Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, ০৫ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

কুমিল্লার আদালতে বিচারকাজ ও মামলা নিষ্পত্তিতে গতি বেড়েছে

প্রকাশের সময় : ২১ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সাদিক মামুন, কুমিল্লা থেকে : কুমিল্লার আদালতে দীর্ঘদিনের জমে থাকা মামলাগুলোর দ্রুত নিষ্পত্তিতে গতি বেড়েছে। দেশের প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা (এস কে সিনহা) দায়িত্ব গ্রহণের পর তার নির্দেশনায় দেশের অন্যান্য জেলার বিচারিক আদালতের ন্যায় কুমিল্লাতেও দ্রুত বিচার নিষ্পত্তির পথ তৈরি হয়েছে। আদালতে কর্মরত বিচারক, সরকারি আইন কর্মকর্তা, আইনজীবী, বিচারকাজে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্তরিক দায়িত্বশীলতায় গত ৬/৭ মাস আগ থেকেই কুমিল্লার আদালতে বিচারকাজ ও জমে থাকা মামলা নিষ্পত্তিতে গতি বেড়েছে। সম্প্রতি প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা কুমিল্লার আদালতে বিচার কাজ পর্যবেক্ষণ ও বিচারকদের সাথে বিচার বিভাগীয় সম্মেলন এবং আইনজীবীদের সাথে মতবিনিময় করার পর এখানকার বিচার কাজের গতিতে সন্তুষ্টিও প্রকাশ করেছেন।
কুমিল্লার পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন বলেন, একসময় বিচারপ্রার্থীকে বিচারের প্রত্যাশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হতো। নির্দিষ্ট সময়ে মামলার বিচারিক কাজ শেষ না হওয়ায় বছরের পর বছর বিচারপ্রার্থীকে আদালতের বারান্দায় ঘুরতো হতো। সময়, অর্থ সবকিছুর অপচয়ের বৃত্তে ঝুলে থাকতো ন্যায় বিচারের প্রত্যাশা। বিচারপ্রার্থীদের মুখ থেকে বেরুতো ‘বিচারের বাণী নীরবে নিভৃতে কাঁদে’। এ অবস্থার অবসান শুরু হয়েছে। বিচারপ্রার্থীদের অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে। প্রায় ৫/৬ মাস আগ থেকেই কুমিল্লার আদালতে বিচারধীন মামলার জট কমতে শুরু করেছে। আদালতে এসে বিচারপ্রত্যাশীরা আলোর মুখ দেখছে। নেই কোন হয়রানী, নেই বিচারপ্রার্থীদের হা-হুতাশ। প্রধান বিচারপতির দিক-নির্দেশনার পাশাপাশি জজ বাহাদুরসহ বিজ্ঞ বিচারকবৃন্দ, সরকারি আইন কর্মকর্তা ও আইনজীবীদের আন্তরিকতায় কুমিল্লার আদালতে পুরানো মামলাগুলোর যেমন দ্রুত নিষ্পত্তি হচ্ছে তেমনি নতুন মামলাগুলো যাতে জট বেঁধে না যায় সেইদিকে গুরুত্ব দিয়েও বিচার কাজ পরিচালিত হচ্ছে। চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতগুলোতেও মামলা নিষ্পত্তিতে আরও গতি বেড়েছে।
পাবলিক প্রসিকিউটর আরও বলেন, বিশেষ করে প্রধান বিচারপতি আদালতের বিচার কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করতে গত ২৩ জুন কুমিল্লায় আসেন। তিনি গত ৬/৭ মাসে মামলা নিষ্পত্তির সংখ্যা জেনে সন্তুষ্টও হয়েছেন। পাশাপাশি দ্রুততম সময়ের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তিসহ বিচারিক কাজের বিষয়ে মাননীয় প্রধান বিচারপতি তাঁর পরামর্শ ও নির্দেশনা দিয়েছেন। আদালতের হলরুমে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান বিচারপতির বক্তব্য আইনজীবীসহ বিচার প্রার্থীদের মাঝে আশার সঞ্চার করেছে। কুমিল্লা সার্কিট হাউজে প্রধান বিচারপতি বলেছেন, মামলাজট ও বিচারে দীর্ঘসূত্রিতা জনগণের বিচার লাভের ক্ষেত্রেএকটি বড় অন্তরায়। এ থেকে আমাদেরকে মুক্তি পেতে হবে। আদালতের পুরো সময়কে ব্যয় করতে হবে বিচার কাজে। তাঁর এ দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য এবং কুমিল্লার আদালতে আগমন নিঃসন্দেহে মাইলফলক হয়ে থাকবে। কেবল তাই নয়, বিচার বিভাগীয় প্রশাসনে প্রধান বিচারপতির সাহসী পদক্ষেপ ও গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো বিচার বিভাগের জন্য ইতিবাচক ফল বয়ে আনবে।
পাবলিক প্রসিকিউটর মোস্তাফিজুর রহমান লিটন আরও বলেন, কুমিল্লার আদালতে দীর্ঘদিনের জমে থাকা মামলাগুলোর দ্রুত নিষ্পত্তিতে যেমনিভাবে এখানকার বিচারাঙ্গনে গতি এসেছে, তেমনিভাবে সাধারণ মানুষের ন্যায় বিচার প্রাপ্তি ত্বরান্বিত হচ্ছে। আর এর ফলে সমাজে নতুন নতুন অপরাধের মাত্রা যেমন কমে আসবে তেমনি সুস্থ সমাজ বিকাশের জায়গাটিও সমৃদ্ধ হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কুমিল্লার আদালতে বিচারকাজ ও মামলা নিষ্পত্তিতে গতি বেড়েছে
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ