Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

বাংলাদেশ বিজয়ী দেশ হিসেবে বেঁচে থাকবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ২২ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম



বিশেষ সংবাদদাতা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভকারী বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ, সমৃদ্ধ ও বিজয়ী দেশ হিসেবে বিশ্ব সম্প্রদায়ের মাঝে বেঁচে থাকবে। তিনি বলেন, মনে রাখতে হবে আমরা বিজয়ী জাতি। বাংলাদেশ সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদের জায়গা নয়। বাংলাদেশের মাটিতে সন্ত্রাসবাদের কোন স্থান হবে না।
প্রধানমন্ত্রী গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট (পিজিআর)-এর ৪১তম প্রতিষ্ঠবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা সেনানিবাসে অবস্থিত পিজিআরের সদর দফতরে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।
সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ঘটে যাওয়া কিছু সন্ত্রাসী হামলার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্ভাগ্য আমাদের এসব ঘটনায় বাংলাদেশের ভাবমর্যাদা কিছুটা ক্ষুণœ হয়েছে। কিন্তু এ ধরনের যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশের সক্ষমতা রয়েছে।
শেখ হাসিনা বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও বিষয়টি বুঝতে পেরেছে যে, বাংলাদেশ যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারবে। শান্তিপূর্ণ ও সমৃদ্ধ জাতি হিসেবে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে এবং বর্তমান সরকার স্বপ্নকে সত্যে পরিণত করে জনগণের মাঝে স্বাধীনতার সুফল পৌঁছে দেয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, একের পর এক সমস্যা এসেছে, আমরা তা মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি বলে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে প্রশংসিত।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যেভাবে সন্ত্রাসের মোকাবেলা করেছি অনেক রাষ্ট্র, সরকার প্রধানরা তার প্রশংসা করেছেন। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, এদেশের সন্ত্রাসের স্থান হবে না। বাংলাদেশ হবে শান্তির দেশ, বাংলাদেশ হবে উন্নত দেশ। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা সন্ত্রাসের মোকাবেলা করবো।
প্রধানমন্ত্রী পিজিআর সদর দফতরে পৌঁছলে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মুহাম্মদ শফিউল হক এবং পিজিআর কমান্ড্যান্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর হারুন তাঁকে অভ্যর্থনা জানান। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিকী, নৌবাহিনী ও বিমান বাহিনীর প্রধানগণ, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার ও ঊর্ধ্বতন সামরিক এবং বেসামরিক কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী পিজিআর কর্মকর্তা ও জুনিয়ার কমিশন্ড অফিসারদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এ সময় পিজিআর কন্টিনজেন্টের একটি চৌকস দল প্রধানমন্ত্রীকে সালাম জানান। শেখ হাসিনা শহীদ পিজিআর সদস্যদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং তাদের মাঝে কিছু উপহার সামগ্রী প্রদান করেন। তিনি এ উপলক্ষে আয়োজিত মধ্যাহ্ন ভোজসভায় যোগ দেন।
নিরাপত্তা বাহিনীকে আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে কোন ধরনের নিরাপত্তা হুমকি ও সন্ত্রাসী হামলা মোকাবেলায় তাদের আধুনিক প্রশিক্ষণ ও কৌশল সম্পর্কে জানতে হবে। তিনি বলেন, সন্ত্রাসীরা অপরাধের ধরন পাল্টাচ্ছে এবং সন্ত্রাসী কর্মকা-ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। কাজেই প্রত্যেককে বিশেষ করে নিরাপত্তায় নিয়োজিত ব্যক্তিদের যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে আধুনিক প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। সময়ের ব্যবধানে পরিবর্তিত পরিস্থিতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে পিজিআর সদস্যদের দক্ষতা, কর্মকৌশল বিবেচনায় সময় উপযোগী হয়ে উঠতে হবে।
শেখ হাসিনা বলেন, প্রত্যেককেই স্বীকার করবেন যে, বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও রাষ্ট্রীয় কর্মসূচি পালনে পিজিআর সদস্যরা নিরাপত্তায় রক্ষাকবচ হিসেবে ভূমিকা পালন করেন। সরকার প্রধান হিসেবে আমি খুব কাছ থেকে আপনাদের দায়িত্ব, কঠোর পরিশ্রম এবং আন্তরিকতা দেখেছি। এ জন্য আমি খুব সন্তুষ্ট।
প্রধানমন্ত্রী আস্থা প্রকাশ করে বলেন, পিজিআর সদস্যরা সব সময় পেশাগত সমন্বয়, অনুগত, নিয়মানুবর্তিতা বজায় রেখে দায়িত্ব পালন করবেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এ বাহিনীর সদস্যরা নিজেদের কষ্টার্জিত ভাবমর্যাদা বজায় রাখবেন।
পিজিআর সদস্যদের কল্যাণে তার সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে তার সরকার এ বাহিনীর জন্য ঝুঁকি ভাতা চালু করে। ইতোমধ্যে গণভবনে আমরা একটি আধুনিক সৈনিক ব্যারাক তৈরি করেছি এবং তা উদ্বোধনও করা হয়েছে। এতে গণভবনে গার্ড সদস্যদের দীর্ঘদিনের বাসস্থান সমস্যা দূর হয়েছে। সেনানিবাসে গার্ড পরিবারের জন্য আলাদা পারিবারিক বাসস্থান নির্মাণের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে। আমি সবসময় চাই আপনারা আধুনিক পরিবেশে ভাল থাকুন।




 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বাংলাদেশ বিজয়ী দেশ হিসেবে বেঁচে থাকবে : প্রধানমন্ত্রী
আরও পড়ুন