Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ফেনীতে সরকারী কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

ফেনী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩০ এপ্রিল, ২০২০, ১:২৩ পিএম

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলায় এবার সরকারী কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল একদিনে একই উপজেলায় দুইজন করোনায় আক্রান্ত হল। এদের মধ্যে গতকাল বিকেলে এক মহিলার নমুনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। রাতে এক সরকারী কর্মকর্তার নমুনা রিপোর্ট পজেটিভ আসার খবর জানায় জেলা সিভিল সার্জন। এদের দুইজনেরই শরীরে কোন প্রকার করোনার উপসর্গ নেই। তারা দুইজনই সুস্থবোধ করছেন বলে জানা গেছে। কিন্তু কোন ধরনের উপসর্গ ছাড়া সুস্থ মানুষের নমুনা রিপোর্ট পজেটিভ আসার খবরে জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত ২১ এপ্রিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে করোনায় আক্রান্ত ওই সরকারী কর্মকর্তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য চট্রগ্রামের বিআইটিআইডিতে পাঠানো হয়। গতকাল রাতে খবর আসে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। আক্রান্ত ওই কর্মকর্তার সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের চিহিৃত করার চেষ্টা চলছে। আজ দাগনভূঞা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দিদারুর কবির রতন,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রবিউল হোসেন ও তার স্ত্রী,পৌর মেয়র ওমর ফারুক খান ও তার স্ত্রী,জায়লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ মিলন সহ আরও বেশ কয়েকজনের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। তাদেরকে হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য বলা হয়েছে। এ পর্যন্ত ফেনীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ জনে দাঁড়ালো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রবিউল হাসান বলেন, গতকাল রাতে করোনা আক্রান্ত ওই ব্যক্তির রিপোর্ট পজেটিভ আসায় তার বাসা লকডাউন ঘোষনা করা হয়। সেই সাথে তার কর্মস্থল উপজেলা পরিষদও লকডাউন করা হয়েছে। এ ছাড়া পরিষদে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: রুবাইয়াত বিন করিম জানান, করোন আক্রান্ত সরকারী কর্মকর্তার বাসা লকডাউন করা হয়েছে। তার সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের চিহিৃত করার চেষ্টা চলছে। আজ কয়েকজনের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

জেলা সিভিল সার্জন ডা: সাজ্জাদ হোসেন বলেন, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে কতজন ছিলেন তা শনাক্ত করা সম্ভব নয়। তবে তার সাথে কথা বলার পর জানা যাবে কারা তার সংস্পর্শে ছিলেন। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন কাজ করছেন। আজ উধ্বতন কতৃপক্ষের সাথে কথা বলে তার চিকিৎসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য,করোনা আক্রান্ত সরকারী কর্মকর্তার বাড়ি চট্রগ্রামের আকবর শাহ থানার পাহাড়তলিতে। ওই কর্মকর্তা দাগনভূঞা পৌর শহরে একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ