Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ০৭ সফর ১৪৪২ হিজরী

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের আলোচিত সেই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ

কুষ্টিয়া থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ এপ্রিল, ২০২০, ৭:৪৮ পিএম

ত্রাণ নেয়ার সময় ছবি তুলতে অনীহা প্রকাশ করায় দুস্থ ও অসহায় মানুষের গায়ে হাত দেয়া আলোচিত সেই ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন বিশ্বাসের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এম.এম. মোর্শেদ স্বপ্রণোদিত হয়ে এ নির্দেশ প্রদান করেন।

ক্রিমিনাল মিস কেস নং-০১/২০২০। ফৌজদারী কার্যবিধির ধারা-১৯০(১) (সি) এখতিয়ার বলে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট এ আদেশ দেন। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আগামী ৩১ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, দৌলতপুর থানাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।আদেশে বলা হয়েছে অনলাইন পত্রিকায় ১১ এপ্রিল প্রকাশিত ‘ত্রাণ নেয়ার ছবি না তোলায় গায়ে হাত তোলেন চেয়ারম্যান’ শিরোনামে প্রতিবেদনটি আদালতের দৃষ্টিগোচর হয়। উক্ত প্রতিবেদন হতে জানা যায় যে, করোনাভাইরাস দুর্যোগে লকডাউনের মধ্যে কর্মহীন ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সরকারী ত্রাণ বিতরণের সময় ছবি তুলতে অনীহা প্রকাশ করায় কয়েকজন দুস্থ ও অসহায় মানুষের গায়ে হাত তুলেছেন দৌলতপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। ইহা একটি ফৌজদারী অপরাধ। ফলে উক্ত বিষয়টি তদন্তপূর্বক ৩১-৫-২০২০ খ্রি. তারিখের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, দৌলতপুর থানাকে নির্দেশ দেয়া গেল।


করোনাভাইরাসের জন্য সরকার কর্তৃক দেশব্যাপী প্রতিটি ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এর অংশ হিসেবে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের জন্য সরকারিভাবে ৪৫০ জন দুস্থ নারী-পুরুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের বরাদ্দ প্রদান করা হয়।

গত ১০ এপ্রিল সকালে বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ে দুস্থ নারী পুরুষের মাঝে নিজ হাতে সরকারি বরাদ্দের এই ত্রাণ বিতরণ করেন বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন বিশ্বাস। সরকারি এই ত্রাণ বিতরণের সংবাদ প্রচারের জন্য তিনি স্থানীয় কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীকে আমন্ত্রণ জানান। এ সময় গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে দু’একজন এই ত্রাণ বিতরণের ভিডিও চিত্র ধারণ করেন।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এই ভিডিও চিত্রে দেখা যায় ত্রাণ নিতে আসা সহজ-সরল অসহায় দুস্থ নারী পুরুষকে জোরপূর্বক ছবি তুলতে বাধ্য করছেন চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন বিশ্বাস। এ সময় একজন বৃদ্ধকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দিতেও দেখা যায়।

ত্রাণ বিতরণকালে চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন বিশ্বাসের চরম অসৌজন্যমূলক আচরণের এই ভিডিও চিত্র ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে। দল-মত নির্বিশেষে সবাই চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন বিশ্বাসের এই অসৌজন্যমূলক আচরণের তীব্র নিন্দা ও সমালোচনা করেন।এলাকাবাসী জানান, চেয়ারম্যান খুবই বদমেজাজী। কথাই কথাই তিনি সাধারণ মানুষের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। এ নিয়ে দুবার তিনি বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউপি চেয়ারম্যান


আরও
আরও পড়ুন