Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৯ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী আব্দুর রশীদ খানের যোগদান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ এপ্রিল, ২০২০, ৪:১১ পিএম

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)’র প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে যোগদান করলেন মো. আব্দুর রশীদ খান। তিনি অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে এলজিইডি সদর দপ্তরে কর্মরত ছিলেন। শনিবার তিনি প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। তিনি পূর্বতন প্রধান প্রকৌশলী মো. মতিয়ার রহমান এর স্থলাভিষিক্ত হলেন। মো. মতিয়ার রহমান এর চাকুরির মেয়াদকাল শনিবার শেষ হয়েছে।
মো. আব্দুর রশীদ খান ১৯৮৮ সালের নভেম্বর মাসে সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে তৎকালীন এলজিইডি’তে যোগদানের মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি এলজিইডিতে পিএসসি এর মাধ্যমে নিয়োগকৃত একজন কর্মকর্তা। তিনি ২০০২ সালে নির্বাহী প্রকৌশলী পদে পদোন্নতি লাভ করেন এবং বিভিন্ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৭ সালের জানুয়ারী মাসে তিনি তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হিসেবে পদোন্নতি প্রাপ্ত হয়ে এলজিইডি সদর দপ্তরের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে তিনি অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে পদোন্নতিপ্রাপ্ত হয়ে এলজিইডির সদর দপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (প্রশিক্ষণ, পরিকল্পনা, ডিজাইন ও গবেষণা এবং পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা) এর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি এলজিইডি’র অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলীর মধ্যে জ্যেষ্ঠতম।
মো. আব্দুর রশীদ খান বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলার ডোমর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম আব্দুল করিম খান এবং মাতা মরহুমা জাহানারা বেগম। তিনি ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং-এ স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। পরবর্তীতে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম ইউনিভার্সিটি থেকে কনস্ট্রাকশন ম্যানেজমেন্টের উপর এমএসসি ডিগ্রী অর্জন করেন। এছাড়া তিনি পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নেপাল, ইতালি, কেনিয়া, কলম্বিয়া, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, আর্জেন্টিনা, চিলিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন।
তিনি একজন সৎ, দক্ষ ও পেশাগত অভিজ্ঞতা সম্পন্ন প্রকৌশলী। তাঁকে এলজিইডি’র প্রধান প্রকৌশলী পদে নিয়োগ করায় আধুনিক শহর ও গ্রাম উন্নয়নের মাধ্যমে নাগরিক সুবিধা প্রদানে সরকার ঘোষিত সকল কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।



 

Show all comments
  • Sk.Ariful Islam ২৫ এপ্রিল, ২০২০, ১১:৫২ পিএম says : 0
    মাননীয় প্রধান প্রকৌশলী একজন স্যত,দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মকর্তা।তাঁর কর্মকালীন সময়ে এলজিইডি আরও অনেকদুর এগিয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মো:নাহিদ সেরনিয়াবাত ২৬ এপ্রিল, ২০২০, ৫:১০ এএম says : 0
    আমি মনে করি স্যারের পিছনের অভিজ্ঞতা সততা দক্ষতা কর্মপরায়নতা,কাজের দুরদর্শীতা চলমান প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকা সহ আরো অনেক বেশি গতিশীল ও সচল হব।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Sayeed ২৬ এপ্রিল, ২০২০, ১২:১৯ পিএম says : 0
    I used to know Mr Khan probably since 2017 when he joined as PD ECRRP- a World Bank funded project for improving damages done by natural calamities. LGED was given the responsibility of restoring the damage done to existing Primary Schools in nine southern districts of Bangladesh. During his tenure Mr khan took challenge to implement the physical activities by monitoring with ground levels even talking to the lowest level administration. Mr khan always focussed to the point for driving results. Due to his very close monitoring with departmental colleagues including the working contractors the benefits of the project can be showcased to the high officials of the World Bank who visited the facilities several times during his tenure. I have never seen Mr khan to leave something for tomorrow when his attention was drawn for resolving some issues brought to his attention. I am proud to be associated with him for successful completion of financial activities of the LGED component of ECRRP. My best wishes go his new endeavour to lead organisation in right directions. Ameen
    Total Reply(0) Reply
  • Ashaduzzaman ২৬ এপ্রিল, ২০২০, ১১:০৬ পিএম says : 0
    এল জি ই ডি কে উনি অনেক উপরে নিয়ে যাবেন। বাংলা দেশের সব বড় এবং কার্যকর প্রতিষ্ঠান হিসাবে গড়ে তুলবেন। ইনশাল্লাহ উনি এই কাজ করে দেখাবেন।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ সেফাতুল্লাহ ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ৪:৫১ এএম says : 0
    স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর এ নবনিযুক্ত প্রধান প্রকৌশলী স্যারকে আমি ব্যক্তিগতভাবে লালগোলাপ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই এবং স্যারের সর্বাস্থায় তাঁর কল্যাণ কামনা করি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এলজিইডি


আরও
আরও পড়ুন