Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০২ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

উত্তেজনার মধ্যেই প্রতিরক্ষা নিয়ে আশ্বস্ত করলেন ট্রাম্প-সউদী বাদশাহ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ মে, ২০২০, ৩:৫৬ পিএম

তেল উৎপাদন নিয়ে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই শুক্রবার ফোনালাপ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও সউদী আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুলআজিজ আল সউদ। হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে। ফোনালাপে যুক্তরাষ্ট্র-সউদী আরবের দৃঢ় প্রতিরক্ষা সম্পর্কের বিষয়ে উভয় নেতা পুনরায় আশ্বস্ত করেছেন।

ইরানের বিরুদ্ধে প্রতিরক্ষা নিশ্চিত করতে মোতায়েন করা ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী দুটি প্যাট্রিয়ট ব্যাটারি সউদী আরব থেকে প্রত্যাহারের খবর প্রকাশের পর এই দুই নেতার ফোনালাপ অনুষ্ঠিত হলো। গত মাসে সউদী আরবের তেল উৎপাদন কমানোর জন্য চাপ দিয়েছিলেন ট্রাম্প। করোনা মহামারির শুরুতে সউদী আরব তেল উৎপাদন বাড়িয়ে দিলে তা মার্কিন তেল উৎপাদকদের জন্য বড় ধরনের চাপ সৃষ্টি করে।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জুড ডিরি বলেন, উভয় নেতা বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারের স্থিতিশীলতার গুরুত্বের বিষয়ে একমত হয়েছেন এবং যুক্তরাষ্ট্র-সউদী আরবের দৃঢ় প্রতিরক্ষা অংশীদারিত্বের বিষয়ে পুনরায় আশ্বস্ত করেছেন। প্রেসিডেন্ট ও বাদশাহ সালমান গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক ও দ্বিপক্ষীয় ইস্যু এবং জি২০ ও জি৭ এর নেতা হিসেবে সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করেছেন।

অবশ্য বিবৃতিতে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্রের কথা উল্লেখ করা হয়নি এবং এই বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও নিশ্চিত করেছেন সউদী আরব থেকে এই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা প্রত্যাহারের। তবে তিনি বলেছেন, এর অর্থ সউদী আরব থেকে মার্কিন সহযোগিতা হ্রাস করা নয়, যার মাধ্যমে তেল ইস্যুতে রিয়াদের ওপর চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে। এর অর্থ এই নয় যে, ওয়াশিংটন এখন আর ইরানকে হুমকি মনে করে না। পম্পেও বলেন, বেশ কিছুদিন ধরেই এগুলো সেখানে আছে। ওই সেনাদের ফেরত আসা দরকার। এটা স্বাভাবিক সেনা রোটেশন।

ফোনালাপের বিষয়ে এক বিবৃতিতে সউদী আরব জানিয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যে মিত্রদের নিরাপত্তা ও স্বার্থ রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুতির বিষয়ে নিশ্চয়তা দিয়েছেন ট্রাম্প। ইয়েমেন সংকটের রাজনৈতিক সমাধানে ওয়াশিংটনের সহযোগিতার কথাও পুনরায় তুলে ধরেছেন ট্রাম্প। সূত্র: রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী আরব


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ