Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

অবশেষে পরীক্ষার অনুমতি পেল গণস্বাস্থ্যের কিট, সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়া

আবদুল মোমিন | প্রকাশের সময় : ৩০ এপ্রিল, ২০২০, ৮:২২ পিএম

নানা নাটকীয়তার পর কোভিড-১৯ রোগ শনাক্তে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত কিট পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। গত কয়েকদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনা-সমালোচনার শীর্ষে ছিল কীট পরীক্ষার অনুমোদন জটিলতার বিষয়টি। অবশেষে অনুমোদন পাওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন সচেতন নাগরিক সমাজ। ফেইসবুকে সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে নানা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন নেটিজেনরা।

ওষুধ প্রশাসন থেকে বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) দুপুরে এক চিঠি দিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে এ অনুমতি দেয়া হয়। এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, আমাদের কিট পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) অথবা আইসিডিডিআরবি’র যে কোনো একটিতে পরীক্ষা করার কথা বলা হয়েছে। তবে আমরা বিএসএমএমইউতে এ কিট পরীক্ষা করব।

ফেইসবুকে আমিনুল রহমান চৌধুরী লিখেছেন, ‘‘জল কেন ঘোলা করলেন? তার ভেতরের কারণ সহ ব্যাখ্যা চাই অবিলম্বে। বাংলাদেশের জনগণের জীবন-মৃত্যু নিয়ে ছিনিমিনি খেলা দেশের জনগণ অত্যন্ত রাগ আর ক্ষোভের সাথে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।’’

আব্দুল্লাহ মাসুম লিখেছেন, ‘‘এখনতো দেবেই। কারণ ইউরোপ এই কিট নেবে বলে ঘোষণা দিয়েছে। আর এখন যদি বাংলাদেশ না নেয় তাহলেতো বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে যাদুঘরের ইতিহাসের পাতায় লিখে রাখবে। কারণ বাংলাদেশ থেকে অন্য দেশ কিট কিনতো ২৫০ টাকায় আর বাংলাদেশ অন্য দেশ থেকে কিট আমদানি করতো ৩০০০ টাকায়।’’

জামান রুবেল লিখেছেন, ‘‘গণস্বাস্থ্য এর করোনা সনাক্তের কিটটির কার্যকারীতা মানসম্মত
হলে, তা দ্রুত বাজারজাত করতে হবে। যাতে, এই কিটটি দেশের প্রতিটি ফার্মেসীতে পাওয়া যায় এবং অধিকাংশ মানুষ সহজে, নিজ উদ্যোগে, নিজ খরচেকরোনা আক্রান্ত হয়েছে কি- না, তা পরীক্ষা করে দেখতে পারে।’’

প্রিন্স রানা লিখেছেন, ‘‘এরকম দুর্যোগ মুহূর্তে এই কিট পরীক্ষা, আরও আগে করা উচিত ছিল। এতো টিভি টক শো করার কি আছে। দায়িত্ব কাউকে না কাউকে তো নিতেই হবে, হয় সরকার না হয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। দেশের জনগণ খুব দ্রুত এর ফলাফল চাই।’’

শাহানারা বেগম লিখেছেন, ‘‘মানুষের জীবন বাঁচাতে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত। কারণ আমরা পরস্পর ভাই ভাই, এখানে বৈমাত্রেয় ভাইয়ের মত আচরণের সময় এখন নয়।’’

হুমায়ুন আহামেদ লিখেছেন, ‘‘স্যার আপনার জন্য হ্নদয়ের অন্তস্থল থেকে দোয়া করি আপনি যেনো এই গরিব দেশটাকে টেনে তুলে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড় করান..!আল্লাহ আপনাকে যেনো সব সময় হেফাজত করেন.আমিন।’’

মুদ্দাসির রহমান লিখেছেন, ‘‘পৃথিবীর অনেক দেশ কীট নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করছে এবং এই কীট পরীক্ষা করার আগ্রহ প্রকাশ করছে তাই আন্তর্জাতিক একটা চাপ আছে না এটা বুঝতে হবে।’’



 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ৩০ এপ্রিল, ২০২০, ৯:১৫ পিএম says : 0
    গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের পাল্টাপাল্টির জন্যেই আবিষ্কৃত কিটটি যাচাই বাছাইয়ের দেরী হচ্ছে এটাই সত্য। জনগণ জানে জাফরুল্লাহ চৌধুরী হচ্ছেন বিএনপি দলের একজন বুদ্ধিজীবী। কাজেই তিনি ন্যায় অন্যায় বুঝেননা বুঝেন সরকারের আইন কিভাবে অমান্য করতে হয়। তিনি যদি নিয়ম মেনে চলতেন তাহলে আজ এই কিট ভাল হলে পরীক্ষিত হয়ে ব্যাবহারের অনুমতি পেয়ে যেত এটাই সত্য। আমরা জানি প্রতিক্ষেত্রেই একটা আইন আছে এবং সেই আইন মেনেই সবাইকে চলতে হয়। এখানে নতুন কিছু আবিষ্কার করলে সেটা সরকারের আইন মোতাবেক সকল শর্ত মেনে বাজারজাত করতে হবে। কিন্তু আমরা কি দেখছি জাফরুল্লাহ চৌধুরী আইন নামানার জন্যেই বলছেন, তিনি তাঁর আবিষ্কৃত কীট পয়সা ব্যয় করে পরীক্ষা করাবেন না!!! সরকারের আইন সবাই মানছেন, পয়সা দিয়ে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছেই আবিষ্কৃত জিনিস হস্তান্তর করছে পরীক্ষা করার জন্যে, কিন্তু জাফরুল্লাহ চৌধুরী পয়সা দিবেন না তাই এই আইন মানছেন না!!! আবার সুযোগ বুঝে তিনি গণমাধ্যমে বিভিন্ন বক্তব্য দিয়ে জনগণকে ক্ষেপিয়ে তুলছেন যেটা সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড় সৃষ্টি করেছে। জাফরুল্লাহ চৌধুরী আবার এখানেই ক্ষন্ত দেননি তিনি আবার সস্তা অজুহাত দেখিয়ে বিদেশীদের (বিএনপি দলের বিদেশী সহায়কদের স্মরণাপন্ন হয়ে) কাছে ধর্না দিয়ে সরকারকে অপদস্ত করারও চেষ্টা করছেন। কাজেই সরকার এখন যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এটা সরকারের দূরদর্শিতার পরিচয় দিয়েছে। এখন এই কীটের গ্রহণযোগ্যতা দেখার জন্যেই আমাদের প্রতিক্ষা...... আল্লাহ্‌ আমাকে সহ সবাইকে দেশের আইন মেনে চলার যোগ্যতা দান করুন। আমিন
    Total Reply(1) Reply
    • Sony ৩০ এপ্রিল, ২০২০, ৯:৫৫ পিএম says : 0
      Purai ekta bolod..!!! ... pani to khabi e, setao ghola kore..!! Er por abar comment o ..!!!

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোশাল মিডিয়া


আরও
আরও পড়ুন