Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০২ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

করোনার মধ্যেই সউদীতে গ্রেপ্তার আরেক জ্যেষ্ঠ রাজপুত্র

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ মে, ২০২০, ৯:৪২ পিএম

মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এক বিবৃতিতে বলেছে, প্রয়াত সউদী বাদশা আবদুল্লাহের পুত্র প্রিন্স ফয়সাল বিন আবদুল্লাহ আল সউদকে গত মার্চের শেষের দিকে গ্রেপ্তার করে অজ্ঞাত স্থানে রাখা হয়েছে। পরিবার তার কোনো খ্যবরাখবর পাচ্ছে না বলে আজ শনিবার জানিয়েছে সংস্থাটি। -আল জাজিরা, আল আরাবিয়া

২০১৭ সালে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে রিয়াদের বিলাসবহুল হোটেলে অন্য অনেক রাজপুত্র, মন্ত্রী ও রাজপরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তাকে আটক করা হয়েছিল। কিন্তু ২০১৭ সালের শেষ দিকে তিনি ছাড়া পান।
সউদী রাজপরিবারের সূত্র দিয়ে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানায়, প্রিন্স ফয়সালকে গত ২৭ মার্চ গ্রেপ্তার করেছিল নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। তখন তিনি রিয়াদের উত্তরাঞ্চলের পারিবারিক বাসভবনে সেলফ আইসোলেশনে ছিলেন। সংস্থাটি আরো জানায়, প্রিন্স ফয়সাল কোথায় কি অবস্থায় আছেন জানা যায় নি। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে প্রকাশ্যে রাজপরিবারের কোনো সমালোচনা করেন নি প্রিন্স ফয়সাল। তিনি হৃদরোগী হওয়ায় তার স্বাস্থ্য নিয়ে পরিবার উদ্বিগ্ন বলে খবরে জানানো হয়েছে।
এর আগে গত মার্চে বাদশাহ সালমানের ভাই প্রিন্স আহমেদ বিন আবদুল্লাহ ও সাবেক যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফকে আটক করে সউদী কর্তৃপক্ষ। ২০১৭ সালে প্রাসাদ অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মোহাম্মদ বিন নায়েফকে হটিয়ে যুবরাজ পদে অভিষেক হয় সালমানের। পরবর্তী বাদশাহ হওয়ার পথ প্রশস্ত করতে সালমান শতশত রাজপুত্রকে বন্দি করছেন ও রাজপরিবারের মধ্যে নিজের প্রতি আনুগত্য আনতে চাইছেন।
হিউম্যান রাইটস ওয়াচের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক উপপরিচালক মাইকেল পেজ বলেন, কোনো ধরনের আইনি ভিত্তি ছাড়াই সউদীতে আটক শত শত প্রিন্সের তালিকায় ফয়সালও যুক্ত হলেন।
মানবাধিকার গোষ্ঠিগুলো দেশটিতে শত শত মানবাধিকার কর্মী, নারী অধিকার কর্মীদের গ্রেপ্তার ও ইয়ামেন যুদ্ধের ধ্বংসযজ্ঞের তীব্র সমালোচনা করে আসছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ