেন, আমরা বেশিরভাগ শিক্ষকই এমপিওভুক্ত। তারপরেও আমাদের বেতনের বিষয়টি সুরাহা হচ্ছে না। স্কুলটির প্রধান শিক্ষিক মনিজা রহমান অবশ্য অন্যকথা বলেন। তিনি বলেন, নোংরা রাজনীতির কারণে এই অবস্থা দাঁড়িযেছে। স্কুল কমিটির বর্তমান সভাপতি একটি রাজনৈতিক দলের হয়ে প্রভাব খাটিয়ে স্বেচ্ছাচারিতা করছেন। বেতন বিলের কোন কাগজে স্বাক্ষর না করে ১০ মাস যাবত বেতন আটকে দিয়েছেন। সভাপতির স্বেচ্ছাচারিতায় অযোগ্য শিক্ষকদ্বারা স্কুলটি পরিচালনার জন্য আজ স্কুলের শিক্ষা ব্যবস্থা শুণ্যের কোঠায়। আগে ২২০০ শিক্ষার্থী স্থলে এখন মাত্র ৮০০ জন শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে।
স্কুলটির গভর্নিং বডির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আজহার বলেন, বর্তমান প্রধান শিক্ষিকা একটি রাজনৈতিক দলের নিয়োগপ্রাপ্ত। এজন্যই তিনি বেতন বিলে স্বাক্ষর করছেন না। প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে তিনি আদালতে একটি রিট পিটিশন মামলা করেছেন বলেও জানান। এমনি পরিস্থিতিতে ৬০জন শিক্ষক-কর্মচারী প্রধানমন্ত্রীর দফতরে আবেদন করেছেন।



 

Show all comments
  • sardia safrin alam ১৩ এপ্রিল, ২০২০, ৪:১০ পিএম says : 0
    সভাপতির অপসারণ জরুরি ভিত্তিতে করা দরকার।
    Total Reply(0) Reply
  • ইঞ্জিঃ আজহারুল ইসলাম ১৫ এপ্রিল, ২০২০, ৮:১৭ পিএম says : 0
    গত ১১.০৪.২০২০ তারিখে ইনকিলাব পত্রিকায় যে সংবাদটি প্রকশিত হয়েছে তা শিরোনাম থেকে শুরু করে আগা-গোড়া অসত্য ভিত্তিহীনও তথ্যপ্রমাণ বিহীন। প্রতিষ্ঠানে কোন বৈধ অধ্যক্ষ/ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নেই। ২৬.১০.২০১৯ তারিখে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে জোরপূর্বক বের করে দিয়ে জনৈক শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেন। সরকার কর্তৃক নিয়োগকৃত সভাপতির পরিবর্তে একজন সভাপতি নিয়োগ করেন এবং রেজুলেশন বই কিনে রীতিমতো সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন!! জেনেশুনে মন্তব্য করা উচিত। অন্যথায় সংক্ষুব্ধ ব্যাক্তি তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করতে পারেন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শ্যামপুর বহুমুখী হাইস্কুল এন্ড কলেজ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ