Inqilab Logo

শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ০৫ ভাদ্র ১৪২৯, ২১ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর এসডিজি ও রপ্তানি বাণিজ্যে সক্ষমতা অর্জনে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা প্রয়োজন-তোফায়েল আহমেদ

প্রকাশের সময় : ১৮ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, জিএসপি সুবিধাসহ রপ্তানি বাণিজ্য বৃদ্ধির বিভিন্ন পদক্ষেপের মাধ্যমে এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর আর্থসামাজিক উন্নয়নে আংকটাডের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল অর্জনেও আংকটাড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করি। কারণএ গোল অর্জনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বলেন, বিশেষ করে প্রয়োজনীয় সম্পদ সরবরাহ, অবকাঠামো নির্মাণ, কারিগরি ও প্রযুক্তিগত সহায়তা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা ইত্যাদি ক্ষেত্রে এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর সামর্থ্য এখনো সীমিত, এসব ক্ষেত্রে সহযোগিতা প্রয়োজন।
গতকাল নাইরোবির কেনিয়া আন্তর্জাতিক কনফারেন্স সেন্টারে জি ৭৭ এবং চায়নার মন্ত্রী পর্যায়ের সভায় এলডিসি গ্রæপের পক্ষে বক্তব্য উপস্থাপনের সময় তিনি এসব কথা বলেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর কল্যাণে গৃহীত বিভিন্ন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা বা অচলবস্থা দূর করতে আংকটাড অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ব্যবস্থা থেকে এলডিসিভুক্ত দেশগুলো যাতে অধিকতর সুবিধা অর্জন করতে পারে সেজন্য আংকটাড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। বিশেষ করে অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য সুবিধা আদায়ের মাধ্যমে এলডিসিভুক্ত দেশগুলো রপ্তানি বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে পারে। এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর উন্নয়নে আংকটাডের ভূমিকা প্রশংসনীয়।
তোফায়েল আহমেদ বলেন, ইস্তাম্বুল প্রোগ্রাম অব অ্যাকশন মোতাবেক ২০২০ সালের মধ্যে অর্ধেক এলডিসিভুক্ত দেশ উন্নয়নশীলে রূপান্তর এবং বিশ্ব রপ্তানি বাণিজ্যে ২ শতাংশ অবদান নিশ্চিত করার প্রচেষ্টায় আংকটাডের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর অগ্রগতি এখনো আশানুরূপ নয়।
তানজানিয়ার শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী চার্লস জন মইজাগ-এর সভাপতিত্বে সম্মেলনে কেনিয়ার পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রী আমিনা চাওয়াহির মোহাম্মদ স্বাগত বক্তব্য রাখেন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আংকটাডের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল জসিম রেইটার থাইল্যান্ডের পার্মান্যান্ট সেক্রেটারি এবং বিশেষ পররাষ্ট্র বিষয়কমন্ত্রী অ্যাচার্ট চিনওয়ানো।
পুঁজিবাজারের তথ্য বিনিয়োগকারীদের জানা জরুরি : ডিএসইর এমডি
অর্থনৈতিক রিপোর্টার : বিনিয়োগকারীদের সঠিক ভূমিকা পালনের জন্য পুঁজিবাজার সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানা জরুরি। আর তথ্যগুলো সহজ প্রাপ্তি নিশ্চিত করার জন্য ডিএসইতে মোবাইল অ্যাপসটি চালু করা হয়েছে। গতকাল রোববার ডিএসইর মার্কেট ডেভেলপমেন্ট বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত ডিএসই মোবাইল অ্যাপস এর উপর বিনিয়োগকারী সচেতনতা শীর্ষক কর্মসূচির উদ্বোধনকালে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কে এ এম মাজেদুর রহমান এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সময়ের সাথে সাথে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের অবকাঠামোগত অনেক পরিবর্তন এসেছে। ডিএসই ক্রাইআউট ট্রেডিং সিস্টেম থেকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত ট্রেডিং সিস্টেম চালু করেছে। যেখানে অত্যাধুনিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং অন্যান্য সিস্টেম রয়েছে। এছাড়াও ডিএসই বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে সর্বশেষ হালনাগাদ তথ্যগুলো প্রকাশ করছে, যা পরবর্তীতে আরো সমৃদ্ধ করা হবে।
ডিএসইর এমডি বলেন, এই মোবাইল অ্যাপসের উদ্দেশ্য হলো বিনিয়োগকারীরা যেন যে কোন অবস্থান থেকে লেনদেন করতে পারেন। এজন্য অ্যাপস এর সাফল্য বিনিয়োগকারীদের উপর নির্ভর করছে। এই অ্যাপসের আরো উন্নয়নের জন্য ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে ফিডব্যাক প্রয়োজন রয়েছে।
ডিএসইর মার্কেট ডেভেলপমেন্ট বিভাগের ইনচার্জ নিজাম উদ্দিন আহমেদ এক প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে ডিএসই মোবাইল অ্যাপস ব্যবহার বিধি এবং বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা উপস্থাপন করেন। ডিএসইর প্রধান অর্থ কর্মকর্তা আবদুল মতিন পাটওয়ারী বলেন, ডিমিউচ্যুয়ালাইশনের পর ডিএসইর একটি উদ্দেশ্য ছিল প্রযুক্তির দিকে ধাবিত হওয়া। এর অংশ হিসেবে ডিএসই নতুন ট্রেডিং সিস্টেম চালু করেছে। এছাড়াও ডিএসইর বিজনেস ডেভেলপমেন্ট টিম গঠন করেছে। বিনিয়োগকারীরা যদি এই অ্যাপসটি ব্যবহার করে তাহলেই ডিএসই’র উদ্যোগ সফল হবে।
এসময় ডিএসই প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা মো. জিয়াউল করিম, সহকারী মহাব্যবস্থাপক রুহুল আমিন এবং ব্যবস্থাপক ওয়াসি আজম উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ