Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ভোক্তা অধিকারের অভিযানে ৯৯ বাজারে সাড়ে ৫ লাখ টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ মে, ২০২০, ১১:১০ এএম

আসন্ন ঈদ উপলক্ষে মসলাসহ নিত্যপণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সারাদেশে ৯৯টি পাইকারি ও খুচরা বাজারে অভিযান পরিচালনা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা, বেশি দামে পণ্য বিক্রয় করা এবং মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রির অপরাধে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল রোববার রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বিভিন্ন জেলায় অভিযান করে এসব জরিমানা করা হয়।
অধিদফতর থেকে জানানো হয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষে মসলাজাতীয় পণ্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল ও সহনীয় রাখার লক্ষ্যে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পক্ষ থেকে সারাদেশে বাজার তদারকিমূলক কার্যক্রম পরিচালিত হয়।
এছাড়াও মহাপরিচালকের সভাপতিত্বে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সম্মেলনকক্ষে মসলাজাতীয় পণ্যসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের আমদানিকারক পাইকারি ব্যবসায়ীদের সাথে এক মতবিনিময় সভা করা হয়। সভায় ঈদ উপলক্ষে মসলাজাতীয় পণ্যসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, মজুত ও পণ্যমূল্য সহনীয় রাখতে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেয়া হয়।
অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) শামীম আল মামুনের সহযোগিতায় ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক (উপসচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক মোহাম্মদ মাসুম আরেফিন, বিকাশ চন্দ্র দাস, সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মন্ডল, রজবী নাহার রজনী, রোজিনা সুলতানা, মাগফুর রহমান, তাহমিনা বেগম ও মাহমুদা আক্তার।
ঢাকা মহানগরীতে অধিদফতরের ৯ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে ১৯টি বাজারে অভিযান পরিচালিত হয়। এছাড়া ঢাকার বাইরে ৫৯ জন কর্মকর্তা বিভাগে উপ-পরিচালক ও জেলায় সহকারী পরিচালকদের নেতৃত্বে ৮০টি বাজারে অভিযান পরিচালিত হয়।
এ প্রসঙ্গে অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষে মসলাসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে ঢাকাসহ সারাদেশে অধিদফতরের নিয়মিত ও বিশেষ বাজার তদারকি কার্যক্রম চলছে।
কোনো অসাধু ব্যক্তি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য ও মান নিয়ে কারসাজি করলে জিরো টলারেন্স দেখানো হচ্ছে। একই সাথে যারা নিয়ম মেনে ব্যবসা পরিচালনা করছেন ও দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে জনগণের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন, সেই সকল সৎ ব্যবসায়ীদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও সাধুবাদ জানান তিনি। এছাড়াও নিত্যপণ্যের উৎপাদনকারী, আমদানিকারক, পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীদের নিত্যপণ্যের ক্রয়মূল্যের ভাউচার এবং মূল্যতালিকা সংরক্ষণ, প্রদর্শন ও ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রয়ের জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভোক্তা অধিকার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ