Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯, ০২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বক্তব্য জঙ্গিবাদ মদদের শামিল -ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা করায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বক্তব্য জঙ্গিবাদ মদদের শামিল। গতকাল শনিবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত গুলশান হামলা মামলার সার্বিক বিষয় তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া এ কথা বলেন।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, সম্প্রতি জাতীয় প্রেসক্লাবে এক গোলটেবিল বৈঠকে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, বনানীর ওসি কেন গুলশানের ঘটনায় আগে গিয়েছেন। জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এ বক্তব্যের বিষয়টি স্পষ্ট করতে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঘটনার পরপরই আমি আমার সব কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছিলাম ঘটনাস্থলে যেতে। বনানী থানার ওসিও সে কারণেই ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। দেশের জন্য তিনি প্রাণ দিয়েছেন। জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এ বক্তব্যকে আমরা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি। তার বক্তব্য উদ্দেশ্যপূর্ণ ও সন্ত্রাসীদের মদদ দেয়ার শামিল। পুলিশ হলি আর্টিজান বেকারিতে জীবন বাজি রেখে প্রতিরোধ গড়ে তোলার কারণেই হামলাকারীরা রেস্টুরেন্ট থেকে বের হতে পারেনি। জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিষয়ে কোনো আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না, জানতে চাইলে ডিএমপি কমিশনার বলেন, যারা উসকানি দিচ্ছেন, তাদের সম্পৃক্ততা আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হবে। কেউই প্রচলিত আইনের ঊর্ধ্বে নয়।
নিখোঁজ ব্যক্তিদের বিষয়ে কোনো তথ্য আছে কি-না, এমন প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, প্রকৃত সংখ্যা বলতে পারব না। গণমাধ্যমে এসেছে এবং আমরাও জেনেছি, বেশ কিছু তরুণ স্বেচ্ছায় নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজদের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। গুলশানের ঘটনায় জিম্মিদশা থেকে উদ্ধার হাসনাত করিমও তাহমিদ পুলিশের কাছে আছেন কি-না, তা জানতে চাইলে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, এটা আমাদের তদন্তকারী দল বলতে পারবে। তাদের জিজ্ঞেস করুন। এ ঘটনার পর ভারতে কিছু ব্যক্তি গ্রেফতার হয়েছে। তারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, গুলশানের হামলার সঙ্গে যারা জড়িত, তারা সবাই এ দেশের। তাদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক কোনো চক্র থাকার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছি না। তথ্য-প্রমাণ ছাড়া আমরা কিছু বলতে চাচ্ছি না। তিনি আরো বলেন, আমাদের কর্মকর্তারা এ ধরনের ঘটনা তদন্তে সম্পূর্ণ সক্ষম। তবে কারিগরি কোনো প্রয়োজনে বাইরের দেশের সহযোগিতা নেয়া হতে পারে।
প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন
এর আগে গুলশানের আর্টিজান হোটেলে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সালাউদ্দিনকে নিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর দেয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি ও ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া এবং সেক্রেটারি ও গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ।
গত শুক্রবার বিকেলে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) গোলাম মোস্তফা রাসেল স্বাক্ষরিত প্রতিবাদ লিপিতে বলা হয়েছে, বনানীর থানার সাবেক ওসি সালাউদ্দিনকে নিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী যে নোংরা এবং হঠকারী মন্তব্য করেছেন তাতে শুধু বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যই নয় গোটাজাতিই বিস্মিত হয়েছে। ওসি সালাউদ্দিন নিরীহ মানুষকে ক্রসফায়ারের নামে হত্যা করেছেন মর্মে জাফরুল্লাহর দেয়া এমন বক্তব্য সত্য নয় বলেও প্রতিবাদলিপিতে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন