Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭ আশ্বিন ১৪২৭, ০৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

প্রণোদনার অর্থ সহজে ছাড়ের দাবি এফবিসিসিআই’র

ভার্চুয়াল সেমিনার

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ মে, ২০২০, ৬:৫৩ পিএম

সময়ের কথা বিবেচনায় নিয়ে ব্যাংকগুলোকে লাভ নয়; প্রণোদনার টাকা দ্রুত ছাড়ের উদ্যোগ নেওয়ার আহবান জানিয়েছেন দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ীরা। তারা বলেন, ব্যাংক অনেক ব্যবসা করেছে। মানুষ বেঁচে থাকলে আবারও লাভ হবে। তাই সময়ের কথা বিবেচনায় নিয়ে সরকারের মতো ব্যাংকগুলোকেও মানবিক দৃষ্টিতে এগিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন তারা। এছাড়া দেরি হলে প্রণোদনা টাকা কোনো কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবে না।

বুধবার (৬ মে) ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশে শিল্প ও বণিক সমিতির ফেডারেশন এফবিসিসিআইয়ের ‘সরকারের ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনারে বক্তারা এসব দাবি করেন। এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মুনতাকিম আশরাফ, অনলাইনে যোগ দেন সংগঠনের সহ-সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান।

ভার্চুয়াল সেমিনারে শেখ ফাহিম বলেন, দেশের অনেক কঠিন সময়ে আমরা বড় ধরনের মানবিকতার অনেক বড় দৃষ্টান্ত আমরা দেখিয়েছি। সামনেও আমাদের দেখাতে হবে। তিনি বলেন, গত প্রায় দুইমাস ধরে দেশের সাড়ে পাঁচ কোটি মানুষ লকডাউনে রয়েছে। আর এই সংকট থেকে উত্তোরণে সরকার যথাসময়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। ১৬ কোটি মানুষের পাশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে আন্তরিকতা নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন, তাঁর উদ্যেগের পাশে আমাদেরও দাঁড়াতে হবে।

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দেওয়া এবং ফেরত পাওয়ার বিষয়ে ব্যাংকগুলোর আংশকা থেকে বের হয়ে আসার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে অনেক উধাহরণ আছে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ শতভাগ পরিশোধের। এই ঋণ প্রক্রিয়ায় এফবিসিসিআই ও অ্যাসোশিয়েশনগুলো সম্পৃক্ত থাকবে। যেন ব্যাংকের টাকার অনিশ্চয়তা তৈরি না হয়, উদ্যোক্তারা যেন সময় মতো দ্রুত ঋণ পায়। এছাড়া ব্যাংকগুলোও এফবিসিসিআইয়ের সদস্য। আমরাও চাই আমাদের কোনো অংশ ক্ষতিগ্রস্ত না হোক।

এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি ও ঢাকা-১০ আসনের সদ্য নির্বাচিত সংসদ সদস্য শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, মহামারীর এই সময় ব্যাংকগুলো লাভের চিন্তা না করে; উদ্যোক্তাদের বাঁচাতে এগিয়ে আসতে হবে। দুর্যোগের এই মুহূর্তে দ্রুত ঋণ ছাড় করাই হবে সময়েপযোগী সিদ্ধান্ত হবে। এফবিসিসিআইকে একটি হেলপ ডেস্ক করার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী জানে না ব্যাংক থেকে কিভাবে প্রণোদনার ঋণ পাবে। আমার বিশ্বাস ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এনবিআর এবং এফবিসিসিআইকে একযোগে কাজ করলে সংকট উত্তোরণ সহজ হবে। তবে আমরা চাই না; আর ঋণ খেলাপী আরো বেড়ে যাক। অনেকে ইচ্ছে করে খেলাপি হয়েছে। এটা আর করা যাবে না। এই বছর ব্যবসার জন্য নয়, বেঁচে থাকার জন্য চীনা ব্যবসায়ী জ্যাক মা’র উদ্ধৃতি দিয়ে এফবিসিসিআই সহসভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ব্যবসা চালু থাকলে ব্যাংক চালু থাকবে। আর ব্যবসা মরে গেলে ব্যাংকও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই দ্রুত প্যাকেজ ছাড় করার উদ্যোগ নেওয়া সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত হবে।

অ্যাসোশিয়েশন অব ব্যাংকার্স, বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান আলী রেজা ইফতেখার বলেন, প্রণোদনা প্যাকেজের টাকা দ্রæত সময়ে কিভাবে ভোক্তাদের কাছে পৌঁছানো যায় বিষয়টি নিয়ে আমরা আমাদের সদস্যদের সঙ্গে আলোচানা করবো। তবে এখানে স্বচ্ছতার বিষয়টিও নিশ্চিত করার ওপর আমাদের গুরুত্ব দিতে হবে। কেননা ইতোমধ্যে দেশের ব্যাংক খাতে ১৬ হাজার কোটি টাকার বেশী খেলাপী ঋণ হয়ে গেছে।

সেমিনারে অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মীর নাসির হোসেন, কাজী আকরাম উদ্দীন আহাম্মেদ, আব্দুল মাতলুব আহমাদ, সাবেক সহসভাপতি জসিম উদ্দিন, বিশ্বব্যাংকের সাবেক সিনিয়র অর্থনীতিবিদ ও পলিসি এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান ড. এম মাসরুর রিয়াজ প্রমুখ।



 

Show all comments
  • Mohammad Ali Delowar ৬ মে, ২০২০, ৭:৩১ পিএম says : 0
    ঢেঁড়স ভর্তা দিয়ে ভাত খাওয়ার মত যেন হয়, কনো মতে মুখে দিতেই পারলে একবারে পেটে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Ali Delowar ৬ মে, ২০২০, ৭:৩০ পিএম says : 0
    ঢেঁড়স ভর্তা দিয়ে ভাত খাওয়ার মত যেন হয়, কনো মতে মুখে দিতেই পারলে একবারে পেটে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এফবিসিসিআই


আরও
আরও পড়ুন