Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০২ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

ভবিষ্যৎ সমৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি ম্লান করবে

সউদীদের পকেটে টান

রয়টার্স | প্রকাশের সময় : ১৪ মে, ২০২০, ১২:০৩ এএম

সউদী আরবের আত্মসংযমী পদক্ষেপ তাদের বেসরকারি খাতকে সঙ্কুুচিত করে ফেলবে। তেলের নির্ভরশীলতা কমিয়ে বৈচিত্র্য আনতে এই খাত খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর ফলে নাগরিকদের কাছে তাদের শক্তিশালী যুবরাজের মর্যাদাবোধ কিছুটা ক্ষুন্ন হতে পারে।
বেশ ক’জন ব্যবসায়ী ও অর্থনীতিবিদ বলেছেন, মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) তিনগুণ বৃদ্ধি এবং রাষ্ট্রীয় কর্মীদের জন্য জীবনযাত্রার ভাতা স্থগিতকরণ আরব বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতিতে মন্দা আরও গভীর করতে পারে এবং চাকরি তৈরিতে বিলম্ব করতে পারে। ইতোমধ্যে একটি করোনভাইরাস লকডাউনের কারণে দুর্বল চাহিদার সাথে লড়াই করে এবং সাধারণ সউদীদের জীবনযাত্রার উপর নির্ভর করে পরিবর্তনগুলো ব্যবসায়ের জীবনের বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ছড়িয়ে পড়েছে।

একজন সউদী খুচরা বিক্রেতা, যিনি নির্দ্বিধায় কথা বলার জন্য নাম না প্রকাশের অনুরোধ করেছিলেন, বলেন, ‘চাহিদার কারণে ক্ষতিগ্রস্থ বেসরকারী খাতকে কীভাবে সহায়তা করবে তা আমি বুঝতে পারছি না। লোকেরা তাদের নগদ ধরে রেখেছে এবং কেউ মোটেই ব্যয় করছে না’।
তিনি বলেন, যদি বছরের শেষ নাগাদ ব্যবসায় দুর্বলতা থাকে তবে ‘ব্যয় হ্রাস করার জন্য চাকরি কাটা ছাড়া আমার আর কোনও উপায় থাকবে না’।

কর্তৃপক্ষ এখনও অবধি সরাসরি নাগরিকদের প্রভাবিত করার পদক্ষেপগুলি এড়িয়ে গিয়েছিল, তীব্রভাবে অবগত ছিল যে নির্বাচন ছাড়াই এমন একটি দেশে সউদীদের এই ধরনের পদক্ষেপ সহ্য করার ক্ষমতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং যেখানে রাজনৈতিক বৈধতা আংশিকভাবে তেলের সম্পদের বন্টনে নির্ভরশীল।
যদিও অনেক সউদী তাদের নেতাদের আশেপাশে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমাবেশ করেছেন, অন্যরা মরহুম বাদশাহ আবদুল্লাহর হ্যাশট্যাগ ‘জীবিকা নির্বাহের’ অধীনে উচ্চ তেলের দাম এবং রাষ্ট্রীয় বিরাট সময়ের কথা স্মরণ করে ছবি পোস্ট করেছেন।
যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান তেল বহির্ভূত অর্থনীতির একটি সমৃদ্ধ বেসরকারী খাত তৈরি করতে এবং নতুন শিল্প এবং মেগা প্রকল্পগুলিতে লাখ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টির উচ্চাভিলাষী দৃষ্টি নিয়ে রক্ষণশীল দেশটিকে ঝাঁকুনি দেন।

‘ডাবল শক’
তবে তেলের স্বল্প দাম এবং করোনাভাইরাস এমন এক সময়ে বিশ্বের বৃহত্তম তেল রফতানিকারীর অর্থের উপরে ঝাঁপিয়ে পড়েছে যখন রাষ্ট্রীয় ব্যয় তার অর্থনৈতিক ইঞ্জিন হিসাবে থেকে যায় এবং বৃহত বিদেশী মূলধন প্রবাহ অধরা প্রমাণিত হয়। সউদীদের মধ্যে বেকারত্ব দাঁড়িয়েছে ১২ শতাংশ। অর্থমন্ত্রী মোহাম্মদ আল-জাদান বলেছেন, রাষ্ট্র পরিচালন ও মূলধন ব্যয় কমানোর ব্যবস্থাও ‘বেদনাদায়ক তবে প্রয়োজনীয়’ ছিল।
রিয়াদ ঘাটতি রক্ষার জন্য কঠোর পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত হিসাবে বিনিয়োগকারীরা এই ব্যবস্থা দেখে বিনিয়োগকারীদের সউদী বন্ডগুলি সমাবেশ করার সময় ব্যবসায়ীদের মালিকরা আরও বেশি ব্যথার জন্য চাপ দিচ্ছেন।
নির্মাণ খাতের এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘এটাই কি সঠিক সময়? এটি একটি বিপর্যয় এবং এখন ডাবল শক, করোনাভাইরাসের প্রভাব ছিল মারাত্মক এবং এখন আমরা গ্যারান্টি দিচ্ছি যে ব্যবসা আরও দীর্ঘ সময়ের জন্য কমছে’। বিশ্লেষকরা বলেছেন, সউদী আরবের সিদ্ধান্ত সম্ভবত বেসরকারী খাত এখনও একটি প্রান্তিক ভূমিকা পালন করে এমন ভিত্তিতেই হয়েছিল।

ওয়াশিংটনের আমেরিকান এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউটের আবাসিক পন্ডিত কারেন ইয়ং বলছিলেন, ‘শক্তিশালী সউদী বেসরকারী খাতের প্রহসাকে একপাশে রেখে দেয়া হয়েছে। দীর্ঘ মেয়াদে বৃদ্ধি হতে পারে, তবে রাষ্ট্র সবসময় এই প্রক্রিয়াটি পরিচালিত করে’।
গত বছর জনসমক্ষে প্রকাশিত হলে সউদীর তেল জায়ান্ট আরামকোতে শেয়ার কিনতে উৎসাহিত করেছিল। তবে মার্চ মাস থেকে তারা আইপিও’র দামের নিচে বাণিজ্য করছে, যা অনেককে হতাশ করে। ২৪ বছর বয়সী সউদী বিক্রয়কর্মী ফাতেমা বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই সরকারকে সমর্থন করতে হবে, তবে আমি আশা করি তারা এগুলি (ব্যবস্থা) ধীরে ধীরে তৈরি করুক’।
স¤প্রতি রক্ষণশীল দেশটির সামাজিক সংস্কারের অধীনে পরিচালিত কর্মকান্ড প্রশ্নে তিনি বলছিলেন ‘সিনেমাঘর, জিম এবং ডাইনিংয়ের জন্য অতিরিক্ত কিছু অর্থ ব্যয় করা এবং কনসার্টের জন্য সংরক্ষণ করা দুর্দান্ত ছিল, তবে এখন অর্থ ব্যয় কোথায় করা উচিত সে সম্পর্কে এখনই সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত’।

‘নিপীড়িত ক্রোধ’
এক কূটনীতিক বলেন যে, সউদীরা চূড়ান্তভাবে অনুভ‚ত হওয়ায়, যুবরাজ তার সমর্থনের ভিত্তি দুর্বল হতে এবং অসন্তুষ্টি বাড়তে দেখবেন, যদিও অশান্তির সম্ভাবনা নেই। প্রিন্স মোহাম্মদ ক্ষমতার একীভূত হওয়ার কারণে আলেম, কর্মী ও বুদ্ধিজীবী, পাশাপাশি রাজপরিবারের সদস্য এবং সউদী অভিজাতদের আটক করে ভিন্নমত পোষণ করেছেন।

‘সমস্যা হ’ল এই পদক্ষেপ নাগরিকদের ছুঁয়ে গেছে, প্রত্যেকের বেতন ১০ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে’, কূটনীতিক বলেছেন, বাদশাহ আবদুল্লাহর ছবি পোস্ট করা একটি ‘নেতিবাচক ইঙ্গিত’ ছিল।
কূটনীতিক বলেছিলেন, ‘রাস্তায় কিছুই হবে না, এতে ক্ষোভের ঝাপটা পড়ে যাবে’, ব্যবস্থাটি ঘোষণার পরে চালু হওয়া ‘আমরা আপনাকে ভাল সময়ে ও খারাপের দিকে মনোযোগ দেব’ এই হ্যাশট্যাগটি সাধারণত যেভাবে ঘটেছিল তা মেঘ ঘণীভ‚ত করেনি বলে উল্লেখ করে। সরকারের মিডিয়া অফিস রয়টার্সের মন্তব্যের জন্য অনুরোধের সাথে সাথে সাড়া দেয়নি।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল অনুসারে, ২০১৯ সালে ০.৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধির তুলনায় এই বছর অর্থনীতিটি ২.৩% সঙ্কুচিত হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্রথম ত্রৈমাসিকে দেশটির ৯ বিলিয়ন ডলার বাজেট ঘাটতি রেকর্ড হওয়ার সাথে সাথে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২০ বছরের মধ্যে তাদের দ্রুততম হারে হ্রাস পেয়েছে।
দুবাই-ভিত্তিক অর্থনীতিবিদ নাসের সাইদী বলেছেন, ভ্যাট বৃদ্ধি থেকে যে কোনও অতিরিক্ত রাজস্ব উপার্জনযোগ্য হবে না এবং এই পদক্ষেপের ফলে মন্দা আরও তীব্র হবে।
‘এটি এমন সময়ে সিস্টেমে একটি অপ্রয়োজনীয় শক দেবে যখন ব্যবসায়ীরা নৌকা চালিয়ে যাওয়ার জন্য লড়াই চালাচ্ছে, পরিবারগুলি স্বল্প আয়ের অভিজ্ঞতা পাচ্ছে এবং চাকরিবিহীন প্রবাসীরা দেশে ফিরছে’- তিনি বলছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ